16.8 C
Toronto
মঙ্গলবার, মে ২৪, ২০২২

দেড় ঘণ্টায় সবচেয়ে বড় তরঙ্গ নিলাম, আয় ১০ হাজার ৬৪৬ কোটি টাকা

- Advertisement -
দেড় ঘণ্টায় সবচেয়ে বড় তরঙ্গ নিলাম, আয় ১০ হাজার ৬৪৬ কোটি টাকা - The Bengali Times

টেলিকম সেবায় দেশের ইতিহাসে সবচেয়ে বড় তরঙ্গ নিলাম শেষ হয়েছে মাত্র দেড় ঘণ্টায়।

টেলিকম সেবায় দেশের ইতিহাসে সবচেয়ে বড় তরঙ্গ নিলাম শেষ হয়েছে মাত্র দেড় ঘণ্টায়। যেখানে সাড়ে ১০ হাজার ৬৪৬ কোটি টাকায় ১৯০ মেগাহার্টজ তরঙ্গ কিনেছে চার মোবাইল অপারেটর। অবিক্রিত রয়েছে আরও ৩০ মেগাহার্টজ তরঙ্গ। মোবাইল অপারেটররা বলছে, বিপুল পরিমাণ তরঙ্গ কিনলেও এখনই কমছে না গ্রাহক ভোগান্তি। নতুন তরঙ্গ নেটওয়ার্কে যুক্ত করতে সময় লাগবে অন্তত ৯ মাস। এতে কাঙ্ক্ষিত সেবা পেতে গ্রাহকদের অপেক্ষা করতে হবে আগামী বছর পর্যন্ত।

বৃহস্পতিবার (৩১ মার্চ) দুপুরে আনুষ্ঠানিকভাবে রাজধানীর হোটেল ইন্টার কন্টিনেন্টালে শুরু হয় মোবাইল অপারেটরদের তরঙ্গ নিলাম ‘যুদ্ধ’। প্রায় ৫২ কোটি টাকা ভিত্তিমূল্যে ২৩শ’ ও ২৬শ’ মেগাহার্টজ ব্যান্ড ২২০ মেগাহার্টজ তরঙ্গ নিলামের জন্য তোলা হয়।

- Advertisement -

নিলামের প্রথম রাউন্ডে ৬ মিলিয়ন ডলার ভিত্তিমূল্যে তরঙ্গ কিনতে নিলামে অংশ নেয় চার অপারেটর। তবে প্রতি মেগাহার্টজ তরঙ্গ ৬ দশমিক পাঁচ শূন্য মিলিয়ন ডলারের বেশি দাম দিয়ে কিনতে রাজি হয়নি কোনো অপারেটরই। অবশেষে সেই দামেই জিপি, রবি, বাংলালিংককে পেছনে ফেলে প্রথম অপারেটর হিসেবে ২ হাজার ৩০০ মেগাহার্টজ ব্যান্ডে তিনটি ব্লকে ৩০ মেগাহার্টজ তরঙ্গ কিনে নেয় টেলিটক।

একই ব্যান্ডে ৪০ মেগাহার্টজ তরঙ্গ নেয় বাংলালিংক। এরপর ২ হাজার ৬০০ মেগাহার্টজ ব্যান্ডে ৬ ব্লকে ৬০ মেগাহার্টজ রবি এবং একই ব্যান্ডে ৬০ মেগাহার্টজ তরঙ্গ কেনে গ্রামীণফোন।

নতুন কেনা তরঙ্গ মিলিয়ে বাংলালিংকের তরঙ্গের পরিমাণ দাঁড়াল ৮০ মেগাহার্টজে; গ্রামীণফোন ১০৭ দশমিক ৪ মেগাহার্টজ; রবি ১০৪ মেগাহার্টজ; টেলিটক ৫৫ দশমিক ২ মেগাহার্টজ।

নিলাম পরিচালনা করে টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসি। নিলাম অনুষ্ঠানে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার, বিভাগের সচিব মো. খলিলুর রহমান, বিটিআরসির চেয়ারম্যান শ্যাম সুন্দর সিকদার প্রমুখ অংশ নেন। নিলাম অনুষ্ঠান শেষে সংবাদ সম্মেলনে বিটিআরসির চেয়ারম্যান শ্যাম সুন্দর সিকদার অপারেটরদের মানসম্মত সেবাদানের আহ্বান জানিয়ে বলেন, এখন আর অপারেটরদের তরঙ্গের কোনো ঘাটতি থাকবে না।

এবারের নিলাম সফল হয়েছে দাবি করে তিনি বলেন, ২২০ মেগাহার্টজের মধ্যে ১৯০ মেগাহার্টজ বিক্রি হয়েছে। ৩০ মেগাহার্টজ আমাদের হাতে থেকে গেছে। আমরা ৮৬ শতাংশ বিক্রি করতে সক্ষম হয়েছি।

এদিকে মোবাইল অপারেটররা বলছে, তরঙ্গ কেনা হলেও তা নেটওয়ার্কে যুক্ত করতে অন্তত ৯ মাস লাগবে। রবির চিফ করপোরেট অ্যান্ড রেগুলেটরি অ্যাফেয়ার্স অফিসার সাহেদ আলম জানান, আগামী বছরের শুরুর দিকে নতুন কেনা তরঙ্গের সুফল পাবেন রবি গ্রাহকরা।

নিলাম শেষে সংবাদ সম্মেলনে ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী বলেন, ‘ছয়টি ব্লকের বেশি বেতার তরঙ্গ না নেওয়ার বাধ্যবাধকতার কারণে গ্রামীণফোন ও রবি অবিক্রিত ব্লকগুলো নিতে পারেনি। আমি তাদের হয়ে বিটিআরসিকে বলব, এই তরঙ্গগুলো তারা যদি নিতে চায়, তাহলে তাদের যেন একই দামে সেগুলো দিয়ে দেওয়া হয়। কেননা আমাদের লক্ষ্য হল মোবাইল অপারেটরগুলোর সেবার মান নিশ্চিত করা। তারা যেন জনসাধারণকে সর্বোচ্চ সেবা দিতে পারে। তাই এদিকে ফাইভজির বাণিজ্যিক সম্প্রসারণের জন্য পরবর্তীতে নতুন করে ফাইভজি তরঙ্গ নিলামের আয়োজন করা হবে।’

তরঙ্গের মোট ক্রয়মূল্যের ১০ শতাংশ নিলামের চূড়ান্ত ফল ঘোষণার ৬০ দিনের মধ্যে পরিশোধ করতে হবে এবং বাকি ৯০ শতাংশ ৯ বছরে সমান কিস্তিতে পরিশোধ করতে পারবে অপারেটররা।

‘স্পেক্ট্রাম অকশন-২০২২’ শীর্ষক নিলামে প্রতি মেগাহার্টজ তরঙ্গের ভিত্তিমূল্য ধরা হয় ১৫ বছরের জন্য ছয় মিলিয়ন ডলার। এবারের নিলামের জন্য ২ দশমিক ৩ এবং ২ দশমিক ৬ গিগাহার্টজ ব্যান্ড নির্ধারণ করা হয়। নিলাম অনুষ্ঠিত হয় ১৮ ব্লকে। প্রতি ব্লকে ছিল ১০ মেগাহার্টজ করে তরঙ্গ। ২২০ মেগাহার্টজ তরঙ্গ নিলামের জন্য ছিল। এর মধ্যে ১৯০ মেগাহার্টজ তরঙ্গ নিলামে বিক্রি হয়।

বর্তমানে দেশে ফোরজি সেবা চালু আছে। ফাইভজি চালু হলে ইন্টারনেটের গতি কয়েক গুণ বেড়ে যাবে। এর আগে গত ১২ ডিসেম্বর রাষ্ট্রায়ত্ত মোবাইল অপারেটর টেলিটকের মাধ্যমে দেশে পরীক্ষামূলকভাবে ফাইভজি সেবা চালু হয়।

- Advertisement -

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles