আন্দোলনে সাড়া না পেয়ে ধর্মীয় অনুভূতি ব্যবহার: তাজুল ইসলাম

- Advertisement -

স্থানীয় সরকার মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম বলেছেন, স্বাধীনতাবিরোধী শত্রুরা রাষ্ট্রীয় ক্ষমতার জন্য বিভিন্ন সময় ষড়যন্ত্র করেছে এবং এখনও করে যাচ্ছে। তাদের আন্দোলনে মানুষের সাড়া পায় না বলেই দেশকে অস্থিতিশীল করতে ধর্মীয় অনুভূতি কাজে লাগিয়ে ইন্ধনের চেষ্টা করছে। শুধু দেশে নয়, দেশের বাইরেও ষড়যন্ত্র হচ্ছে বলে উল্লেখ করেন তিনি।

- Advertisement -

আজ শুক্রবার রাজধানীর মিন্টু রোডে সরকারি বাসভবনে সাংবাদিকদের ব্রিফকালে এ কথা বলেন মন্ত্রী।

তিনি দেশের সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষায় স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানের জনপ্রতিনিধিদের সতর্ক থাকার আহ্বান জানিয়েছেন।

- Advertisement -

তাজুল ইসলাম বলেন, ইউনিয়ন পরিষদ, উপজেলা পরিষদ, পৌরসভা এবং সিটি করপোরেশনসহ জনপ্রতিনিধিত্বশীল প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিরা জাতির দুঃসময়ে, দুর্দিনে, বিপদে-আপদে সবার আগে মানুষের পাশে দাঁড়ায়। আমাদের দেশে সব ধর্ম-বর্ণের মানুষ মিলে মিশে বসবাস করে। এদেশ সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির এক অনন্য দৃষ্টান্ত। আজকে সেই সম্প্রীতি নষ্ট করতে এবং দেশের উন্নয়নকে বাধাগ্রস্ত করতে একটি মহল ষড়যন্ত্র করছে। এ ষড়যন্ত্র মোকাবিলার জন্য জনপ্রতিনিধিদের সতর্ক থাকতে হবে।

- Advertisement -

আরও পড়ুন : রাতে বরকে অচেতন করে ‘১০ ভরি’ স্বর্ণ নিয়ে চাচার সঙ্গে পালালেন নববধূ

কুমিল্লার ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, স্বাধীনতাবিরোধী শত্রুরা রাষ্ট্রীয় ক্ষমতার জন্য বিভিন্ন সময় ষড়যন্ত্র করেছে এবং এখনও করে যাচ্ছে। তাদের আন্দোলনে মানুষের সাড়া পায় না বলেই দেশকে অস্থিতিশীল করতে ধর্মীয় অনুভূতি কাজে লাগিয়ে ইন্ধনের চেষ্টা করছে। শুধু দেশে নয়, দেশের বাইরেও ষড়যন্ত্র হচ্ছে বলে উল্লেখ করেন তিনি। তাই ষড়যন্ত্রকারীদের কঠোরভাবে দমন করতে জনগণকে ঐক্যবদ্ধ থাকার আহ্বান জানান তিনি।

তিনি আরও বলেন, আমরা উন্নয়নশীল দেশে পরিণত হয়েছি। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাত ধরে উন্নত দেশের লক্ষ্যে এগিয়ে যাচ্ছি, ঠিক তখন একটি স্বার্থান্বেষী মহল এ ঘটনা ঘটাচ্ছে। যা ঘটিয়েছে তারা দেশ ও জাতির শত্রু। তারা কখনোই দেশের উন্নয়ন চায় না।

স্থানীয় সরকার মন্ত্রী বলেন, সব ধর্মের মানুষদের সবস্থানে থাকার জন্য বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান দেশ স্বাধীন করেছেন। মুসলিম প্রধান দেশ হলেও বঙ্গবন্ধু সবধর্মের মানুষের অধিকার নিশ্চিত করেছেন। মানুষ যে ধর্মের হোক না কেন, সে যেন রাষ্ট্রীয় অভিন্ন সুযোগ-সুবিধা ভোগ করতে পারে এ নীতিমালা বাস্তবায়ন করে গেছেন। তার সুযোগ্যকন্যা শেখ হাসিনা সেই নীতি বাস্তবায়ন করছেন।

সূত্র : কালের কন্ঠ

- Advertisement -

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles