বিশ্বে একদিনেই পৌনে ৩ লাখ শনাক্ত, মৃত্যু ৭ হাজার

২৩ জুলাই ২০২০


বিশ্বে একদিনেই পৌনে ৩ লাখ শনাক্ত, মৃত্যু ৭ হাজার

স্বাস্থ্যবিধি না মানা ও গুরুত্বহীনতায় বিশ্বে আবারও ভয়াবহ তাণ্ডব চালাতে শুরু করেছে করোনা ভাইরাস। গত ২৪ ঘণ্টায়ও পৌনে ৩ লাখের বেশি মানুষের দেহে শনাক্ত হয়েছে ভাইরাসটি। এ সময়ে মৃত্যু হয়েছে আরও ৭ হাজারের অধিক মানুষের। যা গত একদিনের তুলনায় প্রায় দ্বিগুণ।  

বিশ্বখ্যাত জরিপ সংস্থা ওয়ার্ল্ডমিটারের নিয়মিত পরিসংখ্যানে বলা হয়েছে, গত একদিনে বিশ্বের ২ লাখ ৭৯ হাজার ৭৬৭ জনের দেহে মিলেছে করোনার সংক্রমণ। এতে করে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ১ কোটি ৫৩ লাখ ৬৫ হাজার ৩২৪ জনে দাঁড়িয়েছে। প্রাণ ঝরেছে আরও ৭ হাজার ১১৩ জনের। এতে মৃতের সংখ্যা ৬ লাখ ২৯ হাজার ৩৪৩ জনে ঠেকেছে।

তবে, আশার কথা হলো, গত ২৪ ঘণ্টায়ও ২ লাখ ৩৯ হজারের বেশি ভুক্তভোগী সুস্থ হয়েছে। এতে করে মোট বেঁচে ফেরার সংখ্যা ৯৩ লাখ ৪৪ হাজার ছাড়িয়েছে। এর মধ্যে ইউরোপের কয়েকটি দেশ ও উৎপত্তিস্থল চীনে নিয়ন্ত্রণে ভাইরাসটি। তবে দেশগুলো স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরলেও মুক্ত হচ্ছে না পুরোপুরি। এখনও প্রতিদিনই কমবেশি সংক্রমণ ও প্রাণহানির ঘটনা ঘটছে।

করোনায় ভুক্তভোগীদের মধ্যে সবার উপরে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। যেখানে আক্রান্তের সংখ্যা ৪১ লাখ ৬১ হাজার ৪৭৫ জনে দাঁড়িয়েছে। না ফেরার দেশে ১ লাখ ৪৬ হাজার ১৮৩ জন মানুষ।  ব্রাজিলে সংক্রমিতের সংখ্যা বেড়ে ২২ লাখ ৩১ হাজার ছাড়িয়ে গেছে। প্রাণহানি ৮২ হাজার ৮৯০ জনে ঠেকেছে।

সংক্রমণে তিনে থাকা দক্ষিণ এশিয়ার দেশ ভারতে গত একদিনেই ৪৫ হাজারের বেশি মানুষের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এতে করে আক্রান্তের সংখ্যা ১২ লাখ ৪০ হাজার ছুঁতে চলেছে। প্রাণহানি ঘটেছে ২৯ হাজার ৮৯০ জনের।  রাশিয়ায় সংক্রমিতের সংখ্যা ৭ লাখ ৮৯ হাজার ছাড়িয়ে গেছে। বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম দেশটিতে এখন পর্যন্ত ১২ হাজার ৭৪৫ জন মানুষের মৃত্যু হয়েছে করোনায়।

আফ্রিকার দেশ দক্ষিণ আফ্রিকায় সংক্রমিতের সংখ্যা চার লাখ হতে চলেছে। এখন পর্যন্ত সেখানে ৩ লাখ ৯৫ হাজার জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। আর মৃত্যু হয়েছে ৫ হাজার ৯৪০ জনের।  লাতিন আমেরিকার আরেক দেশ পেরুতেও আক্রান্ত ৩ লাখ সাড়ে সাড়ে ৬৬ হাজারের বেশি। যেখানে মৃতের সংখ্যা ১৭ হাজার ৪৫৫ জন।

উত্তর আমেরিকার দেশ মেক্সিকোয় আক্রান্ত ৩ লাখ ৫৬ হাজার পেরিয়েছে। প্রাণ গেছে ৪০ হাজার ৪০০ জন মানুষের। চিলিতে সংক্রমণ ৩ লাখ ৩৬ হাজার ছাড়িয়েছে। এর মধ্যে ৮ হাজার ৭২২ জনের প্রাণ কেড়েছে করোনা।  নিয়ন্ত্রণে আসা স্পেনে আক্রান্ত ৩ লাখ সাড়ে ১৪ হাজারের অধিক। প্রাণ গেছে সেখানে ২৮ হাজার ৪২৬ জনের। যুক্তরাজ্যে সংক্রমিতের সংখ্যা ২ লাখ ৯৬ হাজারের বেশি। যেখানে মৃত্যু হয়েছে ৪৫ হাজার ৫০১ জনের।

মধ্যপ্রাচ্যের ইসলামী প্রজাতান্ত্রিক দেশ ইরানে করোনার শিকার ২ লাখ ৮১ হাজারের বেশি মানুষ। প্রাণহানি ঘটেছে ১৪ হাজার ৪৫৩ জনের।

দক্ষিণ এশিয়ার দেশ পাকিস্তানে করোনার শিকার ২ লাখ ৬৭ হাজারের অধিক। মৃত্যু হয়েছে ৫ হাজার ৬৭৭ জনের। সৌদি আরবে এখন পর্যন্ত করোনা রোগীর সংখ্যা ২ লাখ ৫৮ হাজার। এর মধ্যে প্রাণ হারিয়েছেন ২ হাজার ৬০১ জন।

ইতালিতে ২ লাখ ৪৫ হাজারের বেশি করোনার ভুক্তভোগী। এর মধ্যে পৃথিবী ছেড়েছেন ৩৫ হাজার ৮২ জন।  তুরস্কে করোনার ভুক্তভোগী ২ লাখ সাড়ে ২২ হাজার মানুষ। যেখানে প্রাণহানি ঘটেছে ৫ হাজার ৫৪৫ জনের।  আর বাংলাদেশে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের দেয়া তথ্যমতে, গতকাল বুধবার পর্যন্ত আক্রান্তের সংখ্যা ২ লাখ ১৩ হাজার ২৫৪ জন। এর মধ্যে প্রাণহানি ঘটেছে ২ হাজার ৭৫১ জনের। আর সুস্থ হয়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরেছেন ১ লাখ ১৭ হাজার ২০২ জন ভুক্তভোগী।