শুক্রবার | ২৩ এপ্রিল ২০২১ | টরন্টো | কানাডা |

Breaking News:

  • নতুন ভ্যারিয়েন্ট কানাডাকে আবৃত করে ফেলতে যাচ্ছে : ট্রুডো
  • ভ্যাকসিনেশনের গতি বাড়াতে প্রয়োজন নিরবচ্ছিন্ন সরবরাহ : ডগ ফোর্ড
আমার বিকাশমান ভূড়ি সমাচার

: ২৬ মার্চ ২০২১ | লুৎফর রহমান রিটন |

আমার মোটাত্বকে পরিহাস করে ক্যারিকেচারটি করেছিলো সুজন চৌধুরী নামের প্রীতিভাজন এক কুখ্যাত শিল্পী!

করোনাকালের বন্দি জীবনে দুইটা জিনিস অর্জিত হয়েছে আমার। এক--অনেকগুলো ছড়া-কবিতা আর কিছু স্মৃতিগদ্য। আর দুই--বিশাল একটা ভূড়ি। আমার মোটাত্ব নিয়ে কারো কারো খোটাত্ব শুনে অতীতে মাথা ঘামাইনি মোটেও। বরং এক ধরণের অহংকারই অনুভব করেছি গোপনে গোপনে। কারণ লেখকরা সাধারণত মোটা হয় না। ভূড়ি আমার পুরনো সম্পদ। কিন্তু সেটা যে আয়তনে এতোটা ব্যাপক হয়েছে সেটা টেরই পাইনি!


করোনাকাল এখনো শেষ হয়নি। তার ওপরে চিকিৎসকের পরামর্শে ৬সপ্তাহ শুয়ে বসে কাটিয়েছি। আর খানাখাদ্য সাঁটিয়েছি দেদারসে। বাইরে যাইনি একবারও। দেড় মাসেরও অধিক সময় পরে আজ বাইরে যাবার জন্যে, একটু ড্রাইভ করার জন্যে প্যান্ট-শার্টের ভেতরে নিজেকে চালান করতে গিয়ে টের পেলাম হয় এই শার্ট-প্যান্ট আমার নয় কিংবা এই ভূড়িটা আমার নয়। কী মুশকিল! বেল্টকেও এক ঘর এগিয়ে নিতেই হলো!


দোষ দেবো কাকে? অগত্যা ১০ বছর আগের লেখা নিজের একটা 'নিষ্পাপ ছড়া'ই পড়ে নিলাম ফের। আশা করছি কেউ আমার বিকাশমান ভূড়ি নিয়ে কটাক্ষ করতে আসবেন না! আয়না দেখুন। চারপাশে তাকান।

ছড়াটা উৎসর্গ করবো ভেবে দু'একটা নাম ভেবেছিলাম কিন্তু সাহস হলো না। তাই চেপে গেলাম। শেষে নিজেকেই উৎসর্গ করা গেলো!

ছড়াটা এরকম ছিলো--


মোটা কাহিনি

লুৎফর রহমান রিটন


সামান্য মোটা আমি, তাতে দাও খোঁটা!

আমাদের মামাদের

রাকাদের কাকাদের

রুপুদের ফুপুদের

জাদুদের দাদুদের

সামিদের মামীদের

রূপাদের ফুপাদের

কালুদের খালুদের

সাদীদের দাদীদের

হাসিদের মাসীদের

সাকীদের কাকীদের

পাঁচিদের চাচীদের

ছানাদের নানাদের

সানীদের নানীদের

চাঁপাদের আপাদের

হাঁদাদের দাদাদের

মালাদের খালাদের

---সকলেই মোটা!

তাজ্জব!! কারো চোখে পড়লো না ওটা!

সামান্য মোটা আমি, তাতে দাও খোঁটা!