15.7 C
Toronto
রবিবার, মে ১৯, ২০২৪

নারী এমপিদের উদ্দেশে রাহুলের উড়ন্ত চুমুর অভিযোগ ঘিরে তুমুল বিতর্ক

নারী এমপিদের উদ্দেশে রাহুলের উড়ন্ত চুমুর অভিযোগ ঘিরে তুমুল বিতর্ক
<br >ভারতের বিরোধীদল কংগ্রেসের নেতা রাহুল গান্ধী নারী সংসদ সদস্যদের লক্ষ্য করে ফ্লাইং কিস ছুড়েছেন বলে অভিযোগ করেছেন স্মৃতি ইরানি | ছবি এনডিটিভি

বিতর্কিত এক মন্তব্য করে সংসদ সদস্য পদ খোয়াতে হয়েছিল ভারতের বিরোধী দল কংগ্রেসের নেতা রাহুল গান্ধীকে। পরে দেশটির সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে সংসদে ফিরেছেন তিনি। তবে সংসদে ফেরার পরই তাকে নিয়ে শুরু হয়েছে নতুন এক বিতর্ক। বুধবার তার বিরুদ্ধে অধিবেশনে অনাস্থা প্রস্তাব নিয়ে বিতর্কের সময়ই দেশটির মন্ত্রী স্মৃতি ইরানি রাহুল গান্ধীর বিরুদ্ধে অভিযোগ করেন, তিনি নারী সংসদ সদস্যদের লক্ষ্য করে ‘ফ্লাইং কিস’ ছুড়েছেন!

পশ্চিমবঙ্গের বাংলা দৈনিক আনন্দবাজারের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বুধবার লোকসভা উত্তপ্ত ছিল নরেন্দ্র মোদি সরকারের বিরুদ্ধে বিরোধীদের আনা অনাস্থা প্রস্তাব নিয়ে বিতর্কে। নিজের বক্তব্যে মোদিকে তীব্র আক্রমণ করেন রাহুল। তাকে অহঙ্কারী রাবণের সঙ্গেও তুলনা করে রাহুল গান্ধী বলেন, ‘বিজেপি মণিপুরকে খণ্ডিত করে ভারতমাতাকে খুন করেছে!’

- Advertisement -

রাহুলের পরই বক্তৃতা দেওয়ার জন্য দাঁড়িয়েছিলেন স্মৃতি ইরানি। অন্যদিকে, ভাষণ শেষ করে অধিবেশন কক্ষ ছেড়ে বেরিয়ে যান রাহুল। নিজের বক্তৃতায় স্মৃতি অভিযোগ করেন, সেই সময়ই নাকি নারী সাংসদদের উদ্দেশে ‘ফ্লাইং কিস’ ছুড়েছেন রাহুল গান্ধী।

ঘটনা সেখানেই থেমে থাকেনি। স্মৃতি ওই অভিযোগ করার পরই বিজেপির নারী সাংসদরা লোকসভার স্পিকার ওম বিড়লার কক্ষে গিয়ে তার কাছে রাহুলের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেন। বিজেপির নারী সংসদ সদস্যদের নিয়ে স্পিকারের কক্ষে গিয়েছিলেন কৃষি প্রতিমন্ত্রী শোভা করণদাজে। সংসদের ভেতরে সেই সূত্রে স্মৃতি তার বক্তৃতায় রাহুলকে ‘নারীবিদ্বেষী’ বলেও আখ্যা দেন।

তবে রাহুল উড়ন্ত চুম্বন ছুড়েছেন, এমন কিছু সংসদের বিতর্কের সরাসরি সম্প্রচারে দেখা যায়নি। প্রত্যক্ষদর্শীদের অনেকের বক্তব্য, সভাকক্ষ থেকে বেরিয়ে যাওয়ার সময় রাহুলের হাতে থাকা কিছু নথিপত্র মেঝেতে পড়ে যায়। তা দেখে সরকার পক্ষের অনেকে হাসতে শুরু করেন।

রাহুল নথিপত্র কুড়িয়ে নেওয়ার সময়ই নাকি ট্রেজারি বেঞ্চের দিকে তাকিয়ে উড়ন্ত চুম্বন ছোড়ার ভঙ্গি করেছেন। ট্রেজারি বেঞ্চে যেহেতু বিজেপির নারী সংসদ সদস্যরাও ছিলেন (স্মৃতি তখন বলতেও শুরু করে দিয়েছেন), তাই তারা সদলবলে রাহুলের বিরুদ্ধে অভিযোগ জানাতে স্পিকারের কাছে যান।

রাহুলের বক্তব্যের পর স্পিকার নিজের কক্ষে গিয়েছিলেন প্যানেলভুক্ত এক সাংসদকে সভা সামলানোর দায়িত্ব দিয়ে। ওই অভিযোগে বলা হয়েছে, ‘কংগ্রেস নারীর ক্ষমতায়নের কথা মুখে বললেও দলের সংসদ সদস্যদের এই আচরণ প্রমাণ করে দিয়েছে আসলে তাদের মনের কথা কী।’

স্মৃতি ইরানির সঙ্গে অভিযোগ জানাতে গিয়েছিলেন পশ্চিমবঙ্গের সংসদ সদস্য ও সাবেক কেন্দ্রীয় মন্ত্রী দেবশ্রী চৌধুরী। তার কথায়, ‘এর আগে রাহুল সংসদের ভেতরে চোখ টিপে অশালীন ইঙ্গিত করেছিলেন। এবার ফ্লাইং কিস! সংসদের ভেতরে এই ধরনের অশালীন আচরণ অতীতে কখনও দেখা যায়নি। আমরা স্পিকারের কাছে ব্যবস্থা নেওয়ার আবেদন জানিয়েছি।’

স্মৃতি তার বক্তৃতায় ওই ঘটনার কথা উল্লেখ করলেও রাহুলের নাম উচ্চারণ করেননি। তবে রাহুলের বিরুদ্ধেই যে অভিযোগ তা স্পষ্ট করে দিয়েছেন। স্মৃতি বলেছেন, ‘আমার আগেই যিনি বক্তৃতা করলেন, তিনি অশালীন ব্যবহার করেছেন। একজন নারীবিদ্বেষী মানুষই নারী সংসদ সদস্যদের উদ্দেশে ফ্লাইং কিসের মতো ইঙ্গিত করতে পারেন। এটা বুঝিয়ে দেয় তিনি কোন পরিবার থেকে এসেছেন এবং তার দল নারীদের সম্পর্কে কী মনোভাব পোষণ করে।’

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles