শুক্রবার | ১৮ জুন ২০২১ | টরন্টো | কানাডা |

Breaking News:

  • ইসলামোফোবিয়া বন্ধের পরিকল্পনা প্রণয়নের দাবি
  • গ্রীষ্মের শুরুতে কানাডার অর্থনীতি ঘুরে দাঁড়ানোর প্রত্যাশা

টরন্টোয় বর্ণবিরোধী সমাবেশে আবারও স্থানীয় সময় শনিবার অপরাহ্নে বিক্ষোভকারীরা সমবেত হন; অথচ আগের দিন কয়েক হাজার অনুরূপ বিক্ষোভকারী পুলিশের হাতে কৃষ্ণাঙ্গ জীবন বিয়োগের ঘটনায় রাজপথে মিছিলে যোগ দেন।

সেদিন বৃহত্তর টরন্টোয় আয়োজিত কয়েকটি সমাবেশের একটি ন্যাথান ফিলিপস স্কোয়ারে হয়েছে, তাতে কানাডা ও বাংলাদেশে সুদীর্ঘ বছরের সমাজসেবায় আত্মনিবেদিত প্রবাসী শমসের আলী হেলাল ‘আপনাদের উপর শান্তি বর্ষিত হোক; এটা অভিন্ন বিশ্বের মানবজাতির জন্য একতাবদ্ধ হবার সময়’ প্ল্যাকার্ড হাতে হাজির হন।

ওই সমাবেশে অংশগ্রহণকারীদের অধিকাংশই ছিলেন বয়সে নবীন; তাদের সবাই ইউনিভাসির্টি অ্যাভিনিউস্থ মার্কিন যুক্তরােেষ্ট্রর কনস্যূলেটের সামনে প্ল্যাকার্ড হাতে সমস্বরে শ্লোগান দেন- ‘কৃষ্ণাঙ্গ জীবন অর্থবহ’, ‘ন্যায়বিচারহীনতা শান্তির পরিপন্থী’ এবং ‘অস্তিত্ব মানুন নতুবা প্রতিরোধ দেখুন’। সেখানে টরন্টোর পুলিশ ইন্সপেক্টর ম্যাট ময়ার শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভে অভিভূত হয়ে অন্যদের সঙ্গে এক হাঁটু গেড়ে আট মিনিট ছেচল্লিশ সেকেন্ড বসে পড়েন। এছাড়াও ৭ বছর আগে পুলিশের হাতে নিহত সিরিয়ার অভিবাসী তরুণ স্যামী ইয়াতিমের শোকার্ত মাতা ডা. সাহার বাহাদি বলেন, ‘পুলিশ কাউকে গুলির আগে যেন হাজারবার ভাবুক’।   


[email protected] Weekly Bengali Times

-->