রোজায় কিডনি-ডায়বেটিস রোগীদের সর্বোচ্চ সতর্ক থাকার পরামর্শ

২৫ এপ্রিল ২০২০


রোজায় কিডনি-ডায়বেটিস রোগীদের সর্বোচ্চ সতর্ক থাকার পরামর্শ

করোনা সংক্রমণের ঝুঁকি এড়াতে রোজায় কিডনি ও ডায়বেটিস রোগীদের সর্বোচ্চ সতর্ক থাকার পরামর্শ দিয়েছেন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা।
বিশেষজ্ঞরা বলছেন, প্রাথমিক অবস্থায় থাকা রোগীদের স্বাস্থ্যবিধি মেনে রোজা রাখতে কোনো অসুবিধা নেই। তবে উচ্চ ঝুঁকিতে থাকা ব্যক্তিদের রোজা রাখার ক্ষেত্রে সতর্ক থাকতে হবে। পাশাপাশি কোডিভ ১৯ এর সংক্রমণ এড়াতে বাড়িতেই তারাবিহ নামাজ আদায়ের পরামর্শ দিচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা।
রোজায় এমনিতেই বাড়তি সতর্কতায় থাকতে হয় কিডনি আর ডায়বেটিস রোগীদের। কোভিড ১৯ এর গণসংক্রমণের কারণে এবারের বাস্তবতা আরো উদ্বেগের। বিশেষজ্ঞদের মতে, করোনাভাইরাসের উচ্চ ঝুঁকিতে কিডনি ও ডায়বেটিস রোগীরা। তাই প্রশ্ন আসে, ভিন্ন প্রেক্ষাপটের এবারের রোজায় কিভাবে স্বাস্থ্য ঝুঁকি এড়িয়ে চলবেন তারা?
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের ইউরোলজি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. তৌহিদ মো. সাইফুল ইসলাম বলেন, রোজা রাখা আমাদের জন্য ফরজ। যদি শরীর না চলে সেক্ষেত্রে ভিন্ন কথা। কিন্তু আমি কিডনি রোগীদের জন্য বলবো আপনারা আপনাদের যে পরিমিত পানি পান করার কথা সেটা আপনারা করবেন। যদি কিডনির অবস্থা খারাপ থাকে তাহলে ডাল বা প্রোটিন জাতীয় খাবার এড়িয়ে চলতে হবে।
করোনা সংক্রমণের ঝুঁকি এড়াতে এ ধরণের রোগীদের বাড়িতেই তারাবিহ নামাজ আদায়ের করা পরামর্শ দেন তিনি। তাতে করে তিনি নিজেকেও নিারাপদ রাখতে পারবেন  এবং তার পরিবারকেও বলেনি এ বিশেষজ্ঞ।
করোনা-সময়ের রোজায় ডায়বেটিস রোগীদের সুগার নিয়ন্ত্রণ, সেহরিতে শেষ সময়ে পর্যাপ্ত খাবার গ্রহণ, ইফতারে ভাজাপোড়া পরিহার, যথেষ্ট পানি পান, ফলমূল খাওয়া, বাড়িতে হালকা ব্যায়ামের ওপর জোর দিচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা।
 গ্রিন লাইফ হাসপাতালে হরমোন ও ডায়বেটিস বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. তানজিনা হোসেন বলেন, যাদের হাইপো হওয়ার ইতিহাস আছে তাদের রোজা না রাখাই ভালো। আর যাদের এটা নিয়ন্ত্রণে আছে, যাদের বয়স কম এবং অন্যান্য জটিলতা নেই তাদের কোনো সমস্যা হবে না।  যেমন যাদের হার্ট বা কিডনির কোনো সমস্যা নেই, বা গর্ভবতী নন তাদের  রোজা  রাখতে কোনো সমস্যা নেই।
করোনা সংক্রমণের ঝুঁকি এড়াতে এ ধরণের রোগীদের বাড়িতেই তারাবিহ নামাজ আদায়ের পরামর্শ  দেন এ বিশেষজ্ঞ।
তিনি বলেন, তারাবির নামাজ ঘরেই পড়ুন, এই সময়ে ঘরে থাকার চেষ্টা করুন। আর আপনার ডায়াবেটিস সুনিন্ত্রণের রাখার চেষ্টা করুন।
 এছাড়া অন্যদের মতো কিডনি ও ডায়বেটিস রোগীদেরও নিয়মিত হাতধোয়া, জনসমাগম এড়ানো, নিরাপদ শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখার পরামর্শ দিচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা।