-13.8 C
Toronto
শনিবার, জানুয়ারী ২২, ২০২২

আট দিনেও খোঁজ মেলেনি পপির, অপেক্ষায় মেয়ে

- Advertisement -

ফজিলা আক্তার পপি -ছবি : সংগৃহীত

ঝালকাঠির সুগন্ধা নদীতে অভিযান-১০ লঞ্চে অগ্নিকাণ্ডের আট দিন পার হলেও এখনো সন্ধান মেলেনি বরগুনার পাথরঘাটার ফজিলা আক্তার পপির (২৫)। কিশোরী মেয়েকে নিতে ঢাকা থেকে ওই লঞ্চে গ্রামে যাচ্ছিলেন তিনি। দুর্ঘটনার পর থেকেই তিনি নিখোঁজ। এদিকে, পপির কিশোরী মেয়ে লামিয়া আক্তার এখনও মায়ের ফেরার অপেক্ষায় রয়েছে।

দুর্ঘটনার পর এমভি অভিযান-১০ লঞ্চসহ ঝালকাঠি ও বরগুনা সদর হাসপাতালের মর্গে এবং বরিশালের শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে খোঁজ নিয়েও তার সন্ধান মেলেনি। পপি ঢাকার সাভারে একটি পোশাক কারখানায় চাকরি করতেন। পপি পাথরঘাটা উপজেলার চরদুয়ানী ইউনিয়নের ছোট টেংরা গ্রামের আফজাল হোসেনের মেয়ে।

- Advertisement -

জানা গেছে, পপির মেয়ে লামিয়া নানা-নানির সঙ্গে পাথরঘাটায় থাকে। ঢাকায় স্কুলে ভর্তি করানোর জন্য মেয়েকে নিতে ২৩ ডিসেম্বর ওই লঞ্চে পাথরঘাটায় যাচ্ছিলেন তিনি।

পপির বাবা আফজাল হোসেন বলেন, ‘একমাত্র মাইয়াডারে হারাইলাম। এহন ক্যামনে থাকমু। জামাই মাইয়াডারে সাত বছর আগে তালাক দিয়া যায়। জীবন বাঁচাইতে ঢাকায় গার্মেন্টসে চাকরি করতো। মাইয়াডার লাশটা পাইলেও কবরডা দেখতাম।’

পপির মেয়ে লামিয়া আক্তার বলে, ‘মায় কইছিল, বাড়িতে আইয়া মোরে ঢাহায় নিব, ভালো স্কুলে পড়াইব। এহনো মায় আয় নাই। হুনছি লঞ্চে আগুন লাগছে, হেই লঞ্চেই মায় আছিল। মোর মায় কি আইব?’

ঝালকাঠির সুগন্ধা নদীতে লঞ্চে ওই অগ্নিকাণ্ডে পুড়ে কমপক্ষে ৪৬ জন মারা যান। এতে আহত ও দগ্ধ হন ৭০ জনের বেশি। নিখোঁজ রয়েছেন অর্ধশতাধিক।

 

- Advertisement -

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles