মেহ্জাবীনের এ কী রূপ

৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০


মেহ্জাবীনের এ কী রূপ

অভিনেত্রী মেহ্জাবীন চৌধুরীর ফেসবুক পাতায় ঘুরছে তাঁর অভিনীত একটি নাটকের ছবি। ছবিতে দেখা যাচ্ছে, ভেঙে পড়া ইটসুরকির স্তূপের ভেতরে চাপা পড়েছেন মেহ্জাবীন। তিনি জানান, এটি সঞ্জয় সমদ্দার পরিচালিত শিফট নাটকের স্থিরচিত্র। নাটকটিতে পোশাককর্মী মায়ার চরিত্রে অভিনয় করেছেন তিনি। একদিন কারখানাটি ভেঙে পড়ে। সেখানে চাপা পড়ে মারা যান মেহ্জাবীন। এটি চাপা পড়া মুহূর্তের ছবি। তাঁর সর্বশেষ শুটিং করা নাটক।

শুধু মায়া নয়, একের পর এক ব্যতিক্রমী চরিত্রে অভিনয় করে যাচ্ছেন ছোট পর্দার এই অভিনয়শিল্পী। চারুর বিয়ে নাটকে তরুণী চারু, ফ্রেম নাটকে চা বিক্রেতা, কেন নাটকে স্কুলশিক্ষার্থী, সিগনেচার নাটকে ফেরিওয়ালা, ভিক্ষুকসহ বিভিন্ন নাটকে বৈচিত্র্যময় চরিত্রে নিরীক্ষাধর্মী অভিনয় করে চলেছেন তিনি। কেমন করে তৈরি হন প্রতিটি চরিত্রের জন্য। মেহ্জাবীন বলেন, চরিত্রগুলোর জন্য একটা প্রস্তুতির মধ্য দিয়ে যেতে হয়। যদিও মাসব্যাপী একের পর এক নাটকে কাজ করে নানা ধরনের চরিত্রে প্রস্তুত হওয়া কঠিন। সময়ও পাওয়া যায় না। চেহারা, পোশাক ও অভিনয় নিয়ে চিন্তা করার সময় কম পাওয়া যায়। তবু চেষ্টা করি। চরিত্রগুলো তুলতে আশপাশের বাস্তব জীবন থেকে দেখা অভিজ্ঞতা নিয়ে প্রস্তুতি নিই। পরিচালক ও সহশিল্পীর সহযোগিতা নিয়ে কাজটি করি।

মেহ্জাবীন আরও বলেন, আমরা এখানে কেউ মাসে ২৫ দিন কিংবা ৩০ দিনই কাজ করছি। তার মধ্যে প্রতিদিনই ভিন্ন ভিন্ন চরিত্রে ক্যামেরার সামনে দাঁড়াতে হচ্ছে। পৃথিবীর কোনো দেশেই হয়তো এভাবে কাজ হয় না। সম্ভবও না। আমরা করছি। দর্শকের কাছে আমরা দিন দিন সুপার হিউম্যান হয়ে যাচ্ছি।

তবে যদি এই ইন্ডাস্ট্রিতে শুটিংয়ের আগে চরিত্র নির্মাণের বিষয়টি নিয়ে ভাবার আলাদা লোক থাকত, তাহলে শিল্পীরা শুধু অভিনয় নিয়েই ভাবতে পারতেন। এটি এখনো এখানে গড়ে ওঠেনিএমন অভিমত এই অভিনেত্রীর। তিনি বলেন, শুধু চরিত্রের লুক কিংবা পোশাক ঠিক হলেই চরিত্রটি ফুটিয়ে তোলা যায় না। চরিত্রের অঙ্গভঙ্গি, সংলাপ, হাঁটাচলাও ঠিকঠাক হতে হবে। তবেই চরিত্রটি পূর্ণতা পায়।

অনেকেই এখন গ্ল্যামার চরিত্রকে বেশি প্রাধান্য দেন। কিন্তু লাক্স তারকা হিসেবে গ্ল্যামার জগৎ থেকে এসেও ওদিকে নজর কম মেহ্জাবীনের। বললেন, অভিনয় আমার পেশা। তাই একধরনের চরিত্রে কাজ করতে চাই না। পেশাদার অভিনেত্রী হিসেবে সমাজের নানা ধরনের চরিত্রে কাজ করা আমার দায়িত্ব। এটি উপভোগও করি। আরও বেশি নিরীক্ষাধর্মী কাজ করতে চাই। নিজেকে প্রকাশ করতে চাই।
মেহ্জাবীনের কথা, ২০ বছর পর যদি তাঁকে কেউ জিজ্ঞাসা করেন, এই চরিত্রটি কি তুমি করেছ? তিনি যেন বলতে পারেন,
হ্যাঁ, এই চরিত্রটিও আমি করেছি। তিনি বলেন, আমি আশপাশে দেখা সব চরিত্রেই অভিনয় করতে চাই। এখন মেকআপ ছাড়াই কাজ করতে বেশি ভালো লাগে।