শনিবার | ১৯ জুন ২০২১ | টরন্টো | কানাডা |

Breaking News:

  • ইসলামোফোবিয়া বন্ধের পরিকল্পনা প্রণয়নের দাবি
  • গ্রীষ্মের শুরুতে কানাডার অর্থনীতি ঘুরে দাঁড়ানোর প্রত্যাশা
ফাইল ছবি

কানাডা রেভিনিউ এজেন্সি জানিয়েছে, সুনির্দিষ্ট কিছু শর্ত পূরণ হলে আত্মকর্মসংস্থানে নিয়োজিত ৩০ হাজার জনকে গত বছর নেওয়া সিইআরবির অর্থ ফেরত দিতে হবে না। ৫ হাজার ডলারের নিচে আয় এবং ২০১৯ ও ২০২০ সালে আয়কর বিবরণী দাখিল করেছেন অথবা সহায়তার জন্য আবেদনের আগের ১২ মাসে যাদের ৫ হাজার ডলার বা তার বেশি আয় ছিল, আত্মকর্মসংস্থানে নিয়োজিত এমন ব্যক্তিরা এর আওতায় পড়বেন।

কানাডা ইমার্জেন্সি রেসপন্স বেনিফিট (সিইআরবি) কর্মসূচি শুরু করার পর সরকার যেসব মানদন্ড নির্ধারণ করেছিল সেগুলোও পূরণ করতে হবে এক্ষেত্রে। মহামারির প্রথম ছয় মাসে যাদের আয় কমে গিয়েছিল তাদেরকে সপ্তাহে ৫০০ ডলার করে দিয়েছিল সরকার।

কানাডা রেভিনিউ এজেন্সির হিসাব বলছে, শর্ত পূরণ হওয়ায় ৩০ হাজার জনকে সিইআরবির অর্থ ফেরত দিতে হবে না। সব মিলিয়ে এ অর্থের পরিমাণ ২৪ কোটি ডলার বা জনপ্রতি গড়ে ৮ হাজার ডলার। সরকারের এ হিসাবের মধ্যে জনপ্রতি ৬ হাজার ৫০০ ডলার বা ৫ কোটি ২০ লাখ ডলারও আছে। গত বছর ফেরত দেওয়া ৬ হাজার ৫০০ জনের ৫ কোটি ২০ লাখ ডলারও আছে। সহায়তা পাওয়ার অযোগ্য বিবেচনায় এই পরিমাণ অর্থ গত বছর রেভিনিউ এজেন্সিকে ফেরত দিয়েছিলেন গ্রহীতারা। এই অর্থ ফেরত পেতে এখন আবেদন করা যাবে এবং জুনের মাঝামাঝি নাগাদ এই অর্থ তাদেরকে ফেরত দেওয়া হবে।

দ্য কানাডিয়ান প্রেসের খবর অনুযায়ী, সিইআরবির অর্থ পেতে আবেদনের আগের ১২ মাসে কমপক্ষে ৫ হাজার ডলার আয়ের শর্ত ছিল। কানাডা রেভিনিউ প্রথাগত কর্মীদের ক্ষেত্রে একে মোট আয় ও আত্মকর্মসংস্থানে নিয়োজিতদের ক্ষেত্রে নিট আয় হিসেবে উল্লেখ করেছিল। এসব শর্ত পূরণ হয়েছে কিনা তা খতিয়ে দেখতে কানাডা রেভিনিউ এজেন্সি গত বছর সিইআরবির অধীনে সহায়তা প্রাপ্তদের নামে ৪ লাখ ৪১ হাজারের বেশি চিঠি ইস্যু করে।


[email protected] Weekly Bengali Times

-->