প্রকাশক পেলেন সেই লেখক

১২ ফেব্রুয়ারি ২০২০


প্রকাশক পেলেন সেই লেখক

বয়স তার ৮৬ বছর। কাঁধে ব্যাগ, ব্যাগের ভেতর নিজের লেখা বই। ২০ বছর ধরে অমর একুশে বই মেলায় হেঁটে হেঁটে সেই বই ফেরি করছেন তিনি। ব্যক্তি জীবন বর্ণিল হলেও পোশাক আর চলাফেরায় সাধারণ মানুষটি হচ্ছেন ড. ফয়জুর রহমান আল সিদ্দিক।

প্রবীণ বিজ্ঞানী ফয়জুর রহমানের লেখা বইয়ের নাম 'বাঙালির জয়, বাঙালির ব্যর্থতা'। বইটি ছাপানোর যে খরচ, তিনি শুধু সেই টাকা নিয়ে বইটি বিক্রি করছিলেন। হেঁটে হেঁটে বই ফেরি করার বিষয়ে ড. ফয়জুর রহমান আল সিদ্দিক বলেন, ২০ বছর আগে প্রথম প্রকাশের পর বইটি নিয়ে আর কেউ আগ্রহ প্রকাশ করেনি। কেউ প্রকাশ না করলেও ফটোকপি করে বইটি নিজেই পাঠকের হাতে পৌঁছানোর চেষ্টা করছেন। খবর সমকাল'র।

এ নিয়ে গত কয়েকদিন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ব্যাপক আলোচনা হয়েছে। এরপর বইটি প্রকাশের বিষয়ে সহযোগিতা করার আগ্রহ প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশ ডাক বিভাগের ডিজিটাল লেনদেন 'নগদ' এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক তানভীর আহমেদ মিশুক। সোমবার রাতে বনানীতে ড. ফয়জুর রহমানের সঙ্গে এ বিষয়ে আলোচনা করে বইটি প্রকাশের অনুমতি নেন তিনি। পরে প্রকাশনা প্রতিষ্ঠান বাংলা প্রকাশের সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দেন তানভীর আহমেদ।

বইটি প্রকাশের বিষয়ে বাংলা প্রকাশের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এম শরীফুল আলম বলেন, বিভিন্ন মাধ্যমে বিষয়টি সম্পর্কে জানতে পারি। বইটি দেখার পর মনে হলো এটি আরও বড় পরিসরে পাঠকের কাছে পৌঁছে দেওয়া সম্ভব। আর এই উদ্যোগ নিয়েছেন 'নগদ' এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক তানভীর আহমেদ মিশুক। আশা করছি আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে নতুন করে বইটি প্রকাশ করতে পারব।

‘বাঙালির জয়, বাঙালির ব্যর্থতা’ বইটিতে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে কথা বলার চেষ্টা করেছেন ড. ফয়জুর রহমান। ‘বাঙালির দাস মনোবৃত্তি’, ‘রোগের নাম পাকিফিলিয়া’, ‘আমাদের সমাজ ও সংস্কৃতিতে অজ্ঞতার প্রকোপ’– এমন ১৬টি অনুচ্ছেদে বইটি বিন্যস্ত করেছেন তিনি।

১৯৩৪ সালে ঢাকা জেলার নবাবগঞ্জ উপজেলার চরমধুচারিয়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন ড. ফয়জুর রহমান আল সিদ্দিক। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে রসায়নে স্নাতক সম্পন্ন করেন। এরপর থিসিস গ্রুপে এমএসসি ডিগ্রি লাভ করে পোস্ট এমএসসি গবেষণায় অংশগ্রহণ করেন।

ইংল্যান্ডের ক্যামব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করেন তিনি। পরে ইরানের তেহরান নিউক্লিয় বিজ্ঞান ইন্সটিটিউট থেকে পোস্ট এমএসসি গবেষণা করে তিনি সুইজারল্যান্ডের ফেডারেল নিউক্লিয়ার ইন্সটিটিউট থেকে পোস্ট ডক্টরাল সম্পন্ন করেন।