“অনলাইন প্লাটফর্মে ডিজিটাল মেলা ২০২০”

২৭ জুন ২০২০


“অনলাইন প্লাটফর্মে ডিজিটাল মেলা ২০২০”

অনলাইন প্লাটফর্মে ডিজিটাল মেলা ২০২০ উপলক্ষে অনলাইন প্রেস ব্রিফিং করলেন রাজবাড়ীর জেলা প্রশাসক জনাব দিলসাদ বেগম।
----------------------
"অনলাইন প্লাটফর্মে ডিজিটাল মেলা ২০২০" উপলক্ষে আজ ২৭ জুন, ২০২০ তারিখ সকাল ১০:৩০ জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষ থেকে অনলাইন প্রেস কনফারেন্স করেন রাজবাড়ীর জেলা প্রশাসক জনাব দিলসাদ বেগম।
অনলাইন এই প্রেস কনফারেন্সে সংযুক্ত ছিলেন প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ার রাজবাড়ী জেলার সাংবাদিকবৃন্দ, শিক্ষকমন্ডলী, গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গসহ জেলা পর্যায়ের সরকারি অফিসসমূহের কর্মকর্তাগণ। প্রেস ব্রিফিংয়ের মাধ্যমে ০৩ (তিন) দিনব্যাপী ডিজিটাল মেলা ২০২০ অনুষ্ঠানের উদ্দেশ্য ও কার্যক্রম সম্পর্কে সকলকে অবহিত করেন জেলা প্রশাসক জনাব দিলসাদ বেগম।
প্রেস ব্রিফিংয়ের শুরুতেই জেলা প্রশাসক জনাব দিলসাদ বেগম শুভেচ্ছা জানিয়ে শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করেন সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে এবং কৃতজ্ঞতা জানান মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি। প্রেসব্রিফিং তিনি বলেন, ডিজিটাল বাংলাদেশ বাস্তবায়নে সরকারি-বেসরকারি সেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠানের বিভিন্ন ই-সেবা সম্পর্কে জনসাধারণকে অবহিত করার লক্ষ্যে ২০১০ সাল থেকে প্রতি বছর ডিজিটাল মেলা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। ডিজিটাল মেলা সরকারি-বেসরকারি সেবা প্রদানের ক্ষেত্রে উদ্ভাবন এবং সৃজনশীলতার একটি নতুন মাত্রা সৃষ্টি করেছে। এ মেলা যে তিনটি কারণে খুবই গুরুত্বপূর্ণ তা হলোঃ (১) তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার করে সহজে, দ্রুততম সময়ে এবং স্বল্প খরচে জনগণের দোরগোড়ায় সেবা প্রদান করার সেতুবন্ধন রচনা; (২) ডিজিটাল মেলার মাধ্যমে প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে জনকল্যাণমুখী ই-সেবার ক্ষেত্র তৈরির একটি ইতিবাচক প্রতিযোগিতা শুরু হয়েছে এবং প্রতিষ্ঠানগুলো একে অপরের অভিজ্ঞতা দ্বারা সমৃদ্ধ হচ্ছে এবং (৩) ডিজিটাল মেলা জনগণের কাছে প্রমাণ করতে পেরেছে যে, ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণের ফলে জনগণ উপকৃত হচ্ছে।
তিনি বলেন, প্রতি বছরের ন্যায় এবারও রাজবাড়ী জেলা প্রশাসন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি অধিদপ্তর এবং এটুআই এর সহযোগিতায় ডিজিটাল মেলা, ২০২০ অনুষ্ঠান করতে যাচ্ছে। তবে এ বছর করোনা পরিস্থিতি বিবেচনায় আজ ২৭ শে জুন থেকে ২৯ শে জুন ২০২০ তারিখ পর্যন্ত অনলাইন প্লাটফর্মে এ মেলা অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। এ মেলার কার্যক্রম মূলত জেলার ওয়েবসাইটের সাথে একটি মেন্যুবার-এর সমন্বয়ে এবং অনলাইন মেলার লিংক সম্বলিত একটি মূল পেইজ তথ্য বাতায়ন এবং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের ওয়েবসাইটে দৃশ্যমান থাকবে । জেলা পর্যায়ের সকল সরকারি অফিসের বিভিন্ন ডিজিটাল কার্যক্রমের টেক্সট, প্রেজেন্টেশন, ছবি, ভিডিও এবং প্রয়োজনীয় তথ্য এই অনলাইন প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে নাগরিকগণ জানতে পারবেন ।
ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মানের বর্তমান সরকারের সাফল্য চিত্র তুলে ধরে তিনি বলেন, সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এঁর সুযোগ্য কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার যে নতুন স্বপ্ন দেখিয়েছেন, জাতি আজ তাঁর গতিশীল নেতৃত্বে সেই স্বপ্ন পূরণে ব্রতী হয়েছে । সরকারের প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে দেশের সর্বস্তরে তথ্য ও প্রযুক্তি নেটওয়ার্ক তৈরী করা হয়েছে । যা জনগণ ও প্রশাসনের মধ্যে সৃষ্টি করেছে এক সেতুবন্ধন । তিনি সাংবাদিকদের স্মরণ করিয়ে দিয়ে বলেন, তথ্য ও প্রযুক্তির ক্ষেত্রে ইতোমধ্যে আমাদের দেশে অভূতপূর্ব উন্নতি সাধিত হয়েছে । ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টার স্থাপনের মাধ্যমে প্রতিটি ইউনিয়নে আমাদের কৃষক থেকে শুরু করে সকল প্রান্তিক জনগণ সবসময় প্রয়োজনীয় তথ্যের সেবা পাচ্ছে। ইউনিয়ন থেকে শুরু করে উপজেলা, জেলা, বিভাগ ও মন্ত্রণালয় পর্যন্ত সর্বত্র ই-সেবা কার্যক্রম গড়ে তোলা হচ্ছে। এতে করে জনগণ যে কোন সময়ে, যে কোন জায়গায় বসে সেবা পেতে পারে। জনগণের দোরগোড়ায় সেবা নিয়ে যাওয়ার লক্ষ্যে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি অধিদপ্তর এবং এটুআই কর্মসূচি নানামুখী ডিজিটাল উদ্যোগ বাস্তবায়নে কারিগরি সহায়তা প্রদান করছে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে মাল্টিমিডিয়া ক্লাস রুম তৈরী করা হয়েছে। জেলা প্রশাসকের কার্যালয় হতে বিভিন্ন সভার নোটিশ এখন মোবাইল ফোনে ক্ষুদে বার্তার মাধ্যমে প্রেরণ করা হচ্ছে। কার্যতঃ ডিজিটালের ছোঁয়া সর্বত্র লাগতে শুরু করেছে।
অনলাইন প্লাটফর্মে ডিজিটাল মেলা ২০২০ আয়োজনে জেলা প্রশাসনের প্রস্তুতি ও জেলা প্রশাসনের ভূমিকা সম্পর্কে বর্ণনা করতে গিয়ে তিনি বলেন, এই মেলা আয়োজনে রাজবাড়ী জেলা প্রশাসন ইতোমধ্যে সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে। তিনি আরও বলেন, ডিজিটাল বাংলাদেশ গঠনে, সরকারের গৃহীত কর্মসূচি বাস্তবায়নে, উদ্ভাবনী উদ্যোগের মাধ্যমে জনসেবা সহজীকরণ, উন্নয়ন কর্মকান্ডের সমন্বয় সাধন, আধুনিক ভূমি ব্যবস্থাপনা এবং আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে ঐতিহ্যবাহী প্রতিষ্ঠান জেলা প্রশাসন নিবিড়ভাবে কাজ করে যাচ্ছে। জেলা প্রশাসনের রয়েছে একটি সমৃদ্ধ তথ্য বাতায়ন,Rajbari Sustainable Development Goals Club নামে ফেসবুক গ্রুপ পেইজ, DC Rajbari নামে ফেসবুক পেইজ, মুজিববর্ষ কর্নার, ডিজিটাল রেকর্ডরুম, ফ্রন্ট ডেস্ক/জেলা ই-সেবা কেন্দ্র, আইসিটি শাখা, প্রবাসী কল্যাণ ডেস্ক, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সেলসহ ডিজিটাল সেবা সমৃদ্ধ বিভিন্ন শাখা। জেলা প্রশাসকের নেতৃত্বে জেলা ম্যাজিস্ট্রেসীর রয়েছে ই-মোবাইল কোর্ট।
জেলা প্রশাসক জনাব দিলসাদ বেগম প্রেস ব্রিফিংয়ে বলেন, রাজবাড়ী জেলার ওয়েবপোর্টালের মূল মেন্যুবারটিতে "ডিজিটাল মেলা ২০২০" নামে একটি সাব-মেন্যুবার থাকবে। সেখানে ক্লিক করলেই অনলাইন প্ল্যাটফর্মের 'ডিজিটাল মেলা ২০২০'-এর প্যাভিলিয়ন দৃশ্যমান হবে । মোট ০৫ (পাঁচ)টি বিষয়ভিত্তিক অনলাইন প্যাভিলিয়ন থাকবে যার মাধ্যমে জেলা পর্যায়ে বিভিন্ন কার্যক্রমকে প্রদর্শন করা হবে।
তিনি বলেন, করোনা পরিস্থিতিতে এবারের অনলাইন মেলায় ওয়েব পোর্টালে প্রদর্শিত হবে জেলা পর্যায়ে বিভিন্ন দপ্তরের ডিজিটাল সেবাসমূহের বিস্তারিত তথ্যাদি। তন্মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো- কৃষি সম্পদ অধিদপ্তরের কৃষি বাতায়ন, কৃষকের জানালা, বালাইনাশক নির্দেশিকা, কৃষকের ডিজিটাল ঠিকানা ও নগর কৃষি, ডিজিটাল স্বাস্থ্য সেবা, টেলিমেডিসিন সেবা- যার মাধ্যমে চিকিৎসকদের পরামর্শ পাওয়া যাবে। পাশাপাশি ঘরে বসেও যেকোন ব্যক্তি/রোগী সহজেই নিতে পারেন স্বাস্থ্যসেবা । বর্তমান করোনা (কোভিড-১৯) সংক্রমণ পরিস্থিতিতে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে অনেক রোগী এই টেলিমেডিসিন সেবা গ্রহণ করছেন। এছাড়াও ডিজিটাল ভূমি সেবার অংশ হিসাবে ওয়েব পোর্টালে পাওয়া যাবে ই-মিউটেশন ও ই-পর্চা নির্দেশিকা। এক্ষেত্রে অনলাইনে মিউটেশন করা ও পর্চার জন্য আবেদন করতে একজন নাগরিকের কী কী করতে হয় তা সহজেই জানা যাবে। পাশাপাশি অনলাইনে সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচির আওতায় সুবিধাভোগীদের অনলাইনে ভাতা প্রাপ্তি, বিআরটিএ লাইসেন্স পাওয়ার জন্য আবেদন, পাসপোর্ট অফিসের ডিজিটাল সেবা সম্পর্কিত তথ্যসমূহ, অনলাইনে বিদ্যুৎ সংযোগ পাওয়ার জন্য আবেদন, এসএমএস/বিকাশের মাধ্যমে বিদ্যুৎ বিল প্রদান, সফটওয়্যার এর মাধ্যমে সঞ্চয় পত্র বিক্রয় এবং নগদায়ন কার্যক্রম ইত্যাদি ডিজিটাল সেবাসমূহের প্রক্রিয়া সন্নিবেশিত করা হয়েছে এ মেলার অনলাইন প্যাভিলিয়নগুলোতে।
প্রেসব্রিফিংয়ে তিনি জানান, আজ ২৭ জুন ২০২০ তারিখ "তথ্যপ্রযুক্তি নাগরিক সেবা উন্নতকরণে মূল হাতিয়ার"এই প্রতিপাদ্য বিষয়কে সামনে রেখে অনলাইন সেমিনার অনুষ্ঠিত হবে এবং সেমিনারে রাজবাড়ী-১ আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য আলহাজ্ব কাজী কেরামত আলী প্রধান অতিথি হিসেবে সংযুক্ত হয়ে মেলার শুভ উদ্বোধন করবেন। তিনি আরও জানান, সেমিনারে তিনজন প্যানেলিস্ট ও একজন কি-নোট স্পিকার তাদের বক্তব্য উপস্থাপন করবেন। আর সেমিনারটিতে অংশগ্রহণ করবেন জনপ্রতিনিধিগণ, সরকারী কর্মকর্তা- কর্মচারীবৃন্দ, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাগণ, বিভিন্ন স্কুল-কলেজের প্রধান ও অন্যান্য শিক্ষকবৃন্দ, ডিজিটাল সেন্টারের উদ্যোক্তাগণ, ডিজিটাল সেন্টার পার্টনার, মিডিয়া ও স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গসহ রাজবাড়ী জেলার বিভিন্ন শ্রেণীপেশার মানুষ।
প্রেসব্রিফিংয়ে তিনি বলেন, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের নির্দেশনা ও স্বাস্থ্যবিধি প্রতিপালন করে "অনলাইন প্লাটফর্মে ডিজিটাল মেলা ২০২০" অনুষ্ঠিত হচ্ছে। তিনি এই
অনলাইন প্লাটফর্মে ডিজিটাল মেলা ২০২০ এর যাবতীয় কার্যক্রম ব্যাপক প্রচার করার জন্য সাংবাদিকদের প্রতি অনুরোধ জানান। প্রেসব্রিফিংয়ে সংযুক্ত হওয়ার জন্য তিনি সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান এবং সকলের সুস্বাস্থ্য কামনা করে বলেন, সার্ভিস ইনোভেশনের আওতায় সরকারি সেবার মান উন্নয়ন, প্রযুক্তিগত উৎকর্ষ সাধন এবং জনসেবা নিশ্চিত করতে রাজবাড়ী জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে জনসেবাধর্মী উদ্ভাবনীমূলক কার্যক্রম পরিচালনা অব্যাহত রয়েছে। তথ্য প্রযুক্তির সর্বোচ্চ ব্যবহারকে অগ্রাধিকার দিয়ে রাজবাড়ী জেলায় ডিজিটাল সেবা ও উদ্ভাবন এগিয়ে চলেছে। পদ্মাকন্যা রাজবাড়ী জেলা হয়ে উঠছে এক সম্ভাবনাময় ডিজিটাল জেলায়।
প্রেস কনফারেন্সে শেষে প্রশ্নোত্তর পর্ব ও মুক্ত আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন রাজবাড়ী জেলার সাংবাদিকবৃন্দ, শিক্ষকমন্ডলী, গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গসহ জেলা পর্যায়ের সরকারি অফিসসমূহের কর্মকর্তাগণ। প্রেস কনফারেন্সের পর পরই জেলা প্রশাসক জনাব দিলসাদ বেগম একই স্থান থেকে অনলাইন সেমিনারের সভাপতিত্ব করেন।
(তথ্য কপি: ফেসবুক: DC Rajbari)