বিশ্বে ২৪ ঘণ্টায় আরও ৬ হাজার মৃত্যু, শনাক্ত তিন লাখ

২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০


বিশ্বে ২৪ ঘণ্টায় আরও ৬ হাজার মৃত্যু, শনাক্ত তিন লাখ

পৃথিবীব্যাপী মহামারি আকার ধারণ করা করোনাভাইরাসে আবারও একদিনে তিন লাখের বেশি করোনাক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছে। এতে করে সংক্রমিতের সংখ্যা ৩ কোটি ২১ লাখ ছুঁতে চলেছে। নতুন করে প্রাণহানি ঘটেছে ৬ হাজারের বেশি মানুষের। এতে করে মৃতের সংখ্যা ৯ লাখ ৮১ হাজার পেরিয়েছে। পাশাপাশি সুস্থতা লাভ করেছেন আরও পৌনে তিন লাখের বেশি রোগী। 

বিশ্বখ্যাত জরিপ সংস্থা ওয়ার্ল্ডওমিটারের তথ্যমতে, গত ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বে ৩ লাখ ১৫ হাজার ৭১৭ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এতে করে সংক্রমিতের সংখ্যা বেড়ে ৩ কোটি ২০ লাখ ৮৫ হাজার ৭৮৮ জনে দাঁড়িয়েছে। নতুন করে প্রাণহানি ঘটেছে ৬ হাজার ৩৩৩ জনের। এ নিয়ে এখন পর্যন্ত মৃতের সংখ্যা ৯ লাখ ৮১ হাজার ২৮৮ জনে ঠেকেছে। 

অন্যদিকে, গত একদিনে সুস্থতা লাভ করেছেন ২ লাখ ৮১ হাজার ৯৫৪ জন রোগী। এতে করে বেঁচে ফেরার সংখ্যা ২ কোটি ৩৬ লাখ ৭০ হাজার ৭৬৪ জনে পৌঁছেছে। গত বছরের ডিসেম্বরের শেষের দিকে চীনের হুবেই প্রদেশের উহান শহরে প্রথম মানবদেহে করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়। এরপর দেশটিতে এ ভাইরাসে অস্বাভাবিকভাবে প্রাণহানি ঘটে। এরপরই চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে ইউরোপের দেশগুলোতে সংক্রমণ মাত্রা ছাড়ায়। যেখানে কিছুটা নিয়ন্ত্রণে আসলেও উত্তর ও দক্ষিণ আমেরিকার দেশগুলোতে এখনও ক্রমশ বেড়েই চলছে প্রাণহানি। আর ১১ মার্চ করোনাকে মহামারী ঘোষণা করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।  এখন পর্যন্ত করোনায় সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত দেশ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। যেখানে ভাইরাসটির শিকার ৭১ লাখ ৩৯ হাজারের বেশি মানুষ। এর মধ্যে না ফেরার দেশে ২ লাখ ৬ হাজার ৫৯৩ জন ভুক্তভোগী।

সংক্রমণে দুইয়ে থাকা দক্ষিণ এশিয়ার দেশটিতে গত একদিনেই ৮৯ হাজারের বেশি মানুষের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এতে করে আক্রান্তের সংখ্যা ৫৭ লাখ ৩০ হাজার ছাড়িয়ে গেছে। প্রাণহানি বেড়ে ৯১ হাজার ১৭৩ জনে ঠেকেছে। তৃতীয় সর্বোচ্চ করোনাক্রান্ত দেশ ব্রাজিলে সংক্রমিতের সংখ্যা ৪৬ লাখ ২৮ হাজারের কাছাকাছি। প্রাণহানি বেড়ে ১ লাখ ৩৯ হাজার ৬৫ জনে দাঁড়িয়েছে। 

রাশিয়ায় সংক্রমিতের সংখ্যা ১১ লাখ ২২ হাজার ছাড়িয়ে গেছে। বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম দেশটিতে এখন পর্যন্ত ১৯ হাজার ৭৯৯ জন মানুষের মৃত্যু হয়েছে করোনায়।  কলম্বিয়ায় করোনা শনাক্ত হয়েছে ৭ লাখ ৮৪ হাজারের বেশি মানুষের দেহে। এর মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ২৪ হাজার ৭৪৬ জনের। পেরুতে আক্রান্ত ৭ লাখ ৮২ হাজার ৬৯৫ জনে দাঁড়িয়েছে। এর মধ্যে প্রাণ হারিয়েছেন ৩১ হাজার ৮৭০ জন। 

উত্তর আমেরিকার দেশ মেক্সিকোয় আক্রান্ত ৭ লাখ ১০ হাজারের বেশি। এখন পর্যন্ত সেখানে প্রাণ গেছে ৭৪ হাজার ৯৪৯ জন মানুষের।

নিয়ন্ত্রণে আসা স্পেনে আক্রান্তের সংখ্যা ৬ লাখ ৯৩ হাজার পেরিয়েছে। প্রাণ গেছে সেখানে ৩১ হাজার ৩৪ জনের।

আফ্রিকার দেশ দক্ষিণ আফ্রিকায় সংক্রমিতের সংখ্যা ৬ লাখ ৬৫ হাজারের অধিক। আর মৃত্যু হয়েছে ১৬ হাজার ২০৬ জনের।

আর্জেন্টিনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৬ লাখ ৬৫ হাজার ছুঁই ছুঁই। প্রাণ হারিয়েছেন ১৪ হাজার ৩৭৬ জন ভুক্তভোগী। ফ্রান্সে করোনার ভুক্তভোগী ৪ লাখ ৮১ হাজারের অধিক মানুষ। এর মধ্যে প্রাণ গেছে ৩১ হাজার ৪৫৯ জনের।  চিলিতে করোনা হানা দিয়েছে প্রায় সাড়ে ৪ লাখ মানুষের দেহে। এর মধ্যে ১২ হাজার ৩৪৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। 

মধ্যপ্রাচ্যের ইসলামী প্রজাতান্ত্রিক দেশ ইরানে করোনার শিকার প্রায় ৪ লাখ ৩৩ হাজার মানুষ। প্রাণহানি ঘটেছে ২৪ হাজার ৮৪০ জনের।যুক্তরাজ্যে সংক্রমিতের সংখ্যা ৪ লাখ ১০ ছুই ছুঁই। যেখানে মৃত্যু হয়েছে ৪১ হাজার ৮৬২ জনের।  আর বাংলাদেশে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের দেয়া তথ্যমতে, গতকাল বুধবার পর্যন্ত আক্রান্তের সংখ্যা ৩ লাখ ৫৩ হাজার ৮৪৪ জন। এর মধ্যে প্রাণহানি ঘটেছে ৫ হাজার ৪৪ জনের।