12.7 C
Toronto
বুধবার, সেপ্টেম্বর ২৮, ২০২২

দেড় যুগ শিক্ষকতা করেও মিলছে না পদোন্নতি!

- Advertisement -

টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজের (টিএসসি) শিক্ষকরা দেড় যুগের বেশি সময় ধরে শিক্ষকতা করছেন। নিজ দায়িত্বের তিন থেকে চার গুণ অতিরিক্ত দায়িত্বও পালন করতে হচ্ছে।

তাদের পদোন্নতি দেওয়া হলেও এখনকার বেতনের চেয়ে বেশি হবে না। তারপরও এ শিক্ষকদের পদোন্নতি দেওয়া হচ্ছে না। উল্টো ওপরের পদে নতুন কর্মকর্তা নিয়োগের প্রক্রিয়া চলছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এর প্রতিবাদে শুক্রবার (৯ সেপ্টেম্বর) রাজশাহীতে প্রতিবাদ সমাবেশ করেছেন শিক্ষকরা।
এদিন দুপুরে রাজশাহী মহানগরের সাহেববাজার জিরোপয়েন্টে এ কর্মসূচির আয়োজন করে বাংলাদেশ টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজ শিক্ষক সমিতির রাজশাহী বিভাগীয় শাখা। সমাবেশ থেকে কারিগরি ও বৃত্তিমূলক শিক্ষার মানোন্নয়ন ও সম্প্রসারণের লক্ষ্যে প্রতিষ্ঠিত টিএসসির শিক্ষকদের পদোন্নতি না দিয়ে চলমান নিয়োগ প্রক্রিয়ার বিরুদ্ধে তীব্র প্রতিবাদ জানানো হয়।

সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন সমিতির বিভাগীয় আহ্বায়ক তারিকুল হাকিম। পরিচালনায় করেন কেন্দ্রীয় কমিটির জ্যেষ্ঠ সহ-সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার মো. শামসুল হক।

সমাবেশে জানানো হয়, দেশে ৬৪টি টিএসসি আছে। পদোন্নতিবঞ্চিত শিক্ষকের সংখ্যা প্রায় ৯০০। এরমধ্যে রাজশাহী বিভাগের ছয়টি প্রতিষ্ঠানের প্রায় ২০০ শিক্ষক আছেন। এখন আবার প্রত্যেক উপজেলায় একটি করে টিএসসি হচ্ছে। কিন্তু পুরনো শিক্ষকদের পদোন্নতি দেওয়া হচ্ছে না।

বক্তারা বলেন, ২০০৪ সালের পর থেকে কোনো শিক্ষক নিয়োগ না হওয়ায় এখনকার কর্মরত শিক্ষকরা তিন থেকে চার গুণ বেশি দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন। নিয়মিত কোর্স প্রথম ও দ্বিতীয় শিফটের নবম, দশম, একাদশ ও দ্বাদশ শ্রেণির সঙ্গে অতিরিক্ত কোর্স হিসেবে ২০১৭ সাল থেকে ২০২০ সাল পর্যন্ত বিনা পারিশ্রমিকে চার বছর মেয়াদি ডিপ্লোমা ইন ইঞ্জিনিয়ারিং কোর্স সফলতার সঙ্গে পরিচালনা করেছেন তারা।

বর্তমানে নিয়মিত কোর্সের সঙ্গে ষষ্ঠ, সপ্তম, অষ্টম ও বিএমটি একাদশ শ্রেণি অতিরিক্ত কোর্স হিসেবে পরিচালনা করছেন তারা।

সরকার ২০২১ সালে ৬৪টি টিএসসির অনুকূলে ২ হাজার ৬৯৫টি পদ এবং ১০০টি টিএসসির জন্য ৬ হাজার ৪০০টি নতুন পদ রাজস্ব খাতে সৃষ্টি করলেও দুঃখের বিষয়, দীর্ঘ ১৮ বছর রাজস্ব খাতের চাকরি করেও শিক্ষকদের পদোন্নতি দেওয়া হচ্ছে না। অথচ নিয়োগ বিধি-২০২০ এবং সরকারি চাকরি আইনের বিধি ৮ (১) অনুযায়ী পদোন্নতির সব শর্ত তাদের পূরণ হয়েছে। দেশ-বিদেশে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত দক্ষ শিক্ষকদের পদোন্নতি দেওয়া হচ্ছে না।

তারা দাবি করেন, পুরনো শিক্ষকদের পদোন্নতির আগ পর্যন্ত সব প্রকার নিয়োগ বন্ধ রাখতে হবে। বিসিএস থেকে নিয়োগের আগে ১৮ থেকে ২৩ বছরের অভিজ্ঞ কর্মরত শিক্ষকদের পদোন্নতি, টাইম স্কেল ও সিলেকশন গ্রেড দিতে হবে। এ জন্য তারা রাস্তায় দাঁড়িয়েছেন। দাবি আদায় না হলে আগামীতে আরও কঠোর কর্মসূচি দেওয়া হবে বলে তারা ঘোষণা দেন।

কর্মসূচিতে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন- শিক্ষক রাশেদুল আলম, মো. খালেদুজ্জামান, জহুরুল ইসলাম, জিয়াউল ইসলাম, আম্বিয়া খাতুন, ইউসুফ আলী প্রমুখ। সমাবেশে রাজশাহী বিভাগীয় কর্মসূচি বাস্তবায়ন কমিটির সদস্য ও বিভাগীয় বিভিন্ন টিএসসির শিক্ষকরা অংশ নেন।

সূত্র: বাংলানিউজ

Related Articles

Latest Articles