5.8 C
Toronto
মঙ্গলবার, ডিসেম্বর ৬, ২০২২

সিআইডির নজরে মরিয়ম মান্নানকে অনলাইনে ‘হেনস্তাকারীরা’

সিআইডির নজরে মরিয়ম মান্নানকে অনলাইনে ‘হেনস্তাকারীরা’

খুলনায় নিজ বাড়ি থেকে নিখোঁজ হওয়া রহিমা বেগমের সন্ধান চেয়ে নানা কর্মকাণ্ড করে আলোচনায় আসেন তার মেয়ে মরিয়ম মান্নান (৩২)। খুলনা, ঢাকাসহ দেশের নানা প্রান্তে ছুটে বেড়িয়েছেন এই তরুণী। ব্যাপক সক্রিয় ছিলেন ফেসবুকেও। সারা দেশের মানুষের সহমর্মিতাও পেয়েছিলেন।

- Advertisement -

ময়মনসিংহের ফুলপুরে পাওয়া অজ্ঞাতপরিচয় একটি মরদেহকে মায়ের মরদেহ বলে দাবি করে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেয়ার পর সারা দেশে তোলপাড় শুরু হয়। অত্যন্ত আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে তিনি এ দাবি করেন। কিন্তু এর একদিন পরই গতকাল শনিবার রাতে ফরিদপুরের বোয়ালমারীতে একটি গ্রাম থেকে রহিমা বেগমকে উদ্ধার করে পুলিশ।

আরও পড়ুন :: যথেষ্ট ভিডিও ফুটেজ আছে, প্রমাণের ভিত্তিতেই স্থায়ী বহিষ্কার: ইডেন ছাত্রলীগ প্রসঙ্গে লেখক

পুলিশ দাবি করছে, তিনি সেখানে এক পরিচিতের বাসায় স্বেচ্ছায় আত্মগোপনে ছিলেন। যদিও আদালতে দেয়া জবানবন্দিতে অপহৃত হওয়ার কথাই বলেছেন রহিমা বেগম। কিন্তু রহিমা বেগমকে উদ্ধারের খবর প্রকাশ হওয়ার পরই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মরিয়ম মান্নানকে ট্রল করছেন অনেকে। এতদিনের কর্মকাণ্ডকে অভিনয় বলেও দাবি করছেন অনেকে।

এরই মধ্যে মরিয়মের ব্যক্তিগত ছবি, ভিডিও ও বিভিন্ন সময়ে দেয়া স্ট্যাটাসের স্ক্রিনশট ফেসবুকে শেয়ার করা শুরু হয়েছে। এসব কনটেন্টের সঙ্গে আপত্তিকর মন্তব্যও করেছেন অনেকে। বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের ফেসবুক পেজের মন্তব্যের ঘরে, ভুয়া ফেসবুক গ্রুপ, আবার নিজের ওয়ালেও মরিয়ম মান্নানের নানা সময়ের এসব ছবি, ভিডিও ও স্ট্যাটাস শেয়ার করেছেন, সঙ্গে জুড়ে দিয়েছেন আপত্তিকর ক্যাপশন।

মরিয়ম মান্নানকে এভাবে সাইবার হেনস্তার বিষয়টি নজরে রাখছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) সাইবার ইন্টেলিজেন্স শাখা। সিআইডির বিশেষ পুলিশ সুপার রেজাউল মাসুদ জানানা, যারা এই ধরনের কাজ করছে বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তাদের সব পোস্ট, মন্তব্য এবং নানা কার্যক্রম একত্রীকরণ (কম্পাইল) করা হচ্ছে। এই ধরনের কর্মকাণ্ডকে আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ।

সূত্র : রিদ্মিক নিউজ

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles