19.8 C
Toronto
শনিবার, মে ২৮, ২০২২

৪৫ বছর পর মায়ের কাছে কুলসুম

- Advertisement -

৪৫ বছর পর মায়ের কাছে কুলসুম - The Bengali Times

‘মা’ একটি ছোট্ট শব্দ। এই শব্দের মধ্যেই লুকিয়ে আছে পৃথিবীর সব মায়া, মমতা, অকৃত্রিম স্নেহ, আদর, নিঃস্বার্থ ভালোবাসার সব সুখের কথা। চাওয়া-পাওয়ার এই পৃথিবীতে বাবা-মায়ের ভালোবাসার সঙ্গে কোনো কিছুর তুলনা চলে না। মায়ের তুলনা মা নিজেই। কিন্তু ৪৫ বছর আগে সেই মায়ের কাছ থেকেই আলাদা হয়ে যান কুলসুম নামের এক নারী। ১৯৭৭ সালে মাত্র ৫ বছর বয়সী কুলসুমকে এক সুইস দম্পতি দত্তক নেন। তারপর তার নাম হয়ে যায় ম্যারিও সিমো ভ্যামৌ। তাদের সঙ্গে বিদেশে পাড়ি জমান তিনি। অবশেষে ৪৫ বছর পর কুলসুম আপন আঙিনায়।

- Advertisement -

শুক্রবার সুইজারল্যান্ড থেকে রাজধানীর মোহাম্মদপুর শেখেরটেকে নিজ বাড়িতে ফিরেছেন কুলসুম। মা, ভাই, ভাতিজিদের কাছে ফিরে আবেগে আপ্লুত কুলসুম। সঙ্গে এসেছেন কুলসুমের স্বামী আন্দ্রে সিমন ভারমুট। এসময় মাকে পেয়ে কান্নায় ভেঙে পড়েন কুলসুম। ক্ষণে ক্ষণে তিনি মাকে জড়িয়ে ধরে চুমু দেন।

কুলসুমকে ফিরে পেয়ে তাও মাও আবেগে আপ্লুত হয়ে পড়েছেন। তিনি বলেন, ‘আমার মাইয়ারে আমি পাইছি। আমি অনেক খুশি হইছি। অনেক খুশি হইছি আমি।’

কুলসুম তার পরিবারকে ফিরে পেয়েছেন ফ্রিল্যান্স সাংবাদিক মুনজুরুল করিমের সহায়তায়। এ বিষয়ে মুনজুরুল করিম বলেন, ‘শুরু থেকে সবাই বলেছিলেন, এটা সম্ভব না। হবে না। কিন্তু সিটিজেন জার্নালিজম বা ফ্রিল্যান্স জার্নালিজমের কল্যাণে এটা সম্ভব হয়েছে।’

কুলসুমের স্বামী আন্দ্রে সিমন ভারমুট সাংবাদিকদের বলেন, ‘কুলসুম যখন তার পরিবারের কাছ থেকে আলাদা হয়ে যায় তাখন বাংলাদেশ বেশ সংগ্রামের মধ্য দিয়ে যাচ্ছিল। ক্ষুধা, দারিদ্র্য ও বড় পরিবারের কারণে কুলসুমকে এক সুইস দম্পতি দত্তক নেন। সেখান থেকে দীর্ঘ ৪৫ বছর কুলসুম তার পরিবার ছাড়া দূরে। এখন সে এবং আমি তার পরিবারের কাছে আসতে পেরে খুশি।’

- Advertisement -

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles