অভিনেত্রীদের যৌন নির্যাতন: হলিউড প্রযোজকের ২৩ বছর কারাদণ্ড

১২ মার্চ ২০২০


অভিনেত্রীদের যৌন নির্যাতন: হলিউড প্রযোজকের ২৩ বছর কারাদণ্ড

দীর্ঘদিনে আইনী লড়াইয়ের পর অবশেষে ২৩ বছরের কারাদণ্ড পেলেন হলিউডের প্রযোজক হার্ভে ওয়াইনস্টাইন। এই দণ্ড দিয়েছে নিউইয়র্কের একটি আদালত। প্রযোজক হার্ভেকে দিয়েই মূলত #MeToo আন্দোলন শুরু হয়। এর আগে বেশ কিছু অভিযোগের ভিত্তিতে গত ২৫ ফেব্রুয়ারি হার্ভেকে দোষী সাব্যস্ত করেছিলেন নিউইয়র্কের আদালত। এর পরই তাকে আটক করে নিজেদের হেফাজতে নেয় কর্তৃপক্ষ।

সেসময় তাকে জানানো হয়েছিল কমপক্ষে ৫ বছর থেকে সর্বোচ্চ ২৫ বছরের কারাদণ্ড হতে পারে প্রভাবশালী এই প্রযোজকের। অবশেষে সেই সাজা হলো ২৩ বছরের।

বিশ্বজুড়ে তৈরি হওয়া #MeToo ঝড় প্রথম উঠে হার্ভে ওয়েনস্টেইনকে ঘিরেই। প্রথমে এক অভিনেত্রী-মডেল সাহস করে মুখ খুলেছিলেন হলিউডের এই দাপুটে প্রযোজকের বিরুদ্ধে। তার প্রতিবাদ সাহস জুগিয়েছিল বাকিদের। এর পরই একে একে সরব হন বাকিরা। তিরিশেরও বেশি অভিযোগ ওঠে বাফটাজয়ী এই প্রযোজকের বিরুদ্ধে।

অভিযোগকারীদের মধ্যে অ্যাশলে জুড, রোজ ম্যাকগোয়ানের মতো অভিনেত্রীরাও আছেন। যদিও সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করে আসছেন ‘শেক্সপিয়ার ইন লাভ’, ‘দ্য কিংস স্পিচ’, ‘পাল্প ফিকশন ’-এর মতো বিখ্যাত সিনেমার প্রযোজক।

নিজের এই ক্ষমতা অপব্যবহার করেই বহু মহিলার সঙ্গে ওয়েনস্টাইন অশ্লীল আচরণ করেছেন বলে অভিযোগ। সিনেমায় সুযোগ পাইয়ে দেওয়ার প্রতিশ্রুতির বিনিময়ে নবাগতদের হোটেল রুমে ডাকতেন তিনি। সেখানে তাদের নানাভাবে হেনস্থা করতেন তিনি।

গত ৬ জানুয়ারি হার্ভে ওয়াইনস্টাইনের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগের বিচার শুরু হয় নিউইয়র্কের আদালতে। সোমবার মামলার রায় ঘোষণা করেছে জুরি বোর্ড। ২০০৬ সালে মিমি হ্যালেইকে যৌন নির্যাতন এবং জেসিকা মানকে ২০১৩ সালে ধর্ষণের অভিযোগে হার্ভে ওয়াইনস্টাইনকে দোষী সাব্যস্ত করেছে মার্কিন আদালত। তবে যৌন আঘাতের গুরুতর অভিযোগ থেকে তাকে নিষ্কৃতি দেওয়া হয়েছে।