12.7 C
Toronto
বুধবার, সেপ্টেম্বর ২৮, ২০২২

ড. কামালকে গণফোরাম থেকে অব্যাহতি দিলেন মন্টু-সুব্রত

- Advertisement -

ড. কামালকে দলের প্রধান উপদেষ্টার পদ থেকে অব্যাহতি দিল মোস্তফা মন্টু ও সুব্রত চৌধুরীর নেতৃত্বাধীন গণফোরাম। এছাড়া মো. মিজানুর রহমানকে সভাপতি পরিষদের সদস্য পদসহ দলের সাধারণ সদস্য পদ থেকেও বহিষ্কার ঘোষণা করেছেন তারা।

মঙ্গলবার জাতীয় প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে এই ঘোষণা দেওয়া হয়।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে সংগঠনের নির্বাহী সভাপতি অ্যাড. জগলুল হায়দার আফ্রিক বলেন, ‘গত ১৭ সেপ্টেম্বর জাতীয় প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে ড. কামাল হোসেন ও মো. মিজানুর রহমান ঘোষিত কমিটি সম্পূর্ণ গঠনতন্ত্র পরিপন্থী ও অগণতান্ত্রিক।’

তিনি বলেন, ‘গণফোরামের অচলাবস্থা নিরসনে এবং দেশব্যাপী সুসংগঠিত করার লক্ষ্যে গত বছরের ৩ ডিসেম্বর ঢাকাস্থ ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে ড. কামাল হোসেনের অনুমতি ও সমর্থন নিয়ে অত্যন্ত সফলভাবে গণফোরামের ষষ্ঠ জাতীয় কাউন্সিল অধিবেশন অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে এক হাজার কাউন্সিলরের সক্রিয় অংশগ্রহণে সর্বসম্মতিক্রমে গণফোরামের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মোহসীন মন্টুকে সভাপতি ও সাবেক নির্বাহী সভাপতি সিনিয়র অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরীকে সাধারণ সম্পাদক করে ১৫৭ সদস্য বিশিষ্ট গণফোরাম কেন্দ্রীয় কমিটি সর্বসম্মতিক্রমে নির্বাচিত হয়।’

আরও পড়ুন :: টাকা-রুপিতে বাংলাদেশের সাথে বাণিজ্য করবে ভারত

তিনি অভিযোগ করে বলেন, ‘আমরা গভীর উদ্বেগ ও বিস্ময়ের সঙ্গে দেখলাম যে, গত ১৭ নভেম্বর জাতীয় প্রেসক্লাবে গণফোরামের সঙ্গে দীর্ঘ দিন সম্পর্কহীন, দল থেকে পদত্যাগকারী, বিভেদ সৃষ্টিকারী ও নিষ্ক্রিয় কিছু ব্যক্তি নিয়ে গণফোরাম নাম দিয়ে ড. কামাল হোসেনকে সভাপতি ও মো. মিজানুর রহমানকে সাধারণ সম্পাদক করে ১০১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি ঘোষণা করা হয়। কিন্তু তারা কেউই গণফোরামের নির্বাচিত কমিটি থেকে পদত্যাগ না করে স্বঘোষিত একটি গঠনতন্ত্র পরিপন্থী দল গঠন করেন।’

জগলুল হায়দার আফ্রিক বলেন, ‘এমতাবস্থায় সোমবার অনুষ্ঠিত গণফোরামের কেন্দ্রীয় কমিটির সভায় সর্বসম্মতিক্রমে ড. কামাল হোসেনকে দলের প্রধান উপদেষ্টার পদ থেকে অব্যহতি দেওয়া হলো। মো. মিজানুর রহমানকে সভাপতি পরিষদের সদস্য পদসহ দলের সাধারণ সদস্য পদ থেকেও বহিষ্কার করা হলো।’

সংবাদ সম্মেলনে গণফোরাম একাংশের সভাপতি মোস্তফা মোহসীন মন্টু বলেন, ‘আমরা নতুনদের নিয়ে জাতীয় পর্যায়ে একটা পরিবর্তন কামনা করি। সেই পরিবর্তন হলো একটা সুস্থ রাজনীতির বিকাশ। যেটার জন্য গণফোরামের জন্ম হয়েছিল। আজকে আমরা অবাধ সুষ্ঠু নির্বাচনের লক্ষ্যে একটি নিরেপক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন করব। এখান থেকে সরে আসার কোনো সম্ভাবনা নেই এবং আমাদের পথও খোলা নেই।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমরা এর থেকে বিচ্যুত হবো না। আমাদের সামনে যেই ব্যক্তিই আসুক না কেন। তিনি যত শ্রদ্ধেয় বা সমাদ্রিত ব্যক্তিই হোক না কেন। আমরা জনগণের আকাঙ্ক্ষার সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা করে তাদের সঙ্গে আপস করব না।’

এ সময় সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের নির্বাহী সভাপতি অধ্যাপক ড. আবু সাইদ, মহিউদ্দিন আ. কাদের, অধ্যাপক হাফিজ চৌধুরী ও সিদ্দিকুর রহমান প্রমুখ।

সূত্র : ঢাকাটাইমস

Related Articles

Latest Articles