29.3 C
Toronto
বৃহস্পতিবার, জুন ২০, ২০২৪

অনাগত সন্তান ছেলে নাকি মেয়ে দেখতে স্ত্রীর পেট কাটেন স্বামী, অতঃপর…

অনাগত সন্তান ছেলে নাকি মেয়ে দেখতে স্ত্রীর পেট কাটেন স্বামী, অতঃপর…
প্রতীকী ছবি

ঘটনাটি ভারতের। দেশটির উত্তর প্রদেশের বাদুনস সিভিল লাইনে চাঞ্চল্যকর এই ঘটনা ঘটে। অবশ্য, এমন কাণ্ড ঘটানো সেই পাষণ্ড স্বামীকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন দেশটির আদালত।

স্থানীয় গণমাধ্যমের প্রতিবেদন থেকে জানা গেছে, বাদুনস সিভিল লাইনের বাসিন্দা পান্না লাল ও তার স্ত্রী অনিতার ২২ বছরের সংসার। তাদের ঘরে আছে পাঁচটি মেয়ে সন্তান। তবে ছেলে সন্তানের জন্য পান্না লাল তার স্ত্রীর সঙ্গে ঝগড়া করতেন এবং ছেলে সন্তান জন্ম দেওয়া জন্য স্ত্রীকে ক্রমাগত চাপ দিতেন।

- Advertisement -

অনিতার পরিবার বিষয়টি জানত এবং তারা সমস্যা সমাধানের জন্য চেষ্টা করে। কিন্তু স্বামী পান্না লাল স্ত্রীকে ডিভোর্স এবং ছেলে সন্তানের জন্য আরেক নারীকে বিয়ে করার হুমকি দিতেন।

এরই জের ধরে ২০২০ সালের সেপ্টেম্বরে তার স্ত্রী অনিতার পেটে কাঁচি দিয়ে আঘাত করেন। অনাগত সন্তান ছেলে নাকি মেয়ে— তা দেখতেই এই কাণ্ড ঘটান তিনি।

যেদিন এ ঘটনা ঘটে সেদিন অনাগত সন্তানের লিঙ্গ নিয়ে ঝগড়া করেন ওই দম্পতি। ওইদিন তিনি স্ত্রীর পেট কেটে সন্তানটি ছেলে নাকি মেয়ে সেটি দেখার হুমকি দেন। অনিতা এক সময় পালানোর চেষ্টা করেন। কিন্তু তার পাষণ্ড স্বামী তাকে ধরে পেট কেটে ফেলেন।

ওই সময় অনিতা আট মাসের অন্তঃস্বত্তা ছিলেন। অনিতা আদালতকে জানিয়েছিলেন, কাঁচি দিয়ে স্বামী তাকে এতটাই আঘাত করেন যে তার নাড়িভুঁড়ি বের হয়ে ঝুলে যায়।

অনিতা ওই হামলায় বেঁচে গেলেও তার পেটে যে সন্তান ছিল সেটি মারা যায়। সবচেয়ে বড় ব্যাপার হলো পরবর্তীতে জানা যায় তার গর্ভে ছেলে সন্তান ছিল।

তবে পাষণ্ড এই স্বামী অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। তিনি দাবি করেছেন তার স্ত্রীর ভাইয়ের সঙ্গে জমিজমা নিয়ে ঝামেলা থাকায় তাকে ফাঁসাতে এই ঘটনা সাজানো হয়েছে। তবে তথ্য প্রমাণ পেয়ে আদালত তাকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন।

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles