দেশ অচল করে দেয়ার হুমকি মান্নার

৩০ ডিসেম্বর ২০১৯


দেশ অচল করে দেয়ার হুমকি মান্নার

 ৩০শে ডিসেম্বরকে গণতন্ত্র হত্যা দিবস দাবি করে বাম গণতান্ত্রিক জোটের বিক্ষোভ মিছিল পুলিশের বাধায় পণ্ড হয়ে গেছে। এ সময় পুলিশের লাঠিপেটায় আহত হয়েছেন গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়ক জোনায়েদ সাকিসহ অন্তত ৩০ জন। আজ সোমবার বাম গণতান্ত্রিক জোটের কালো পতাকা মিছিল শুরু হয় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে থেকে। হাইকোর্ট হয়ে মৎস্য ভবন মোড়ে যেতে থাকে মিছিলটি। মৎস্য ভবন মোড়ে বাধ সাধে পুলিশ। বাধা অতিক্রম করে মিছিল এগোতে চাইলে বাঁধে সংঘর্ষ। লাঠিপেটার পাশাপাশি টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে পুলিশ। সংঘর্ষে জোটের অন্তত ২০ নেতাকর্মী আহত হন। পুলিশের দাবি, তাদেরও ৮ সদস্য আহত হয়েছেন।

আহতদের নেয়া হয় ঢাকা মেডিকেলে। বাম জোটের নেতাকর্মীদের অভিযোগ, পুলিশ তাদের শান্তিপূর্ণ কর্মসূচিতে বাধা দিয়েছে। যে মৎস্য ভবন এলাকায় বাম জোটের সাথে পুলিশের সংঘর্ষ হয়, সেখানেই পরে সমাবেশ করে নাগরিক ঐক্য। এতে সংহতি জানায় বিএনপিসহ বেশ কয়েকটি দল।

এদিকে নাগরিক ঐক্যের সমাবেশে মাহমুদুর রহমান মান্না হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছেন, সরকারের নির্যাতন অব্যাহত থাকলে দেশ অচল করে দেয়া হবে।

মান্না বলেন, আজ থেকে আমরা গণতন্ত্র উদ্ধার আন্দোলনের ডাক দিয়েছি। এই আন্দোলনে আমরা জিতবো এবং এই আন্দোলনের মাধ্যমেই গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার করবো। এই আন্দোলন সবার। আজ থেকে লড়াই শুরু করেছি, এ লড়াই চলবে।’

মান্না বলেন. আমি বলি, পাড়ায় পাড়ায় কমিটি (নতুন সংগঠন) করা শুরু করেন। যত তাড়াতাড়ি করবো, তত তাড়াতাড়ি প্রথম এই সরকারকে কার্ড দেখাব। কী কার্ড? আগে হলুদ কার্ড দেখাই, পরে আরেকটা হলুদ কার্ড দেবো।

তিনি বলেন, ভাই একবারে লাল কার্ড দিলে সেটা যদি রং না থাকে। কার্ড যদি দেই তাহলে ওই কার্ড কার্যকরী করতে হবে। অতত্রব একটু হিসাব করেই নামছি। আমি শুধু এটা বলতে চাই যেভাবে আজ এখানে ঐক্যবদ্ধ হয়েছে, এভাবে সারাদেশের জনগণকে ঐক্যবদ্ধ করবার জন্য যেটুকু কাজ করার জন্য দরকার তা করতে হবে। আর এর মধ্যে যদি বড় কিছু ঘটে তাহলে তৈরি থাকেন যেকোনো সময়ে এই সরকারের পতনের জন্য সর্বাত্মক আন্দোলনের কর্মসূচি দেবো। প্রতিজ্ঞা একটা আমরা এই আন্দোলন কবর, আজ থেকে সেই আ্ন্দোলনের শুরু। আজ থেকেই লড়াই শুরু। এই লড়াই চলবে যতক্ষন পর্যন্ত বিজয় অর্জিত না হচ্ছে ততক্ষন পর্যন্ত আমাদের লড়াই চলবে।

তিনি বলেন, আজকে সমাবেশ করছি। আমরা আবার আসব শেখ হাসিনার পতন না হওয়া পর্যন্ত আমরা আছি, যাবো না।

সরকারকে উদ্দেশ্য করে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের সভাপতি আসম আবদুর রব বলেন, উনি পারলে বোধহয় সূর্যটাও ডুবায়ে দেবেন। আপনারা এখানে বক্তব্য শুনেছে। একটাই বলতে চাই-যাবেন, তবে ভদ্র ভাবে যাবেন না অভদ্র যাবেন-এটা ডিসাইড করেন। আপনাকে যেতে হবে। আপনার থাকার আর কোনো সুযোগ নাই। সব রাস্তায় বন্ধ হয়ে গেছে। কিভাবে যাবেন আপনি সিদ্ধান্ত নিন।

তিনি বলেন, দেশটা বিক্রি করে দিয়ে ক্ষমতায় থাকতে চায়। দেশ বিক্রি করে দিয়ে আজকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে আমি কবর থেকে তুলতে পারলে জিজ্ঞাসা করতাম-এজন্য কী জীবন দিয়ে মুক্তিযুদ্ধের গিয়েছিলাম-এই বাংলাদেশ, আজকে ডাকাতদের এই বাংলাদেশ দেখার জন্য। আমি আল্লাহর কাছে বলি এই দুস্য, এই খুনী সন্ত্রাসী, এই মিথ্যুক, এই জুলুমবাজ, এই চাঁদাবাজের পতনের আগে আমার নিও না। ওরা লক্ষ লক্ষ কোটি কোটি টাকা বিদেশে নিয়ে গেছে, অনেকে লন্ডনে বাড়ি করেছে, আমেরিকা, কানাডায় বাড়ি করেছে। এরা গোষ্ঠিতন্ত্র, পরিবারতন্ত্র কায়েম করেছে। একে রুখতে হবে, এদের বিদায় করতে হবে।