4.2 C
Toronto
শনিবার, অক্টোবর ২৩, ২০২১

কানাডার আবাসন বাজার নিয়ন্ত্রণের দাবি

ছবি/ ট্রাব

কানাডায় জানুয়ারিতে বাড়ির দাম বেড়েছে গড়ে ২২ দশমিক ৮ শতাংশ, যা রেকর্ড। মধ্যস্থতাকারীরা বলছেন, টরন্টো ও ভ্যানকুভারে সর্বশেষ আবাসন বাজারে যে বুদ্বুদ তৈরি হয়েছিল এখন সেই আভাষ পাওয়া যাচ্ছে। ওই সময় প্রতি মাসেই বাড়ির দাম গড়ে ৬ শতাংশ করে বেড়েছিল। কানাডার তেজি আবাসন বাজারে যেন হঠাৎ বিস্ফোরণ ঘটেছে। এ অবস্থায় বাজারটি নিয়ন্ত্রণের দাবি উঠেছে। তবে নীতিনির্ধারকরা এ ব্যাপারে হস্তক্ষেপ করতে রাজি নন। কোভিড-১৯ মহামারি থেকে কানাডার ভঙ্গুর অর্থনীতির ঘুরে দাঁড়ানো বিঘ্নিত হতে পারে, এ আশঙ্কায় হাত গুটিয়ে আছেন তারা।

ন্যাশনাল ব্যাংক অব কানাডার তথ্যমতে, আবাসন ঋণ রেকর্ড পরিমাণে বেড়েছে। ঝুঁকিপূর্ণ হায়ার-রেশিও (বাড়ির চেয়ে ঋণের পরিমাণ বেশি) ঋণ নতুন অবীমাকৃত ঋণের ২৩ শতাংশে পৌঁছেছে। ২০১৭ সালের বুদ্বুদের চেয়েও এ হার বেশি। ছোট শহরগুলোর বাড়ির এ উড়ন্ত দাম থেমে গেলে উদ্বৃত্ত বাড়িতে ছেঁয়ে যাবে সেগুলো। ভ্যানকুভারের এজেন্ট ও বিশ্লেষক স্টিভ সারেটস্কি বলেন, মনে হচ্ছে নীতি নির্ধারকরা আবাসন বাজারের এ বুদ্বুদে বাতাস দিচ্ছেন। উচ্চ বেকারত্বের মধ্যেও বাড়ি ক্রয়ে ২০ শতাংশ বেশি ব্যয় করতে হচ্ছে। নিশ্চিতভাবেই এটা সুস্থ বাজার নয়।

রিয়েল এস্টেট এজেন্টরা বলছেন, ব্যবহারকারীদের ক্রয় প্রবণতার ওপর ভর করে বিক্রি বাড়ার পর বিনিয়োগকারীরা এখন আবাসন বাজারের গতিবিধি নির্ধারণের অন্যতম নিয়ামক হয়ে দাঁড়িয়েছেন। কম সময়ে মুনাফা তুলে নেওয়ার প্রবণতা বেড়েছে তাদের মধ্যে।

আবাসন বাজারে অতিরিক্ত তেজিভাবের লক্ষণ দেখা যাচ্চে বলে গত ফেব্রুয়ারিতে স্বীকার করেন ব্যাংক অব কানাডার গভর্নর টিফ ম্যাকক্লেম। তবে এজন্য কোনো পদক্ষেপ গ্রহণের প্রয়োজন আছে বলে মনে করেন না তিনি। টিফ ম্যাকক্লেম বলেন, অর্থনীতি এখনও দুর্বল এবং সবেমাত্র আমরা সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউ কাটিয়ে উঠলাম। আমার মনে হয়, আমাদের সহায়তা প্রয়োজন। আমাদের প্রবৃদ্ধি দরকার।

- Advertisement - Visit the MDN site

Related Articles

- Advertisement - Visit the MDN site

Latest Articles