4.1 C
Toronto
রবিবার, ফেব্রুয়ারী ৫, ২০২৩

বাথরুমে ছাত্রীর ঝুলন্ত লাশ, যা বলছে পরিবার

বাথরুমে ছাত্রীর ঝুলন্ত লাশ, যা বলছে পরিবার

হবিগঞ্জের মাধবপুরে মাদ্রাসার বাথরুমের ভিতরে ভেন্টিলেটরের সঙ্গে ফাঁস দিয়ে ৯ম শ্রেণির ছাত্রী মোছা. ফাহিমা আক্তার (১৫) আত্মহত্যা করেছে। তার মৃত্যু ঘিরে এলাকাবাসীর মধ্যে নানান প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। পরিবার বলছে, জিনের আসরের জন্য সে আত্মহত্যা করেছে।

- Advertisement -

রোববার (১৫ জানুয়ারি) সকালে মাধবপুর থানার পুলিশ মাদ্রাসার বাথরুমের দরজা ভেঙে ছাত্রীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে।

ফাহিমা আক্তার ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নাসিরনগর উপজেলার শ্রীঘর গ্রামের মো. সফল মিয়ার মেয়ে। সে হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলার নোয়াপাড়া ইউপির রতনপুর জামিয়া আরাবিয়া হাবিবিয়া টাইটেল মহিলা মাদ্রাসার ছাত্রী ছিল।

মাধবপুর থানার উপপরিদর্শক রাজিব রায় জানান, রোববার সকাল সাড়ে ৭টার দিকে ওই ছাত্রী বাথরুমে গিয়ে ভেতর থেকে দরজা আটকিয়ে গলায় উড়না পেঁচিয়ে ভেন্টিলেটরের রডের সঙ্গে বেঁধে আত্মহত্যা করে। খবর পেয়ে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য হবিগঞ্জ সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে।

ওই ছাত্রীর পিতা মো. সফল মিয়া জানান, তার ছোট মেয়েসহ মোছা. ফাহিমা আক্তার ওই মাদ্রাসায় থেকে লেখাপড়া করত। তার উপরে জিনের আসর পড়ে। তার রোগ সারাতে চুনারুঘাট উপজেলার কালিশিড়ি গ্রামের এক কবিরাজের কাছে গিয়ে তার ঝাড়ফুঁক, তেলপড়া, তাবিজ-কবজ এনে দেই; কিন্তু তার এ সমস্যা দূর হয়নি। তার বোন আকিমা আক্তার ও অন্যান্য ছাত্রীদের অজ্ঞাতে রোববার সকালে বাথরুমে গিয়ে দরজা বন্ধ করে আত্মহত্যা করেছে।

সূত্র : যুগান্তর

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles