15.7 C
Toronto
রবিবার, মে ১৯, ২০২৪

৫৫ কেজি স্বর্ণ চুরির ঘটনায় ডিবির হারুনের হুঁশিয়ারি

৫৫ কেজি স্বর্ণ চুরির ঘটনায় ডিবির হারুনের হুঁশিয়ারি

হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে কাস্টমসের গুদাম থেকে সাড়ে ৫৫ কেজি স্বর্ণ চুরির ঘটনায় জড়িতরা যেই হোক কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না বলে জানিয়েছে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) গোয়েন্দা বিভাগের (ডিবি) অতিরিক্ত কমিশনার মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ। আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে ডিবি কার্যালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এ কথা বলেন তিনি।

- Advertisement -

হারুন অর রশীদ বলেন, স্বর্ণ চুরির ঘটনায় জড়িতদের চিহ্নিত করতে বিমানবন্দরের কাস্টমসের বাইরের সিসিটিভি ফুটেজ পর্যালোচনা করছে ডিবি। সেখান থেকে ফুটেজ গায়েব করা হয়েছে কি না তাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে। বদলি হওয়া ও বদলি হয়ে আসা এবং আগে পরে যারাই সেখানে যাতায়াত করেছেন তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে।

তিনি বলেন, ‘গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশের পরই আমরা ৫৫ কেজি স্বর্ণ গায়েবের তথ্য পাই। মামলা হওয়ার পর থানা পুলিশ তদন্ত করছিল। আমরাও ছায়া তদন্ত করছিলাম। পরে মামলার তদন্তভার ডিবি পায়। কাস্টমস কর্তৃপক্ষকে আমরা অনুরোধ করেছি, যারা গোডাউনের নিরাপত্তার দায়িত্বে ছিলেন তাদের আমরা জিজ্ঞাসাবাদ করতে চাই। এর পরিপ্রেক্ষিতে আটজনকে আমাদের কাছে পাঠানো হয়েছে। তাদের হেফাজতে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। এর মধ্যে চারজন সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা, চারজন সিপাহী।’

হারুন বলেন, ‘বিমানবন্দরের মতো জায়গায়, যেখানে কঠোর নিরাপত্তা, সেখান থেকে স্বর্ণ চুরির ঘটনাটি আমরা বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে তদন্ত করছি। নিয়মানুযায়ী যারা বদলি হবেন আর নতুন যারা আসবেন তাদের কাছে সব কিছু বুঝিয়ে দেবেন পুরাতনরা। সেখানে কারা কারা গেছেন, অন্য কারো যোগাযোগ ছিল কি না, দায়িত্ব হস্তান্তরে কোনো সমস্যা ছিল কি না, সিসিটিভি লাগানো ছিল, নাকি নষ্ট ছিল- এগুলো সব বিষয় আমরা তদন্ত করব। সন্দেহভাজনদের আমরা জিজ্ঞাসাবাদের আওতায় নিয়ে আসব।’

ডিবির তদন্ত কাজ বাধাগ্রস্ত হবে কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আমরা মনে করি তারা তদন্তে আন্তরিক ও সহযোগিতা করবেন। আশা করছি, আমরা স্বাধীনভাবে তদন্ত করতে পারব। ক্যাডার বা নন ক্যাডার বলে নয়, অপরাধ তো অপরাধই। অপরাধী যেই হোক কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না।’

কাস্টমসের শীর্ষ পর্যায়ের কোনো কর্মকর্তা জড়িত আছেন কি না, জানতে চাইলে ডিবির এ কর্মকর্তা বলেন, বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। সুস্পষ্ট অভিযোগের ভিত্তিতে ঊর্ধ্বতন কেউ জড়িত থাকলেও ছাড় দেওয়া হবে না।

সিসিটিভি ফুটেজ গায়েবের অভিযোগ সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘বিষয়টি সংশ্লিষ্ট থানা জানার কথা, কর্তৃপক্ষও জানবে স্বাভাবিক। অতি স্বল্প সময়ের মধ্যে আমরা বের করতে পারব বলে আশা করছি।’

সূত্র : আমাদের সময়

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles