21.5 C
Toronto
মঙ্গলবার, আগস্ট ৯, ২০২২

মায়ের মৃত্যু সইতে না পেরে দুই ভাইয়ের ‘আত্মহত্যা’, হাসপাতালে বোন

- Advertisement -

বার্নপুরের এই বাড়ি থেকেই উদ্ধার হয় মরদেহগুলো

অসুস্থ মায়ের মৃত্যু কোনোমতেই মেনে নিতে পারেননি ছেলে-মেয়েরা। সেই শোকে মায়ের মরদেহের পাশেই বিষ খেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করলেন তিন সন্তান। তাদের মধ্যে দুই ভাইয়ের মৃত্যু হয়েছে। হাসপাতালের বিছানায় শুয়ে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছেন মেয়ে।

পশ্চিমবঙ্গের আসানসোলের বার্নপুরের এই ঘটনায় স্তম্ভিত সকলে। খবর সংবাদ প্রতিদিনের।

খবরে বলা হয়েছে, বৃহস্পতিবার সকালে বার্নপুরের স্টেশন রোডে পরিত্যক্ত আবাসনে তিনটি মৃতদেহ উদ্ধার হয়। ৯০ বছরের গীতা কর এবং তার দুই ছেলে জয়ন্ত কর, বিপ্লব করকে মৃত অবস্থায় পাওয়া যায়। আরেক সন্তান, ৫৭ বছরের বোন মায়া করকে অচৈতন্য অবস্থায় উদ্ধার করা হয় বাড়ি থেকে। তাকে আসানসোল জেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। জয়ন্ত ও বিপ্লব – দু’জনের বয়সই ষাটের আশপাশে। বাড়ি থেকে উদ্ধার হয়েছে সুইসাইড নোট। পাওয়া গেছে কার্বলিক অ্যাসিডের শিশিও।

পুলিশের দাবি, সুইসাইড নোটে লেখা – স্বেচ্ছায় তারা মৃত্যুবরণ করেছেন। মৃত্যুর কারণ হিসাবে দায়ী করেছেন, মা ছিল তাদের অন্তপ্রাণ। তাই তিন ভাইবোন বিয়ে করেননি। মায়ের মৃত্যুর পর নিজেরা আর বাঁচতে চান না। তাই আত্মহত্যার সিদ্ধান্ত নিলেন। জানা গেছে, বড় ভাই জয়ন্ত কর বার্নপুর ইস্কো কারখানায় কাজ করতেন। তিনি একাই আয় করতেন।

প্রতিবেশীদের দাবি, এদিন বেলা পর্যন্ত বাড়ির দরজা বন্ধ ছিল। তাতে সন্দেহ হওয়ায় পুলিশের কাছে খবর পাঠানো হয়। হীরাপুর থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে মরদেহগুলো উদ্ধার করে জেলা হাসাপাতালে পাঠায় ময়নাতদন্তের জন্য। বোন মায়া করের শরীরে হৃদস্পন্দন পাওয়া যায়। তাই তাকে দ্রুত জেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানেই এখন চিকিৎসাধীন তিনি। প্রাথমিক অনুমান, খাবারের সঙ্গে কার্বলিক অ্যাসিড মাখিয়ে খেয়ে সবাই আত্মহত্যার চেষ্টা করেন।

- Advertisement -

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles