বিএনপির এমপিদের পদত্যাগ পদত্যাগ চায় ২০ দল

৩০ ডিসেম্বর ২০১৯


বিএনপির এমপিদের পদত্যাগ পদত্যাগ চায় ২০ দল

গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার ও খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে বিএনপির এমপিদের সংসদ থেকে পদত্যাগ করে রাজপথের আন্দোলনে শরিক হওয়ার আহ্বান জানিয়েছে ২০ দলীয় জোট। জোটের নেতারা বলেছেন, একাদশ সংসদ নির্বাচনের বর্ষপূর্তির দিনটিকে একদিকে আমরা গণতন্ত্র হত্যা ও ভোটাধিকার হরণ দিবস হিসেবে পালন করছি, অন্যদিকে ধানের শীষের এমপিরা সংসদে রয়েছেন। এমন দ্বিমুখী আচরণ মানুষ ভালোভাবে নেবে না।

সোমবার (৩০ ডিসেম্বর) সন্ধ্যায় রাজধানীর সেগুনবাগিচায় ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির নসরুল হামিদ মিলনায়তনে ২০ দলীয় জোটের উদ্যোগে আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন জোট নেতারা। 

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ২০ দলের সমন্বয়ক ও বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান বলেন, গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার ও খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে ২০ দলীয় জোটের নেতারা এখানে জোরদার আন্দোলনের কথা বলেছেন। আমরাও মনে করি, সংকট উত্তরণে জোরদার আন্দোলনের কোনো বিকল্প নেই। সবাই মিলে সেই আন্দোলনের রণকৌশল ঠিক করতে হবে। আমরা শুধু কর্মসূচি দিতে চাই না, সেটা বাস্তবায়নও করতে চাই। 

২০ দলীয় জোট নেতাদের উদ্দেশে জোটের এ সমন্বয়কারী বলেন, লড়াইয়ের ময়দানে কে কতটুকু সাহসিকতার সঙ্গে নেতৃত্ব দিতে পারবেন- সেটাই বড় কথা। শুধু বক্তব্যের মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকলে হবে না।

নজরুল ইসলাম খানের সভাপতিত্বে ও লেবার পার্টির চেয়ারম্যান ডা. মোস্তাফিজুর রহমান ইরানের সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য রাখেন জামায়াতে ইসলামীর সেক্রেটারি জেনারেল মিয়া গোলাম পরওয়ার, জমিয়তে ওলামায়ে ইসলামের মাওলানা মহিউদ্দিন ইকরাম, এলডিপির একাংশের সদস্য সচিব শাহাদাত হোসেন সেলিম, ন্যাপ-ভাসানীর চেয়ারম্যান আজহারুল ইসলাম প্রমুখ। উপস্থিত ছিলেন ন্যাপ-ভাসানীর সভাপতি অ্যাডভোকেট আজহারুল ইসলাম, জাগপার একাংশের সাধারণ সম্পাদক খন্দকার লুৎফর রহমান, ইসলামী ঐক্যজোটের একাংশের মহাসচিব মাওলানা আব্দুল করিম, কল্যাণ পার্টির সহ-সভাপতি মাহমুদ খান, এলডিপির একাংশের প্রেসিডিয়াম সদস্য মুক্তিযোদ্ধা ইসমাইল হোসেন বেঙ্গল, পিপলস লীগের মহাসচিব সৈয়দ মাহবুব হোসেন প্রমুখ।

আলোচনা সভায় ২০ দলীয় জোটের অন্যতম শরিক বাংলাদেশ জাতীয় দলের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট সৈয়দ এহসানুল হুদা প্রটোকল সমস্যার কারণে সভাস্থল ছেড়ে চলে যান। এসময় অনুষ্ঠানের সঞ্চালক মোস্তাফিজুর রহমান ইরানের সঙ্গে কয়েক জোট নেতার তর্কাতর্কির ঘটনাও ঘটে।