রবিবার | ৭ মার্চ ২০২১ | টরন্টো | কানাডা |

Breaking News:

  • ৮ মার্চ টরন্টোর ওপর থেকে জনস্বাস্থ-সংক্রান্ত কিছু বিধিনিষেধ প্রত্যাহার হতে পারে
  • নকল এড়াতে ভ্যাকসিন সরবরাহ ব্যবস্থা সতর্কতার সঙ্গে দেখভাল করছে কানাডা
ছবি সংগৃহীত

গেলো বছরের তুলনায় এ বছরের জানুয়ারিতে কানাডায় বাড়ি বিক্রি বেড়েছে ৩৫.২ শতাংশ। যা গত বছরের জানুয়ারির তুলনায় এ মূল্য ২২ দশমিক ৮ শতাংশ বেশি। তবে মহামারীর দ্বিতীয় ধাপের বিস্তারের কারণে গত অক্টোবরের তুলনায় নভেম্বরে বাড়ি বিক্রি কমেছে ১ দশমিক ৬ শতাংশ। গত বছর কানাডায় ৫ লাখ ১১ হাজার ৪৪৯ টি বাড়ি বিক্রি হয়েছে। কিন্তু ২০২১ সালের জানুয়ারিতে তা আবার বেড়েছে।  এসময় রেকর্ড সংখ্যক বাড়ি কিনেছেন কানাডিয়ানরা।  এর পেছনে তারা খরচও করেছেন আগের বছরগুলোর চেয়ে বেশি। কানাডিয়ান রিয়েল এস্টেট অ্যাসোসিয়েশন মঙ্গলবার জানিয়েছে, চলতি বছরের প্রথম মাসে কানাডায় বাড়ি বিক্রি আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় ৩৫ দশমিক ২ শতাংশ বেড়েছে। আর গত বছরের ডিসেম্বরের তুলনায় বেড়েছে ২ শতাংশ।

বিক্রি ও নতুন তালিকাভূক্ত বাড়ির অনুপাতও নতুন উচ্চতায় পৌঁছেছে। অনুপাতটি বেড়ে ৯০ দশমিক ৭ শতাংশে দাঁড়িয়েছে। মাসভিত্তিতে এর আগে সর্বোচ্চ অনুপাত ছিল ৮১ দশমিক ৫ শতাংশ। তাও ১৯ বছর আগে। জানুয়ারিতে বাড়ির জাতীয় গড় দামও রেকর্ড ৬ লাখ ২১ হাজার ৫২৫ ডলারে পৌঁছেছে। গত বছরের জানুয়ারির তুলনায় এ মূল্য ২২ দশমিক ৮ শতাংশ বেশি।

আবাসন বাজারের এ চাঙ্গাভাবের কারণ হিসেবে কানাডা রিয়েল এস্টেট অ্যাসোসিয়েশন বলছে, মহামারির মাঝামাঝি সময়ে বিক্রির জন্য বাড়ির মালিকরা অপেক্ষা করে ছিলেন। ফলে এ সময়ে বাড়ি কেনা ছাড়া তেমন কোনো বিকল্পও ছিল না। 

আবাসনের জন্য সবচেয়ে সক্রিয় ও ব্যয়বহুল দুটি বাজার ভ্যানকুভার ও গ্রেটার টরন্টো এরিয়াতে বাড়ির দাম জানুয়ারিতে সবচেয়ে বেশি বেড়েছে। গ্রেটার টরন্টো এরিয়াতে এ সময় প্রতিটি বাড়ির দাম ছিল গড়ে ৯ লাখ ৪১ হাজার ১০০ ডলার। তবে ভ্যানকুভারে বাড়ির গড় মূল্য ১০ লাখ ডলার ছাড়িয়ে গেছে। জাতীয় গড় মূল্য ৬ লাখ ২১ হাজার ৫২৫ ডলার থেকে আবাসন বাজার দুটিকে বাদ দিলে বাড়ির গড় দাম কমে ১ লাখ ২৯ হাজার ডলার।

টরন্টোর রিয়েল এস্টেট ব্রোকার উইনস লাই বলেন, তার মানে এই নয় যে, সিটি সেন্টারের বাইরে বাড়ির দাম কম আছে। ভন ও মার্কহামেও বাড়ির যে দাম তা রীতিমতো চমকে ওঠার মতো। সিটির বাইরে যেমন, ব্যারিতেও বাড়ির দাম চাওয়া হচ্ছে ৭ লাখ ৫০ হাজার ডলার।

কানাডিয়ান রিয়েল এস্টেট অ্যাসোসিয়েশন বলছে, অন্টারিওর অনেক অঞ্চলে বাড়ির দাম বছরওয়ারি ২৫ থেকে ৩০ শতাংশ বেড়েছে। এসব অঞ্চলের মধ্যে আছে ব্যারি, নায়াগ্রা, গ্রে-ব্রুস ওয়েন সাউন্ড, হুরন পার্থ, কাওয়ার্থা লেকস, লন্ডন অ্যান্ড সেন্ট থমাস, নর্থ বে, সিমকো এবং সাউদার্ন জর্জিয়ান বে। তবে ৩০ শতাংশের বেশি দাম বাড়তে দেখা গেছে অন্টারিওর লেকল্যান্ডস, নর্থআম্বারল্যান্ড হিল, কুইন্ট, টিলসনবার্গ ডিস্ট্রিক্ট ও উডস্টক-ইঙ্গারসলে।