15.7 C
Toronto
রবিবার, মে ১৯, ২০২৪

হাসপাতালে নুরকে যে উপদেশ দিলেন মির্জা ফখরুল

হাসপাতালে নুরকে যে উপদেশ দিলেন মির্জা ফখরুল

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় হামলায় আহত গণঅধিকার পরিষদের একাংশের সভাপতি নুরুল হক নুরকে গতকাল বৃহস্পতিবার দেখতে হাসপাতালে যান বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। এ সময় তিনি নুরের শারীরিক অবস্থার খোঁজ-খবর নেন এবং তাকে বিভিন্ন পরামর্শ দেন।

- Advertisement -

হাসপাতালের নুরের বেডের পাশে বসে তার উদ্দেশে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘তোমাকে শরীরের যত্ন নিতে হবে। একটু সাবধানে থাকতে হবে। আর নিজেকে রক্ষা করা কিন্তু রাজনীতির একটা অংশ। শারীরিকভাবে নিজেকে রক্ষা করতে হবে।’

বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘আমরা আছি, আমরা সব সময় তোমার সঙ্গে আছি। রাজনীতিতে জিততে হলে কিন্তু সব কিছু ঠিক রেখেই চলতে হবে। এটা মাথায় রাখতে হবে। তোমাকে সতর্ক থাকতে হবে, সাবধানে থাকতে হবে।’

এ সময় মির্জা ফখরুলের সঙ্গে ছিলেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির আহ্বায়ক আবদুস সালাম, বিএনপির প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী, সমাজ কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক কামরুজ্জামান রতন, নির্বাহী কমিটির সদস্য নাজিম উদ্দীন আলম প্রমুখ।

গত বুধবার বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্রে (টিএসসি) নুরের ওপর হামলার ঘটনা ঘটে। এতে নুরসহ অনেকেই আহত হন।

জানা গেছে, বুধবার বিকেল ৪টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্যে বিক্ষোভ সমাবেশ ডাকে বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের নেতাকর্মীরা। এই কর্মসূচির বিপরীতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সাধারণ শিক্ষার্থীর ব্যানারে মানববন্ধন কর্মসূচি ডাক দেয় ছাত্রলীগ। পূর্বঘোষিত এই কর্মসূচিতে যোগ দিতে শাহবাগ থেকে মিছিল নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় নুররা এলে হামলার ঘটনা ঘটে।

গণঅধিকার পরিষদের উচ্চতর পরিষদের সদস্য আবু হানিফ বলেন, ছাত্র অধিকার পরিষদের পূর্বঘোষিত কর্মসূচিতে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা দাঁড়াতেই দেয়নি। রাজু ভাস্কর্যে আসার সঙ্গে সঙ্গে নুরসহ নেতাকর্মীদের ওপর ঝাঁপিয়ে পড়ে। প্রায় ১৫ জন নেতাকর্মী আহত হয়েছেন। তারা ঢাকা মেডিকেলে চিকিৎসা নিচ্ছে।

এ বিষয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক তানভীর হাসান সৈকত আমাদের সময়কে বলেন, সাধারণ শিক্ষার্থীরা রাজু ভাস্কর্যে নিরাপদ ক্যাম্পাসের দাবিতে মানববন্ধন করার সময় নুরুল হক নুরের নেতৃত্বে বহিরাগত সন্ত্রাসীরা ক্যাম্পাসে ঢোকে। তারা সেখানে সাধারণ শিক্ষার্থীদের মানববন্ধনের বিপরীতে দাঁড়িয়ে তুচ্ছ-তাচ্ছিল্য করে। তখন দুপক্ষের মধ্যে তর্ক-বিতর্ক হয়। একপর্যায়ে নুরের নেতৃত্বে সন্ত্রাসী বাহিনী সাধারণ শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা করে। এখানে ছাত্রলীগের কোনোভাবে সম্পৃক্ততা নেই।

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles