16.2 C
Toronto
রবিবার, জুন ১৬, ২০২৪

সন্দেহবাতিকতার চরম পরিণতি, স্ত্রীর গোপনাঙ্গে মরিচগুড়া ঢাললো স্বামী

সন্দেহবাতিকতার চরম পরিণতি, স্ত্রীর গোপনাঙ্গে মরিচগুড়া ঢাললো স্বামী
প্রতীকী ছবি

সন্দেহের বশে স্ত্রীর ওপর নির্যাতন কোনও নতুন ঘটনা নয়। তবে ভারতের মালদহের মানিকচকের সতীশ মণ্ডল যা করলেন তা এক নতুন নজির। স্ত্রী পরকিয়ায় লিপ্ত, এই সন্দেহে তার গোপনাঙ্গে মরিচের গুড়া ঢাললেন তিনি। স্বামীর বিরুদ্ধে পুলিশে অভিযোগ দায়ের করেছেন স্ত্রী। অভিযুক্ত স্বামী পলাতক বলে দাবি পুলিশের।

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, ১৫ বছর আগে মানিকচকের নাজিরপুরের বেগমগঞ্জের বাসিন্দা সতীশের বিয়ে হয়। তাদের ১ ছেলে ও ১ মেয়ে রয়েছে। তাদের বয়স ১৩ বছর ও ৮ বছর। বিয়ের পর থেকেই স্ত্রীকে সন্দেহ করতেন সতীশ। এই নিয়ে চলত নিত্য অশান্তি। স্ত্রীকে মারধর করতেন সতীশ। ছেলে-মেয়েরা মাকে বাঁচাতে এলে তাদেরও ছাড়তেন না তিনি। এমনকি সতীশের পরিবারের অন্য সদস্যরাও তার হাতে মার খেয়েছেন।

- Advertisement -

পরিবারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, গত শুক্রবার রাত ১১টা নাগাদ বাড়ি ফিরে স্ত্রীকে মারধর শুরু করেন সতীশ। স্ত্রীর গলা টিপে ধরেন তিনি। কোনওক্রমে সুজাতা তার হাত থেকে বাঁচার চেষ্টা করলে স্ত্রীর গোপনাঙ্গে মরিচ গুড়া ঢুকিয়ে দেন সতীশ। বধূর চিৎকারে ছুটে আসেন প্রতিবেশীরা। তারাই বধূকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসার পর থানায় যান বধূ। সেখানে স্বামীর বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন।

মানিকচক থানার আইসি পার্থসারথি হালদার বলেন, ‘নির্যাতিত বধূ স্বামীর বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। অভিযুক্ত পলাতক। খোঁজ খবর চলছে। দ্রুত তাকে গ্রেপ্তার করা হবে’।

মনোবিজ্ঞানীরা বলছেন, সন্দেহ একরকমের মানসিক রোগ। নানা কারণে এই রোগ দেখা দিতে পারে। চিকিৎসা ও উপযুক্ত কাউন্সিলিংয়ের মাধ্যমে তা অনেকটাই সারিয়ে তোলা যায়। কিন্তু এব্যাপারে সচেতনতার অভাব ও লোকলজ্জার ভয়ে প্রায় কেউই সেই পথ মাড়ান না।

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles