12.9 C
Toronto
রবিবার, মে ২৬, ২০২৪

রাতের অন্ধকারে এমপি বানিয়েছি: আ.লীগ নেতার বক্তব্য নিয়ে তোলপাড়

রাতের অন্ধকারে এমপি বানিয়েছি: আ.লীগ নেতার বক্তব্য নিয়ে তোলপাড়
ছবি সংগৃহীত

শুক্রবার কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলার যদুবয়রা মাধ্যমিক বিদ্যালয় মাঠে শান্তি সমাবেশে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক লুৎফর রহমানের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সদর উদ্দিন খান।

শান্তি সমাবেশে আজগর আলী বলেন, রাতের অন্ধকারে তোমরা এমপি হয়েছো, আমরাই তো তৈরি করেছি। অহংকার ভালো না দাদাভাই। তোমরা এমপি হয়েছ, মুরব্বিদের সম্মান করে চলো। তা না হলে সমস্যা হবে। তখন কিছু বলতে পারবা না। সংগঠন আমরাই তো করেছি, তোমরা করো নাই।

- Advertisement -

জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আজগর আলী কুষ্টিয়া-৪ (কুমারখালী-খোকসা) আসনের সংসদ সদস্য সেলিম আলতাফের উদ্দেশে কথাগুলো বলেছেন।

আগের দিন বৃহস্পতিবার বিকেলে কুষ্টিয়ার খোকসায় শান্তি ও উন্নয়ন সমাবেশে আসগর আলীসহ চার নেতার বিরুদ্ধে কঠোর হুঁশিয়ারি দিয়েছিলেন সংসদ সদস্য সেলিম আলতাফ।

সমাবেশে সংসদ সদস্য সেলিম আলতাফের নাম উল্লেখ না করে আজগর আলী বলেন, তোমরা এমপি হয়ে ওপরের দিকে তাকাও, নিচের দিকে তাকানোর সুযোগ নাই। আমরা আওয়ামী লীগ করি, আওয়ামী মানে জনগণ, জনগণের দল করি। আর তোমরা চেষ্টা করছ আমি লীগ করার। শেখ হাসিনার নাম নষ্ট করতে দেওয়া হবে না।

যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য সংসদ সদস্য সেলিম আলতাফের উদ্দেশে আজগর আলী আরো বলেন, আওয়ামী লীগের সভাপতি সাধারণ সম্পাদককে বাদ দিয়ে যুবলীগের সমাবেশ করেছ। তোমাদের সাহস কে দিয়েছে। একটুও লজ্জা লাগে না।

এ বিষয়ে কুষ্টিয়া-৪ (কুমারখালী-খোকসা) আসনের সংসদ সদস্য সেলিম আলতাফ জর্জ বলেন, দলের সাধারণ সম্পাদকের নিকট থেকে এমন বক্তব্য আশা করেনি। আওয়ামী লীগের সরকারের অধীনে নির্বাচন সবসময় অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষভাবে সম্পূর্ণ হয়েছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আজগর আলী বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনা নতুন প্রার্থী হিসেবে সেলিম আলতাব জর্জকে নমিনেশন দিয়েছিলেন। এর আগে কুষ্টিয়া-৪ (কুমারখালী-খোকসা) ওই আসনে যারা সংসদ সদস্য প্রার্থী হিসাবে নমিনেশন প্রার্থী ছিলেন তাদেরকে সবাইকে রাতের অন্ধকারে এক জায়গায় করে। তাদের সাথে সমন্বয় করে, অবাধ,সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের মধ্য দিয়ে নৌকার প্রার্থী সেলিমা আলতাব জর্জকে আমরা বিজয়ী করিয়েছিলাম। এমপি হওয়ার পরে তিনি মুরুব্বীদের অসম্মান করতে থাকেন। সেই সাথে আওয়ামী লীগের তৃণমূল রাজনীতিতে হট্টগোলের সৃষ্টি করেন। এটা খুবই দুঃখজনক। এজন্যই আমি বলেছি রাতের আঁধারে এমপি হয়েছেন। কারণ ওই দিন রাতের আঁধারেই যারা ওই আসনের সংসদ সদস্য প্রার্থী ছিলেন তাদের সকলকেই নিয়ে সমন্বয়ে মাধ্যমে অবাধ,সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের মধ্য দিয়ে এই বিজয় আনা সম্ভব হয়েছিল।

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles