শুক্রবার | ২৩ এপ্রিল ২০২১ | টরন্টো | কানাডা |

Breaking News:

  • নতুন ভ্যারিয়েন্ট কানাডাকে আবৃত করে ফেলতে যাচ্ছে : ট্রুডো
  • ভ্যাকসিনেশনের গতি বাড়াতে প্রয়োজন নিরবচ্ছিন্ন সরবরাহ : ডগ ফোর্ড
২০২০ সালের ফেব্রুয়ারি থেকে মে পর্যন্ত গৃহস্থ ব্যয়ের সিংহভাগ ছিল মুদি পণ্য..ছবি/চেঞ্জ অর্গ

২০২০ সালের বৈশ্বিক মহামারী হঠাৎ করেই সারা বিশ্বের সঙ্গে যেন কানাডিয়ানদের জীবনের গতিও থামিয়ে দিয়েছে। যদিও করোনা মহামারীর প্রারম্ভ থেকে শুরু করে আজ পর্যন্ত কানাডা সরকারের নাগরিকদের জনস্বাস্থ্যের ওপর এবং অর্থনৈতিক উন্নয়নের ব্যাপারে যে উদ্যোগ তা সারা বিশ্বে প্রশংসিত হলেও প্রকৃত অর্থে কানাডিয়ানদের জীবন যাত্রার ওপর পড়েছে ব্যাপক প্রভাব। পরিবর্তিত পরিস্থিতির সঙ্গে সঙ্গতি রেখে বদলে ফেলতে হয়েছে ব্যয়ের খাতও। মহামারির কারণে আরোপিত লকডাউনের ফলে অনেককেই আর্থিক দুর্দশায় পড়তে হয়েছে। তবে এমনও অনেকে আছেন, যারা যাতায়াত ও ছুটি কাটানোর জন্য বরাদ্দ অর্থ বেঁচে যাওয়ায় তা কোথায় খরচ করবেন সে সিদ্ধান্ত নিতে গলদ্ঘর্ম।

মোনেরিসের পরিচালক (করপোরেট ডেটা অ্যানালিস্ট) পিটার গোল্ডস্টাইন বলেন, এর আগে উল্লেখযোগ্য সংখ্যক কানাডিয়ান ভ্রমণ, ডাইনিং বা বিনোদন, বাড়ির শ্রী বৃদ্ধি বা আউটডোর বিনোদনের পেছনে ব্যয় করেছিলেন। কিন্তু মহামারির কারণে ভ্রমণ ও হসপিটালিটি শিল্পের ওপর বিধিনিষেধ আরোপ করায় ব্যয়ের ধরনে পরিবর্তন এসেছে।

মনেরিসের নতুন উপাত্ত অনুযায়ী, গত বছর সুইমিং পুলের বিক্রি বেড়েছে ৫১ শতাংশ। হোম সাপ্লাই ও ওয়্যারহাউজ ম্যাটেরিয়ালের বিক্রিও ৩১ শতাংশ বেড়েছে। একইভাবে বেড়েছে বাইসাইকেল কেনাবেচাও। গত বছর কানাডায় বাইসাইকেল ক্রয় বেড়েছে ২১ শতাংশ। মহামারির শুরুর দিকে অর্থাৎ ২০২০ সালের ফেব্রুয়ারি থেকে মে পর্যন্ত গৃহস্থ ব্যয়ের সিংহভাগ ছিল মুদি পণ্য, টয়লেট পেপার ও প্যান্ট্রি ক্রয় বাবদ। কারণ, ওই সময়টাতে রেস্তোরাঁ বন্ধ থাকায় অধিকাংশ কানাডিয়ানকে বাড়িতেই খাবারের বন্দোবস্ত করতে হয়েছিল।