14.4 C
Toronto
শনিবার, জুন ১৫, ২০২৪

৩৫০ বছর পর ভারতে ফিরছে ছত্রপতি শিবাজির ‘বাঘনখ’

৩৫০ বছর পর ভারতে ফিরছে ছত্রপতি শিবাজির ‘বাঘনখ’

অবশেষে ভারতে ফিরছে ছত্রপতি শিবাজির ‘বাঘনখ’। এই অস্ত্র হাতবদল হয়ে চলে গিয়েছিল ইংল্যান্ডে। সেখান থেকে তা মহারাষ্ট্রে ফিরতে চলেছে আগামী নভেম্বরেই।

- Advertisement -

১৬৫৯ সালে এই বাঘনখের সাহায্যেই ভারতে বিজাপুর সাম্রাজ্যের সেনাপতি আফজাল খানকে পরাজিত করেছিলেন শিবাজি। সেই নখ এতদিন ছিল লন্ডনে। তবে ৩৫০ বছর পর আগামী নভেম্বর মাসেই তা মহারাষ্ট্রে ফিরে আসতে চলেছে।

চলতি বছর শিবাজির রাজ্যাভিষেকের ৩৫০ বর্ষপূর্তি। তা উদযাপনের জন্যই লন্ডনের ভিক্টোরিয়া অ্যান্ড অ্যালবার্ট মিউজিয়াম থেকে তিন বছরের প্রদর্শনীর জন্য মহারাষ্ট্রে আনা হবে শিবাজির ব্যবহৃত সেই বাঘনখ।
মহারাষ্ট্রের সংস্কৃতি মন্ত্রী সুধীর মুগানতিওয়র আগামী মঙ্গলবার লন্ডনে যাবেন। সেখানেই অস্ত্রটি ফিরিয়ে আনার বিষয়ে মিউজিয়াম কর্তৃপক্ষের সঙ্গে একটি চুক্তি স্বাক্ষর করবেন তিনি। মনে করা হচ্ছে, মহারাষ্ট্রে ফেরার পর দক্ষিণ মুম্বাইয়ের ছাত্রপতি শিবাজি মহারাজ মিউজিয়ামে প্রদর্শনীর জন্য রাখা হবে নখটি।

১৬৫৯ সালে প্রতাপগড়ের যুদ্ধে জয় পেয়েছিল মারাঠ সেনারা। সংখ্যায় কম থাকলেও শিবাজির রণকৌশলের জোরে মারাঠা সেনারা আফজাল খানের আদিলশাহী বাহিনীকে পরাজিত করেছিল। মারাঠা বাহিনীর সেই জয় মারাঠা সাম্রাজ্য প্রতিষ্ঠার জন্য ছত্রপতি শিবাজির জীবনের মোড় ঘুরিয়ে দিয়েছিল। তার পরাক্রম এবং রণনীতির খ্যাতি ছড়িয়ে পড়েছিল সর্বত্র।

প্রতাপগড় দুর্গে সেই বিখ্যাত বাঘনখের সাহায্যেই আফজাল খানকে হত্যা করেছিলেন শিবাজি। আফজালের বিশাল বাহিনীকে পরাস্ত করার সেই কাহিনি এবং শিবাজির বুদ্ধি ও সাহসিকতার গল্প আজও স্থানীয় লোকগাথার অংশ হয়ে রয়েছে। লোকমুখে শোনা যায়, হিংস্র ও চতুর আফজাল যখন পিছন থেকে ছুরি মারেন শিবাজিকে, তখন বাঘনখ ব্যবহার করেই সেই দুর্দম শত্রুকে ছিন্নবিচ্ছিন্ন করে হত্যা করেন শিবাজি।

মহারাষ্ট্রের বাসিন্দারা আজও সেই বাঘনখকে শক্তি এবং অনুপ্রেরণার প্রতীক বলে মনে করেন। যদিও এই বাঘনখ ব্যবহারের সত্যতা নিয়ে বিতর্ক রয়েছে।

ইতিহাসবিদ ইন্দ্রজিৎ সাওয়ান্তের দাবি, লন্ডনের ওই মিউজিয়ামের ওয়েবসাইটে বলা হয়েছে ছত্রপতি শিবাজি মহারাজ এই অস্ত্র আদৌ ব্যবহার করেননি।

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles