একই পরিবারের দগ্ধ ৮ : মায়ের পর চলে গেলেন ছেলেও

১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০


একই পরিবারের দগ্ধ ৮ : মায়ের পর চলে গেলেন ছেলেও

নারায়ণগঞ্জ সিদ্ধিরগঞ্জের সাইনবোর্ড সাহেব পাড়া এলাকায় আগুনের ঘটনায় মায়ের পর ছেলেও মারা গেছেন। আজ মঙ্গলবার সকালে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

নিহতের নাম কিরন মিয়া (৪২)। তার শরীরের ৭০ শতাংশ পুড়ে গিয়েছিল বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।এর আগে গতকাল সোমবার নুরজাহান (৬০) নামে এক নারী মারা যান। তার শরীরের শতভাগই দগ্ধ ছিল। তিনি কিরনের মা।

ঢামেক হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ পরিদর্শক মো. বাচ্চু মিয়া বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, আগুনের ঘটনায় এখন পর্যন্ত দুজন মারা গেলেন। তবে চিকিৎসাধীন আরও কয়েকজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।

সোমবার ভোর সাড়ে ৫টার দিকে নারায়ণগঞ্জ সিদ্ধিরগঞ্জ থানাধীন সাইনবোর্ড এলাকায় আগুনে একই পরিবারের আটজন দগ্ধ হন। পরে তাদের উদ্ধার করে ঢামেক হাসপাতালে বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান দুজন।

এ ঘটনায় দগ্ধ অন্যরা হলেন- মো. আবুল হোসেন (২৫), মো. হিরন মিয়া (২৫), মো. কাওছার (১৬), মুক্তা (২০), লিমা (৩) ও আপন (১০)। স্বজনরা জানায়, গ্যাস লাইন লিকেজ থেকে আগুন লেগে দুর্ঘটনাটি ঘটেছে। তাদের গ্রামের বাড়ি নরসিংদীর জেলার শিবপুর উপজেলায়।

ইলিয়াস নামে তাদের এক স্বজন বলেন, ‘কিরনের লাশ আমরা হাসপাতাল থেকে নিয়ে এসেছি। কিছুক্ষণ পরে সাইনবোর্ড এলাকায় তার জানাজার পরে দাফনের ব্যবস্থা করা হবে।’

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন বাকি ছয়জনকে নিয়ে তারা চিন্তায় আছেন বলেও জানান ইলিয়াস।