সড়ক দুর্ঘটনায় চট্টগ্রামের পুলিশ কনস্টেবলসহ দুজনের মৃত্যু

১১ জানুয়ারী ২০২০


সড়ক দুর্ঘটনায় চট্টগ্রামের পুলিশ কনস্টেবলসহ দুজনের মৃত্যু

 কাভার্ড ভ্যানের সঙ্গে মোটরসাইকেলের মুখোমুখি ধাক্কায় চট্টগ্রামের একজন পুলিশ কনস্টেবল ও তার বন্ধু মারা গেছেন। মো. আলমগীর হোসেন নামের ওই কনস্টেবল পুলিশের চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি’র প্রটোকল টিমের সদস্য। শনিবার (১১ জানুয়ারি) ভোরে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহামড়কের সীতাকুন্ডের ফৌজদারহাট বাইপাস মোড়ে এ ঘটনা ঘটেছে বলে জানিয়েছেন, চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের পুলিশ ফাঁড়িতে দায়িত্বরত এএসআই আলাউদ্দিন তালুকদার। জানা গেছে, শনিবার ভোরে কুমিল্লা থেকে মোটরসাইকেলে চট্টগ্রাম যাচ্ছিলেন পুলিশ কনস্টেবল মো. আলমগীর হোসেন (২৪) ও তার বন্ধু শহীদুল ইসলাম (২৮)। এ সময় চট্টগ্রামের দিক থেকে আসা একটি কাভার্ডভ্যান সীতাকুন্ডের কাছে ফৌজদারহাট বাইপাস মোড়ে এলে তাদের মোটরসাইকেলের সঙ্গে মুখোমুখি ধাক্কা লাগে। এ ঘটনায় গুরুত্বর আহত অবস্থায় তাদের চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হলেও কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে তাদের মৃত ঘোষণা করেন।

পুলিশ কনস্টেবল মো. আলমগীর হোসেনের এর বাড়ি পারুয়া বুড়িচঙ উপজেলায়। তার পিতার নাম আব্দুর রশিদ। আর তার বন্ধু শহীদুল ইসলামের এর বাড়ি বুড়িচঙ উপজেলার কংসনগরে। তার পিতার নাম জাফর আলম।

এর আগে গত ২৮ ডিসেম্বর একই স্থানে ব্যাংক কর্মকর্তার পুরো পরিবার দুর্ঘটনায় পড়েন। তাদের ব্যক্তিগত গাড়িটি দুমড়েমুচড়ে যায় এবং ব্যাংক কর্মকর্তা ও তার ছেলে মারা গেলেও বেঁচে যান স্ত্রী ও মেয়ে।

এর গত ২৮ ডিসেম্বর ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের ফৌজদারহাট বাইপাস সড়কে দুর্ঘটনায় বাংলাদেশ ব্যাংকের এক কর্মকর্তা ও তার দুই মেয়ে মারা গেছেন । আহত হয়েছেন তার স্ত্রী ও ১০ বছর বয়সী এক ছেলে।

ব্যাংক কর্মকর্তা সাইফুজ্জামান তার স্ত্রী ও ছেলে-মেয়েদের নিয়ে প্রাইভেটকারে ঢাকায় যাচ্ছিলেন। প্রাইভেটকারটি ফৌজদারহাট বাইপাস সড়কে এলে ঢাকা থেকে চট্টগ্রামমুখী একটি লরি তাদের প্রাইভেটকারে ধাক্কা দিলে ওই দুর্ঘটনা ঘটে।