4.4 C
Toronto
বৃহস্পতিবার, ডিসেম্বর ৮, ২০২২

গম রফতানি বন্ধ করল ভারত: বাংলাদেশসহ বিশ্ববাজারে নতুন আশঙ্কা

গম রফতানি বন্ধ করল ভারত: বাংলাদেশসহ বিশ্ববাজারে নতুন আশঙ্কা - the Bengali Times

আজ থেকে গম রফতানির ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে ভারত সরকার। বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, শনিবার (১৪ মে) থেকে এই সিদ্ধান্ত কার্যকর করছে ভারত। রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধকে পুঁজি করে বিশ্ববাজারে একমাত্র বড় গম রফতানিকারক হতে চেয়েছিল ভারত। এই লক্ষ্যে বিভিন্নরকম উদ্যোগ নিয়েছিল তারা। রফতানি লক্ষ্য পূরণে ভারত ‘গম কূটনীতি’ শুরু করে। গত সপ্তাহ অবধি সব ঠিকঠাক ছিল।

- Advertisement -

কিন্তু গত দুইদিন স্থানীয় পর্যায়ে গমের দাম রেকর্ড মাত্রায় বৃদ্ধি পাওয়ায় রফতানি সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসে ভারত। চলতি বছরের মার্চ মাসের মাঝামাঝি সময়ে সমগ্র ভারতে তীব্র দাবদাহ সৃষ্টি হয়। এতে করে গমের উৎপাদন অনেকাংশে কমে যায়।

বিশ্ববাজারে কেমন প্রভাব পড়বে?
বর্তমানে ভারতের বাজারে প্রতি টন গমের দাম ২৫ হাজার রুপি পর্যন্ত পৌঁছেছে, যেখানে সরকার নির্ধারিত ন্যূনতম মূল্য ২০ হাজার ১৫০ রুপি। গত এপ্রিলে গমের দাম ৬ দশমিক ৯৫ শতাংশ বেড়েছিল দেশটিতে। অন্যদিকে, রাশিয়া ও ইউক্রেন ছিল বিশ্বের অন্যতম বৃহৎ দুই গম রফতানিকারক দেশ। বর্তমানে নিষেধাজ্ঞার কারণে রাশিয়া এবং যুদ্ধের কারণে ইউক্রেন গম রফতানি করতে পারছে না।

তাই গমের বৈশ্বিক বাজারে নিয়ন্ত্রণ নিতে ভারত সরকার মরক্কো, তিউনিসিয়া, ইন্দোনেশিয়া, ফিলিপাইন, থাইল্যান্ড, ভিয়েতনাম, তুরস্ক, আলজেরিয়া ও লেবাননে বাণিজ্য প্রতিনিধি দল পাঠাবে বলে জানিয়েছিল গত বৃহস্পতিবার। চলতি বছর ৪৪ মিলিয়ন টন উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা থাকলেও তা বর্তমানে ১৯.৫ মিলিয়ন টনে নেমেছে। এই অবস্থায় গম রফতানি বন্ধ করা ব্যতীত ভারতের অন্য কোনো উপায় ছিল না।

যদিও সপ্তাহখানেক আগে ভারতের খাদ্য সচিব সুধাংশু পান্ডে হিন্দুস্তান টাইমসকে বলেছিলেন, ‘দেশে যথেষ্ট গমের মজুদ রয়েছে। রফতানি বন্ধ হওয়ার কোনো প্রকার সম্ভাবনা নেই।’ ভারতের এই সিদ্ধান্তে ক্ষতিগ্রস্ত হবে ভারতীয় গমের ওপর অধিক নির্ভরশীল দেশ সমূহ। বাংলাদেশ অন্যতম বড় ক্রেতা। তাই আশঙ্কা করা হচ্ছে দেশের বাজারে দাম বাড়বে গম থেকে প্রস্তুতকৃত পণ্যদ্রব্যের।

- Advertisement -

Related Articles

Latest Articles