দেশের প্রথম ফিফা নারী রেফারি হলেন জয়া চাকমা

২১ ডিসেম্বর ২০১৯


দেশের প্রথম ফিফা নারী রেফারি হলেন জয়া চাকমা

যাবতীয় প্রক্রিয়া সেরে রেখেছিলেন আগেই। এবার অনুমোদনও পেয়ে গেছেন। ফিফার স্বীকৃতিপ্রাপ্ত বাংলাদেশের প্রথম নারী রেফারি হিসেবে ইতিহাসের পাতায় জায়গা করে নিলেন জয়া চাকমা। ফিফার স্বীকৃতিপ্রাপ্ত রেফারি হতে তাদের নির্দেশনা অনুযায়ী গত আগস্টে বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামে ফিটনেস পরীক্ষা দেন জয়া। তার সঙ্গে ফিটনেস পরীক্ষা দেন সালমা ইসলাম মনিও। তাদের পরীক্ষার কাগজপত্র ফিফা বরাবর পাঠায় বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে)।

তাতে আন্তর্জাতিক ফুটবলার হিসেবে স্বীকৃতি মিলেছে জয়ার। বাফুফে’কে এক মেইল বার্তায় ফিফা সেটি নিশ্চিত করেছে। তবে, ২৩ বছর থেকে কম হওয়ায় সালমাকে আরও কিছুদিন অপেক্ষায় থাকতে হচ্ছে। আপাতত আগামী এক বছর মেয়েদের আন্তর্জাতিক ম্যাচ পরিচালনা করতে পারবেন জয়া।

দক্ষিণ এশিয়ায় চারজন নারী ফিফা রেফারির দায়িত্ব পালন করছেন। তাদের মধ্যে দুজন ভারতের আর একজন করে আছেন নেপাল ও ভুটানের। ফিফার পঞ্চম নারী রেফারি হতে অপেক্ষায় ছিলেন বাংলাদেশের জয়া।

খেলোয়াড়ী জীবনের পর ২০১০ সালে রেফারিংয়ে মনোনিবেশ করেন রাঙামাটির মেয়ে জয়া। এর আগে লেভেল ৩, ২ ও ১ কোর্স শেষ করে জাতীয় পর্যায়ের রেফারি হয়েছেন। পরে বিশ্ব ফুটবলের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা ফিফা রেফারি হওয়ার ফিটনেস টেস্টে উত্তীর্ণ হয়েছেন।

আন্তর্জাতিক রেফারি হিসেবে ফিফার তালিকাভূক্তির পর তাৎক্ষণিক এক প্রতিক্রিয়ায় জয়া বলেন, “ঘোষণাটির জন্য আমি অপেক্ষায় ছিলাম। এটা আমার কঠোর পরিশ্রমের স্বীকৃতি। বাংলাদেশের প্রথম আন্তর্জাতিক নারী রেফারি হতে পেরে আমার খুব ভালো লাগছে।”