12.7 C
Toronto
শনিবার, অক্টোবর ১৬, ২০২১

নোবেল সংশোধন হলে একসাথে আবার সংসার হবে : সালসাবিল

ফাইল ছবি

‘আমার ও নোবেলের দেখা হয়েছে। আমাদের মধ্যে কথা হয়েছে। আমরা নিজেদের মধ্যে কথা না বলে অনলাইনে কাদা ছোড়াছুড়ি করছিলাম। এটা আসলে ঠিক হয়নি।’ বলছিলেন কণ্ঠশিল্পী মাঈনুল আহসান নোবেলকে তালাকের নোটিশ দেয়া স্ত্রী মেহরুবা সালসাবিল ওরফে সালসাবিল মাহমুদ।

সারেগামাপা থেকে পরিচিতি পাওয়া ও বিভিন্ন ইস্যুতে বিতর্কিত হওয়া গায়ক নোবেলকে ডিভোর্সের চিঠি পাঠানোর পর তার স্ত্রী মেহরুবা সালসাবিল মাহমুদ জানিয়েছিলেন, ‘নোবেল মানসিকভাবে অসুস্থ, মাদকাসক্ত, আমাকে নানাভাবে নির্যাতন করত। ওর সঙ্গে সংসার করা সম্ভব না।’

তবে এর কয়েকদিন বাদেই আজ একটি জাতীয় দৈনিককে দেওয়া সাক্ষাৎকারে সালসাবিল জানালেন ভিন্ন কথা। তিনি বলেন, ‘নোবেলের সাথে দেখা হয়েছে, কথা হয়েছে। নোবেল ক্ষমা চেয়েছে। নিজেকে সংশোধনের জন্য দু’মাস সময় চেয়েছে। এই সময়ের মধ্যে নোবেল সংশোধন হলে একসাথে আবার সংসার হবে। কিন্তু এর মধ্যে নিজেকে শোধরাতে না পারলে ডিভোর্স কার্যকর হয়ে যাবে।’

তবে যে শুক্রবার রাতে ‘পাত্রীচাই’ বলে পোস্ট দিয়েছিলেন মাঈনুল আহসান নোবেল। এমন প্রশ্নের উত্তরে সালসাবিল বলেন, ‘এটা আমাতের দেখা হওয়ার আগে। এখন ওইসব পোস্ট সরিয়ে নিয়েছে নোবেল।’ তিনি আরও বলেন, ‘আমরা নিজেদের মধ্যে কথা না বলে অনলাইনে কাদা ছোড়াছুড়ি করছিলাম। এটা আসলে ঠিক হয়নি।’
এর আগে, গত সোমবার নোবেল ফেসবুকে জানান, ‌‌‘আমার এবং আমার স্ত্রীর মধ্যকার সকল বিবাদ পারিবারিকভাবে মীমাংসা করা হচ্ছে। বিগত কিছুদিনের কাদা ছোড়াছুড়ির জন্য বিনীতভাবে দুঃখিত। বিয়ে একটা পবিত্র প্রথা, অনুগ্রহ করে বেফাঁস মন্তব্য করে এর পবিত্রতা নষ্ট করবেন না।’

উল্লেখ্য, ভারতের জি বাংলার ‘সারেগামাপা’ রিয়েলিটি শো-তে গান গেয়ে দুই বাংলার পরিচিত মুখ হয়ে ওঠেন নোবেল। পরে সোশ্যাল মিডিয়ায় পরিচয়ের সূত্রে ২০১৯ সালের ১৫ নভেম্বর সালসাবিল মাহমুদকে বিয়ে করেন এই সঙ্গীতশিল্পী। তবে বিতর্কিত কাণ্ডের জেরে অনেক দিন ধরেই আলাদা থাকতেন এই দম্পতি।

- Advertisement - Visit the MDN site

Related Articles

- Advertisement - Visit the MDN site

Latest Articles