খালেদা জিয়ার জামিন শুনানি রোববার

১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০


খালেদা জিয়ার জামিন শুনানি রোববার

জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় বেগম জিয়ার জামিন আবেদন আবার শুনবেন হাইকোর্ট। শুনানির জন্য রোববার দিন ধার্য করা হয়েছে। তবে আপিল বিভাগে খারিজের পর হাইকোর্টে কেন? এমন প্রশ্ন তোলেন আদালত।

পরে বেগম জিয়ার আইনজীবীরা জানান, তিনি এখন জীবন মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে রয়েছেন। দুদকের আইনজীবী বলেছেন, জামিন ঠেকাতে আইনি লড়াই চালাবেন তারা। অপরাধের গভীরতা বিবেচনায় যে বিচারপতির বেঞ্চ বেগম জিয়ার জামিন খারিজ করেছিল, সেই বেঞ্চেই বুধবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) চাওয়া হলো জামিন।

আবেদন দাখিল করার সময় আদালত প্রশ্ন রাখেন, আপিল বিভাগে খারিজের পর তারা আবার হাইকোর্টে জামিন চাইলেন কেন? উত্তরে বেগম জিয়ার আইনজীবীরা বলেন, বারবার জামিন চাওয়ার সুযোগ রয়েছে। পরে শুনানির জন্য রোববার দিন ধার্য করা হয়। তাঁর আইনজীবীরা বলছেন, বিএনপি নেত্রী এখন জীবন মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে রয়েছেন।

আইনজীবী জয়নুল আবেদীন বলেন, যেহেতু চিকিৎসা সে সঠিকভাবে পাচ্ছে না। যার কারণে বেগম জিয়া এখন খারাপ অবস্থায় আছে। এ জন্য আমরা আবার আজকে জামিন আবেদন করেছি। আদালত আবেদন গ্রহণ করেছেন। এবং আগামী রোববার তা শুনবেন। দুদক আইনজীবী বলছেন, জামিন আবেদনে নতুন যুক্তি দেখাতে পারেননি তারা।

দুদক আইনজীবী খুরশীদ বলেন, নতুন একটা কথা বলেছেন যে ১২-১২-২০১৯ এর পর থেকে ওনার অবস্থা খারাপের দিকে যাচ্ছে। আপিল বিভাগের রায় এই ১২ তারিখে ছিল। আমরা সব প্রশ্নের জবাব দিতে আইনগত ভাবে প্রস্তুত। দুর্নীতি দমন কমিশনের পক্ষ থেকে এটা আইনি ভাবে মোকাবেলা করা হবে।

২০১৮ সালে ৮ ফেব্রুয়ারি দুনীতির মামলায় দণ্ডিত হওয়ার পর গত দশ মাসেরও বেশি সময় ধরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন বিএনপি নেত্রী।