বিজেম অ্যাওয়ার্ডে ভূষিত হলেন ডা: ফারহানা মোবিন

২৪ ডিসেম্বর ২০১৯


বিজেম অ্যাওয়ার্ডে ভূষিত হলেন ডা: ফারহানা মোবিন

বাংলাদেশ ইন্সটিটিউট অব জার্নালিজম অ্যান্ড ইলেক্ট্রনিক মিডিয়া (বিজেম) যাত্রা শুরু করে ২০০৩ সালে। দেশের স্বনামধন্য জার্নালিজম অ্যান্ড ইলেক্ট্রনিক মিডিয়াগুলোর মধ্যে এই প্রতিষ্ঠানটি অন্যতম। প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়াতে লেখালেখির কলাকৌশল, টিভি সাংবাদিকতা, মিডিয়াতে নিজেকে সফলভাবে উপস্থাপনের জন্য বহুবিধ কোর্স পরিচালিত হয় এই প্রতিষ্ঠানে।

রাজধানী ঢাকার কাঁটাবন ঢালে ২০০৩ সাল থেকে এই প্রতিষ্ঠান টি দৃঢ়তার সাথে কাজ করে চলেছে। ১৭ বছরের এই পথ চলাতে আনুমানিক ১০ হাজার শিক্ষার্থীকে বিভিন্ন বিষয়ে প্রশিক্ষণ দিয়েছে বিজেম (www.bangla.bijem.org)।

বিজেম এর ২৫০ জন শিক্ষার্থী বিভিন্ন মিডিয়াতে (প্রিন্ট ও ভিজুয়াল) দক্ষতার সাথে কাজ করে চলেছে। প্রতিষ্ঠানের প্রধান ও নির্বাহী পরিচালক বীর মুক্তিযোদ্ধা জনাব মির্জা তারেকুল কাদেরের নেতৃত্বে ২১ ডিসেম্বর শনিবার দুপুর ১২টায় বিজেম এর সম্মেলন কক্ষে ‘টিভি সংবাদ উপস্থাপনা’ শীর্ষক প্রশিক্ষণ কোর্সের ২টি ব্যাচের সনদ বিতরণ অনুষ্ঠিত হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে সনদ বিতরণ করেন ডিবেট ফর ডেমোক্রেসির চেয়ারম্যান হাসান আহমেদ চৌধুরী কিরণ।

প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে বলেন, সংবাদ উপস্থাপনা কোর্সের মধ্য দিয়ে তরুণ প্রজন্ম তাদের উপস্থাপনা দক্ষতার এবং সৃষ্টিশীলতার উন্নয়ন সাধন করতে পারে।

বিজেম এর নির্বাহী পরিচালক মির্জা তারেকুল কাদেরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইউএনডিপি’র কনসালটেন্ট ও প্রজেক্ট ম্যানেজার ড. এস এম মোশেদ ও তথ্যচিত্র নির্মাতা ও উপস্থাপক মালিহা মেহনাজ শায়েরী।

সম্মানিত অতিথি হিসেবে আরো উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট লেখক ও সংগঠক ডা. ফারহানা মোবিন। তাত্ত্বিক ও ব্যবহারিক ক্লাসে সমৃদ্ধ উক্ত কোর্স দু’টি পরিচালনা করেন বিভিন্ন টেলিভিশনের খ্যাতিমান সংবাদ উপস্থাপক ও উচ্চারণ বিশেষজ্ঞগণ। সরকারি-বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজের ২৪ জন নারী শিক্ষার্থীসহ মোট ৫২ জন শিক্ষার্থী কোর্সটিতে অংশগ্রহণ করেন।

আজকের এই আয়োজনে বিজেম এর প্রাক্তন ৩ জন কৃতি শিক্ষার্থীকে এ্যাওয়ার্ড প্রদান করা হয়। তারা হলেন চিকিৎসক ও লেখক ফারহানা মোবিন, ভাবনা আহমেদ (নিউজ প্রেজেন্টার চ্যানেল এ.টি.এন), হাসান ফয়জী (মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি, এস.এ টি.ভি)।

‘বিজেম’ তার কৃতি শিক্ষার্থীদেরকে অনুপ্রাণিত করার জন্য সংবর্ধনা দেয়।

এরই ধারাবাহিকতায় চিকিৎসক লেখক ও সংগঠক ফারহানা মোবিনকে ‘বিজেম সম্মাননা অ্যাওয়ার্ড’ এ ভূষিত করে। ফারহানা মোবিন এই প্রতিষ্ঠানের নিউজ প্রেজেন্টেশন ও লেখালেখির কলাকৌশল বিষয়ক কোর্স-২০০৫ এর শিক্ষার্থী ছিলেন। উনার চিকিৎসা সেবা সামাজিক কাজকর্ম, দেশ-বিদেশের বিভিন্ন নিউজপেপারে লেখালেখি, বিভিন্ন টিভি চ্যানেলে স্বাস্থ্য বিষয়ক অনুষ্ঠানের জন্য উনাকে ‘বিজেম এর কৃতি শিক্ষার্থী’ হিসাবে ঘোষণা করা হয়।

ডা: ফারহানা মোবিন বলেন, ‘যে কোন কাজের প্রশিক্ষণ গ্রহণ করে, সেই মোতাবেক পরিশ্রম করলে সফলতা সম্ভব। ধৈর্য্য নিষ্ঠার সাথে চেষ্টা করতেই হবে। প্রিন্ট ও ভিজুয়াল মিডিয়াতে কাজ করার জন্য আমার জীবনে বিজেম এর অবদান অপরিসীম। দক্ষ প্রশিক্ষকের পাশাপাশি মির্জা তারেকুল কাদের ভাই এর অক্লান্ত পরিশ্রম, বন্ধুত্বসুলভ দিকনির্দেশনা, নিজেকে সামনে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার নিরন্তর প্রচেষ্টা, আমার জন্য পরম এক পাওয়া। আমি বিজেম এর সর্বাঙ্গীণ সাফল্য কামনা করি। তরুণ প্রজন্মকে গড়ে তোলার জন্য এই ধরনের যুগোপযোগী প্রতিষ্ঠানকে সহযোগিতার জন্য আমি সরকারের সুদৃষ্টি কামনা করি।’

উল্লেখ্য যে, বিজেম এর প্রাক্তন শিক্ষার্থী ফারহানা মোবিন ‘স্বাধীনতা সংসদ’ কর্তৃক চিকিৎসা সেবা, সামাজিক কাজকর্ম, দেশ-বিদেশের বিভিন্ন নিউজপেপারে লেখালেখি, বিভিন্ন টিভি চ্যানেলে স্বাস্থ্য বিষয়ক অনুষ্ঠানের জন্য ‘আলোকিত নারী সম্মাননা ২০১৯ অ্যাওয়ার্ড’ এ ভূষিত হন। এছাড়া ওম্যান ইন্টারপ্রেনিওরস অফ বাংলাদেশ (WEBD) থেকে উনার উল্লেখিত কাজ কর্মের জন্য ‘ওম্যান ইন্টারপ্রেনিওরস অ্যাওয়ার্ড ২০১৮’ অর্জন করেন।