মঙ্গলবার | ১৯ জানুয়ারী ২০২১ | টরন্টো | কানাডা |

Breaking News:

  • কানাডায় ভ্যাকসিনে কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার খবর পাওয়া যায়নি
  • কানাডার কিস্টোন পাইপ লাইনের অনুমোদন বাতিলের সিদ্ধান্ত বাইডেনের
অন্টারিওর ‘গ্রে-ব্রুস’-এ করোনায় কেউ মারা যায়নি

: ২৪ অক্টোবর ২০২০ | মোহাম্মদ আলী বোখারী |


কানাডার সর্বত্র এমনকী অন্টারিওতে কোভিড-১৯ সংক্রমণ অব্যাহত থাকলেও এ প্রদেশের দক্ষিণে অবস্থিত গ্রে ব্রুস অঞ্চলের একমাত্র স্বাস্থ্য কেন্দ্রটি করোনায় কোনো মৃত্যুর খবর দিতে পারেনি। অর্থাৎ সেখানে ‘করোনাভাইরাস ডেথ রেট এট জিরো’।

সোমবার সিটিভি’র ইউর মর্নিং শো-তে গ্রে ব্রুসের স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. ইয়ান অ্যারা জানান, স্বাস্থ্য পরিচর্যায় নিয়োজিত পেশাজীবিদের নিখুঁত ও ‘জনস্বাস্থ্য সম্পর্কিত প্রায়োগিক প্রয়াস’ করোনা মহামারিতে গ্রে ব্রুস অঞ্চলে অতুৎজ্জ্বল সাফল্য বয়ে এনেছে। টিভির এক সাক্ষাতকারে ডা. অ্যারা বলেন, ‘জনস্বাস্থ্যের ক্ষেত্রে স্থানীয় রাজনীতিক ও সুস্বাস্থ্যের ক্ষেত্রে বিধি-নিষেধ মানায় জনগণের আত্মনিবেদিত অঙ্গীকার এবং পারস্পরিক সচেতনতা সৃষ্টি, সংশ্লিষ্ট থাকা ও জানায় আগ্রহান্বিত হওয়াটাই ওই সাফল্যকে সঞ্চারিত করেছে। আরও বলেন, ‘জরুরি পরিস্থিতিতে সংযোগ সৃষ্টিটাই মুখ্য, বেশি বলে কিছু নেই।’

ডা. ইয়ান অ্যারার কথা হচ্ছে, সময়ানুবর্তিতায় স্বাস্থ্যকর্মীদের একটি দল এলাকাবাসীকে স্বাস্থ্য সম্পর্কিত মূল্যবান তথ্য জানিয়ে  এসেছে। তাছাড়া স্থানীয় মিডিয়া স্বচ্ছ তথ্য প্রদানের পাশাপাশি নানা প্রশ্নের জবাব পেতে ‘অত্যন্ত সক্রিয় ও উদগ্রীব’ ছিল। সেই সামগ্রিক প্রয়াসই গ্রে ব্রুস এলাকায় করোনার প্রার্দুভাব রুখেছে; যদিও ডা. অ্যারা আগেই আশঙ্কা প্রকাশ করেছিলেন সকলেরই করোনা জীবাণু রয়েছে, তাই সতর্ক ও সচেতন হতে হবে।

সম্প্রতি গ্রে ব্রুসের প্রশাসন নেতৃস্থানীয় মেডিকেল আইসোটপ সরবরাহকারী ‘ব্রুস পাওয়ার’-এর সঙ্গে একনিষ্ঠ হয়ে করোনা মোকাবিলায় জোট বেঁধেছে। ওই প্রতিষ্ঠানটি এলাকাবাসীর জন্য পৌণে ২০ লাখ ডলারের ‘পার্সোনাল প্রোটেকটিভ ইকুইপমেন্ট বা ‘পিপিই’ ও ২ লাখ ডলারের মাস্ক সরবরাহ করেছে। ডা. অ্যারার ভাষায় স্থানীয় নেতৃবৃন্দের কাছ থেকে এ ধরণের সামাজিক অঙ্গীকার পরিপূরণ অবশ্যই করোনা প্রতিরোধে সহায়ক হয়েছে। পাশাপাশি স্বাস্থ্যকর্মীদের সংক্রমণ অনুসন্ধান কার্যক্রমটিও যথেষ্ট সহায়ক হয়েছে।