রোনালদোর পেনাল্টি মিসে গোলশূন্য ড্র করলো জুভেন্টাস

১৩ জুন ২০২০


রোনালদোর পেনাল্টি মিসে গোলশূন্য ড্র করলো জুভেন্টাস

করোনাভাইরাসের কারণে দীর্ঘ তিন মাস বন্ধ থাকার পর কোপা ইতালিয়ার সেমিফাইনাল ম্যাচ দিয়ে ফুটবল ফিরলো ইতালিতে। তুরিনে ফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে মুখোমুখি হয়েছিল জুভেন্টাস এবং এসি মিলান। প্রত্যাশা অনুযায়ী নৈপুণ্য দেখাতে পারেননি ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। শেষ পর্যন্ত নিষ্প্রাণ ম্যাচটিতে গোলশূন্য ড্র নিয়ে মাঠ ছাড়ে দুই দল।

তুরিনে শুক্রবার বাংলাদেশ সময় রাত ১টায় শুরু হওয়া ইতালিয়ান কাপের সেমি-ফাইনালের দ্বিতীয় লেগের লড়াইটি গোলশূন্য ড্র হয়। কিন্তু প্রথম লেগের লড়াইটি ১-১ গোলে ড্র হওয়ায় প্রতিপক্ষের মাঠে গোলের সুবিধা নিয়ে রেকর্ড ১৯ বারের মতো টুর্নামেন্টটির ফাইনালে উঠলো জুভেন্টাস।

তুরিনে দর্শকশূন্য মাঠে আজ প্রথম লেগের দুই দলের দুই গোলদাতাই নিষ্প্রভ ছিলেন। ম্যাচের শুরুতে মিলানের রেবিচের হাতে বল লাগায় পেনাল্টি পায় জুভেন্টাস। তবে সেই সুযোগ কাজে লাগাতে পারেনি রোনালদো। তাঁর শট গোলপোস্টে লেগে ফেরত যায়।

ম্যাচের ১৬ মিনিটের মাথায় রেবিচ জুভেন্টাসের ব্রাজিলিয়ান তারকা দানিলোকে ফাউল করে লাল কার্ড দেখে মাঠ ছাড়েন।  একজন কম নিয়ে খেলা মিলানের বিপক্ষে দ্বিতীয়ার্ধে বেশ কয়েকবার গোলের সুযোগ পেয়েছিল জুভেন্টাস। কিন্তু এসব কাজে লাগাতে পারেননি রোনালদো, পাওলো দিবালা, ব্লেইস মাতুইদিরা।

অতিথি মিলান ম্যাচ শেষ হওয়ার দুই মিনিটি আগে অসাধারণ একটি সুযোগ পেয়েছিল। কিন্তু হেডে নেওয়া বল লক্ষ্যে রাখতে পারেননি জার্মান মিডফিল্ডার হাকান কালহাননোগ্লু। এদিন ইনজুরির জন্য দলে ছিলেন না মিলানের তারকা ফরোয়ার্ড ইব্রাহিমোভিচ।

ম্যাচে যা কিছু আক্রমণ হয়েছে সেসব এসেছে জুভেন্টাসের ফুটবলারের পা থেকে। ম্যাচের ৩১ মিনিটে জুভেন্টাসের ফরাসি ব্লেইস মাতুইদি গোলমুখে জোরালো এক শট নেন। তবে মিলান গোলরক্ষক দোনারামা সেটি কর্ণারের বিনিময়ে ফিরিয়ে দেন। ৭৫ মিনিটে নেওয়া পাওলো দিবালার জোরালো শটের পরিণতিও এক হয়।

এই ম্যাচে জুভেন্টাসের তারকা ফুটবলার রোনালদো অনেকটা নিষ্প্রভ ছিলেন বলতে গেলে। বলে পেয়েও রাখতে না পারা, গোলমুখের শট মিস করা, বল রিসিভ করতে সমস্যা হওয়ার মতো চিত্র দেখা গেছে এই তারকা ফুটবলারের কাছ থেকে।

আগামীকাল কোপা ইতালিয়ার ফাইনালে জুভেন্টাসের বিপক্ষে জায়গা নিশ্চিত করতে আরেক সেমিফাইনালের দ্বিতীয় লেগে লড়বে নাপোলি-ইন্টার মিলান। প্রথম লেগে মিলানের সান সিরো থেকে ১-০ গোলের জয় নিয়ে ফিরেছে নাপোলি। ফলে ঘরের মাঠে ইন্টারকে আতিথ্য দেওয়ার আগে মানসিকভাবে এগিয়ে থাকবে নাপোলি।