-4.7 C
Toronto
শনিবার, ফেব্রুয়ারী ৪, ২০২৩

কানাডিয়ান শিল্পী বিশাল মাথুরের স্টুডিওতে

গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় টরন্টো ডাউনটাউনে ভারতীয় বংশভুত কানাডিয়ান শিল্পী বিশাল মাথুরের স্টুডিও কাম রেসিডেন্সে গিয়ে ছিলাম আমি ও সাউথ এশিয়ান আর্ট স্পেশালিস্ট,আর্ট কিউরেটর বন্ধু আলী আদিল খান। বিশাল মাথুর সাথে আমাদের দেড় যুগের জানা শোনা। এবার সঙ্গে তার টার্কিশ বান্ধবী ড্যানিসে ও ছিলো। যাওয়ার উদ্দেশ্য ছিলো দীর্ঘদিন দেখা না হওয়ায় তার নতুন বান্ধবী,নতুন স্টুডিও আর নতুন ভারতীয় মাস্টার আর্টিস্টদের নতুন অরিজিনল কাজ কাছে থেকে স্বচোক্ষে দেখা।

শিল্পী যামিনী রায়,গণেশ পাইন,এম,এফ,হোসাইন,পরিতোষ সেন,ফ্রান্সিস নিউটন সুজা,সৈয়দ হায়দার রাজা, প্রকাশ কর্মকার, রবীন মন্ডল, বাবু জেভিয়ার, পরেশ,মাইতী,যতীন দাস,সুনীল দাস নাম লিখে শেষ করা মুস্কিল তার চেয়ে বলি তায়েব মেহতা, মানজিৎ বাওয়া,এঞ্জেলা মেননরয় ও অতুল দোদীয়ার ছবি এখনো সংগ্রহ হয়নি। ও হ্যা,ছিলো একমাত্র পাকিস্তানী মাস্টার আর্টিস্ট জামিল নক্সের কাজ। পানাহারের পর বিশাল মাথুরের কাঁধে হাত রেখে বল্লাম -বাংলাদেশের এক-দুইজন মাস্টার আর্টিস্টের কাজ তোমার সংগ্রহে থাকলে খুশী হতাম।

- Advertisement -

বিশাল মাথুর ঘুরে মুখোমুখি দাঁড়য়ে জানতে চাইলো –নাম বলো? আমি আদিলের দিকে তাকালম। আদিল আমার দিকে তাকালো। তারপর একসাথে বলে উঠলাম – পরে ভেবে জানাচ্ছি! একজন শিল্পীর পক্ষে এই কোটি-কোটি টাকার মাস্টারপিস কিনে সংগ্রহ করা অসম্ভব ব্যাপার। তবে বিশাল মাথুর শুধু শিল্পীই নয় বিশ বছর আগে পাশ করা একজন কানাডিয়ান সি,এ।

নব্বই দশকের শেষ দিকে তিন বছর কাজ করেছে কাতারে পাহাড় সমান টেক্সফ্রী বেতনে। মাস্টার আর্টিস্টদের কাজ সংগ্রহ করার ঝোঁক তখনি মাথায় ঢুকে ছিলো। যেহেতু বিশাল মাথুর একজন গুজরাতী সে বোঝে মাস্টরপিস পেইন্টিং এর মূল্য গোল্ডবারের চেয়েও বেশি।

স্কারবোরো, অন্টারিও, কানাডা

কানাডিয়ান শিল্পী বিশাল মাথুরের স্টুডিওতে
বিশাল মাথুর সাথে আমাদের দেড় যুগের জানা শোনা এবার সঙ্গে তার টার্কিশ বান্ধবী ড্যানিসে ও ছিলো
- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles