22.3 C
Toronto
শুক্রবার, জুলাই ১৯, ২০২৪

‘কালাজাদু করে সিদ্ধার্থকে বিয়ে করেছেন কিয়ারা’, শুনে ৫০ লাখ খোয়ালেন ভক্ত!

‘কালাজাদু করে সিদ্ধার্থকে বিয়ে করেছেন কিয়ারা’, শুনে ৫০ লাখ খোয়ালেন ভক্ত!
সিদ্ধার্থ মালহোত্রা ও কিয়ারা আদভানি

‘বলিউডের অভিনেত্রী কিয়ারা আদভানি কালাজাদু করে অভিনেতা সিদ্ধার্থ মালহোত্রাকে বিয়ে করেছেন, অভিনেতার এমনই অবস্থা যে নিজের ব্যাংক অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করার অ্যাকসেস পর্যন্ত তার কাছে নেই’- এমন কথা শুনতে গিয়ে ৫০ লাখ টাকা খুইয়েছেন মিনু বসুদেব নামে এক ভক্ত। অভিনেতা সিদ্ধার্থেরই একটি ফ্যান পেজের জন্য এই টাকা খোয়ালেন মিনু।

আনন্দবাজার পত্রিকার অনলাইনের খবরে বলা হয়, সিদ্ধার্থ নিজেও সোশ্যাল মিডিয়ায় সেই ফ্যান পেজ অনুসরণ করেন বলে জানা যাচ্ছে।

- Advertisement -

এক্স (সাবেক টুইটার) হ্যান্ডলে একাধিক পোস্ট করে নিজের ৫০ লাখ টাকা খোয়ানোর কথা জানান আমেরিকার বাসিন্দা মিনু। তিনি জানান, আলিজ়া ও হুসনা পারভিন নামে দু’জন নারী সিদ্ধার্থকে নিয়ে মনগড়া একটি গল্প শুনিয়েছিলেন তাকে। অভিযুক্ত ওই দুই নারী মিনুর কাছে দাবি করেন, সিদ্ধার্থের নাকি প্রাণ সংশয় রয়েছে। মিনুকে বলা হয়, স্ত্রী কিয়ারার জন্যই নাকি বড় ঝুঁকির মধ্যে পড়েছেন সিদ্ধার্থ।

একটি একটি পোস্টে মিনু লেখেন, ওই ফ্যান পেজের দুই অ্যাডমিন আলিজ়া ও হুসনা তাকে বলেন- পরিবারের সব সদস্যকে মেরে ফেলার হুমকি দিয়ে জোর করে সিদ্ধার্থকে বিয়ে করেছেন কিয়ারা। এমনকি ওই দুই অভিযুক্ত এই দাবিও করেন- কিয়ারা নাকি কালাজাদু করেছেন সিদ্ধার্থের ওপর। অভিনেতার এমনই অবস্থা যে নিজের ব্যাংক অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করার অ্যাকসেস পর্যন্ত তার কাছে নেই। এই গল্প বিশ্বাস করেন সিদ্ধার্থের ভক্ত মিনু। কারণ অভিযুক্তরা দাবি করেন, অভিনেতা সিদ্ধার্থের জনসংযোগ দপ্তর থেকে তারা ফোন করছেন। এই গল্প বিশ্বাস করেই সিদ্ধার্থের জন্য ৫০ লাখ টাকা দিয়ে দেন মিনু।

পোস্টে মিনু জানান, সিদ্ধার্থের কণ্ঠস্বর নকল করেও তার সঙ্গে কেউ কথা বলেন। অবশেষে মিনু বুঝতে পারেন, তিনি আসল সিদ্ধার্থ নন।

এক্স হ্যান্ডেলে মিনু লেখেন, ‘একটি ভুল কারণের জন্য আমার সমস্ত টাকা খোয়া গেল। এই টাকা আমার ফেরত চাই।’

সিদ্ধার্থকে অনুরোধ করে মিনু তার পোস্টে লেখেন, ‘সিড, যদি সম্ভব হয় দয়া করে ওই নারীদের আমার টাকা ফেরত দিতে বলুন। কিন্তু তার চেয়েও বড় কথা, যে নিরীহ ভক্তরা প্রতারিত হয়েছেন তাদের সবার জন্য আমি সুবিচার চাই। এই দুই নারী যদি টাকা ফেরত না দেন, আমি বিশ্বাস করি, আমার প্রিয় সিড ওদের শাস্তি দেবেন।’

তবে এ প্রসঙ্গে সিদ্ধার্থ বা কিয়ারার পক্ষ থেকে কোনো প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles