কর্নেল-মেজরসহ ভারতের ১০ সেনাকে ছেড়ে দিল চীন

১৯ জুন ২০২০


কর্নেল-মেজরসহ ভারতের ১০ সেনাকে ছেড়ে দিল চীন

লাদাখ সীমান্তে প্রাণঘাতী সংঘর্ষের পর ১০ জন ভারতীয় সেনাকে ছেড়ে দিয়েছে চীন। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম দ্য হিন্দু সূত্রে এই খবর দিয়েছে বিবিসি। সোমবার গালওয়ান উপত্যকায় দুই দেশের মধ্যে সীমান্ত সংঘাতের সময় এই সব ভারতীয় সেনাকে তুলে নিয়ে যায় চীনা সেনারা।

সেদিনের সংঘাতে ভারতের অন্তত ২০ জন সেনা মারা যায় বলে দিল্লির পক্ষ থেকে নিশ্চিত করা হয়। সেইসঙ্গে ৭৬ জন আহত হওয়ার ঘটনা ঘটে।

চীনের সেনারাও ওই ঘটনায় হতাহত হলেও এ ব্যাপারে বেইজিং কিছু জানায়নি। তবে মার্কিন গোয়েন্দা সূত্রে ভারতীয় বার্তা সংস্থা পিটিআই জানায়, গালওয়ান উপত্যকায় সংঘর্ষে অন্তত ৩৫ জন চীনা সেনা হতাহত হয়েছে।  এদিকে ভারতীয় সেনা ফিরিয়ে দেয়ার বিষয় নিয়ে দিল্লি এখনো কিছু জানায়নি, সেনাদের নিঁখোজের বিষয়টিও তারা নিশ্চিত করেনি।

তবে ইন্ডিয়া টুডের একজন শীর্ষ সাংবাদিক শীব আরুর জানান, বুধবার দুই দেশের মধ্যে সমঝোতার পর নিখোঁজ ভারতীয় সেনাদের মুক্তি দেয় চীন। বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে পাঁচটায় সীমান্তে পেট্রল পয়েন্ট ১৪ দিয়ে ভারতের কাছে তাদের হস্তান্তর করা হয়। ফিরিয়ে দেয়া সেনাদের মধ্যে একজন লেফটেনেন্ট কর্নেল এবং তিনজন মেজর ছিলেন।

প্রসঙ্গত, প্রসঙ্গত, মে মাস থেকে লাদাখে অমীমাংসিত সীমান্ত নিয়ে দুই দেশের মধ্যে উত্তেজনা শুরু হয়। দুই পক্ষের সেনাদের মধ্যে হাতাহাতি, পাথর ছোড়াছুড়ির মতো একাধিক সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এই উত্তেজনাকে কেন্দ্র করে চীন তার সীমান্তে যুদ্ধবিমানের উপস্থিতি ঘটায়।

এর মধ্যে জুনের শুরুতে পূর্ব লাদাখের গালওয়ান উপত্যকা, নাকুলা এবং প্যাগং লেকের উত্তরপ্রান্তে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখা (এলএসি) পেরিয়ে ভারতীয় সীমানায় ঢুকে পড়ে চীনা সেনারা। এই ঘটনায় দুই দেশের সেনা পর্যায়ে দফায় দফায় বৈঠকেও সংকট নিরসন হয়নি।

এক পর্যায়ে সোমবার প্রাণঘাতী সংঘর্ষে জড়ায় দুই পক্ষ। ৪৫ বছর পরে ফের চীনা সেনার হামলায় মৃত্যু হলো কোনো ভারতীয় সেনার। সর্বশেষ ১৯৭৫ সালে এমন ঘটনা ঘটেছিল।