শুক্রবার | ২৩ এপ্রিল ২০২১ | টরন্টো | কানাডা |

Breaking News:

  • নতুন ভ্যারিয়েন্ট কানাডাকে আবৃত করে ফেলতে যাচ্ছে : ট্রুডো
  • ভ্যাকসিনেশনের গতি বাড়াতে প্রয়োজন নিরবচ্ছিন্ন সরবরাহ : ডগ ফোর্ড
সীমিত আকারে ভ্যাকসিন প্রয়োগ শুরু করতে হচ্ছে : ডাগ ফোর্ড

: ১৪ ডিসেম্বর ২০২০ | দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম ডেস্ক |

প্রিমিয়ার ডাগ ফোর্ড

মঙ্গলবার থেকে কানাডার অন্টারিওতে করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন দেয়া শুরু হবে। অন্টারিওর প্রিমিয়ার ডাগ ফোর্ড জানিয়েছেন লং টার্ম কেয়ার বা হোম এবং ঝুঁকিপূর্ণ স্থানে কর্মরত স্বাস্থ্যকর্মীরা প্রথম ভ্যাকসিন পাবেন। অন্টারিও প্রদেশের তথ্যানুযায়ী ওষুধ কোম্পানি ফাইজার ও মর্ডানা থেকে এই প্রদেশটি ২০২১ সালের প্রথম তিন মাসে প্রায় ২৪ লাখ ডোজ ভ্যাকসিন পেতে যাচ্ছে। তাতে শুধুমাত্র ১২ লাখ ডোজ ভ্যাকসিন দীর্ঘমেয়াদী সেবাশ্রম ও সেখানে কর্মরত সন্মুখসারির সেবাকর্মীদের জন্য হবে প্রয়োজনের তুলনায় অতিরিক্ত। প্রিমিয়ার ডাগ ফোর্ড বৃহস্পতিবার বলেন, প্রভিন্স খুবই স্বল্প পরিমাণে ভ্যাকসিন পেতে যাচ্ছে। ফলে সীমিত আকারে ভ্যাকসিন প্রয়োগ শুরু করতে হচ্ছে। তবে কী পরিমাণ ভ্যাকসিন অন্টারিও পাচ্ছে তা তিনি উল্লেখ করেননি। টরন্টো এবং অটোয়ার হাসপাতালে প্রথম ভ্যাকসিন দেয়া হবে বলে প্রিমিয়ার ডাগ ফোর্ড ঘোষণা দিয়েছেন।

এদিকে, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা করোনা মহামারি থেকে সুরক্ষায় সমাজে যে ‘হার্ড ইম্যুউনিটি’ অর্থাৎ অধিকাংশ জনগোষ্ঠির অনাক্রম্যতার উপর গুরুত্বারোপ করেছে, তাতে এক জরিপে দেখা গেছে প্রায় ৭৫ শতাংশ টরন্টোবাসী ভ্যাকসিন প্রদান শুরু হলে, তা সানন্দে গ্রহণে ইচ্ছুক। ওই জরিপটি টরন্টো পাবলিক হেলথের পক্ষে জরিপসংস্থা ‘ইপসোস-রিড’ মোট ১,২০১ জনের উপর পরিচালনা করলে, উত্তরদাতাদের ৭৩ শতাংশ অনুরূপ জবাব দিয়েছেন। অর্থাৎ এদের ৪০ শতাংশ বলেছেন তারা ‘অবশ্যই’ টিকা নেবেন এবং ৩৩ শতাংশ বলেছেন ‘সম্ভবত’ তারা তা নেবেন। আর ১৬ শতাংশ বলেছেন তারা অবশ্যই কিংবা সম্ভবত তা নেবেন না। এছাড়া ১১ শতাংশ এখনও জানেন না আদৌ তারা তা গ্রহণ করবেন কিনা।

এতে প্রতীয়মান যে, টরন্টো শহরের অধিকাংশ মানুষ অনাক্রম্যতা গড়ে তুলতে ইচ্ছুক। আর বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মতে ৬৫ থেকে ৭০ শতাংশ জনগোষ্ঠি সে ধরণের ইম্যুউনিটি বা অনাক্রম্যতা গড়ে তুলতে পারলে পুরো জনগোষ্ঠি মহামারি থেকে সুরক্ষা পেতে পারেন।