শনিবার | ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১ | টরন্টো | কানাডা |

Breaking News:

  • অন্টারিওতে এপ্রিলের দিকে সংক্রমণের তৃতীয় ঢেউ শুরু হতে পারে
  • অর্থনীতিকে ফিরিয়ে আনতে গণপরিবহন ব্যবস্থায় বিশেষ সহায়তা
জেদ্দায় বাংলাদেশ কনস্যুলেটে মহান বিজয় দিবস উদযাপন

: ১৯ ডিসেম্বর ২০১৯ | সৌদি আরব প্রতিনিধি |

সৌদিআরবের জেদ্দায় বাংলাদেশ কনস্যুলেটে যথাযথ মর্যাদায় নানা কর্মসূচির মধ্যে দিয়ে বাংলাদেশের ৪৯তম বিজয় দিবস উদযাপিত হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষে (১৬ ডিসেম্বর) সোমবার ভোরের আলো ফোটার পর পরই কনস্যুলেট প্রাঙ্গণে জাতীয় সংগীতের সঙ্গে জাতীয় পতাকা উত্তোলন মাধ্যমে দিনের কার্যক্রম শুরু হয়। জেদ্দায় নবনিযুক্ত বাংলাদেশ কনস্যুলেট জেনারেল ফয়সাল আহমেদ পতাকা উত্তোলন করেন। পরে ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধে বীর শহীদদের স্মরণে দোয়া করা হয়।

কনস্যুলেট প্রাঙ্গণে পরবর্তী অনুষ্ঠানে মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর দেয়া বাণী পাঠ করা হয়। এসময় কনসাল জেনারেল ফয়সাল আহমেদ সকলের উদ্দেশ্যে স্বাগত বক্তব্য দেন।

কনসাল জেনারেল তার বক্তব্যে শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করেন, স্বাধীন বাংলাদেশের মহান স্থপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও ১৯৭৫ সালের ১৫ই আগস্ট নিহত তার পরিবারের সদস্যদের, মুক্তিযুদ্ধের সকল শহীদ, যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা এবং সম্ভ্রম হারানো সকল বীর নারীকে।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নিরলস পরিশ্রম ও গতিশীল নেতৃত্বের ফলশ্রুতিতে বাংলাদেশ উন্নয়ন বিশ্বের জন্য রোল মডেল। উন্নয়নের ধারাবাহিকতা রক্ষায় তিনি সবাইকে দেশের উন্নয়নে অবদান রাখার এবং সৌদিআরবে বাংলাদেশের মর্যাদা অটুট রাখার আহ্বান জানান।

বাংলাদেশ সরকারের প্রদত্ত কর্মসূচির আলোকে “বাংলাদেশ ইন্টারন্যাশনাল স্কুল”, জেদ্দার বাংলা ও ইংরেজী শাখার ছাত্র-ছাত্রীদের অংশগ্রহণে অনুষ্ঠিত “বিজয়ফুল” তৈরি, মহান বিজয় দিবস উপলক্ষ্যে রচনা প্রতিযোগিতা ও স্বরচিত কবিতা/ছড়া প্রতিযোগীতায় বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়। অনুষ্ঠানে জেদ্দায় বসবাসকারী বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সংর্বধনা ও শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের স্মরণে বিশেষ দোয়া ও মোনাজাত করা হয়।

কনসাল জেনারেল এর বক্তব্যের পরপর কনস্যুলেট প্রাঙ্গণে অস্থায়ীভাবে স্থাপিত স্মৃতিসৌধে পুষ্পস্তবক অর্পন করা হয়। এর পরপরই জেদ্দাস্থ প্রবাসী রাজনৈতিক দল, কমিউনিটি ও বিভিন্ন অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের পক্ষ থেকে অস্থায়ী স্মৃতিসৌধে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন।

অনুষ্ঠানে কনস্যুলেটের সকল কর্মকর্তা/কর্মচারি, “বাংলাদেশ ইন্টারন্যাশনাল স্কুল”, জেদ্দার বাংলা ও ইংরেজী শাখার শিক্ষক ও ছাত্র-ছাত্রীগণ, জেদ্দা’স্থ বাংলাদেশি কমিউনিটির বিভিন্ন ফোরামের নেতৃবৃন্দ, পেশাজীবী, ব্যবসায়ী এবং ইলেক্ট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়ার সাংবাদিকগণ উপস্থিত ছিলেন। উল্লেখ্য, এর আগে ১৫ ও ১৬ ডিসেম্বর সন্ধ্যা থেকে রাত ১টা পর্যন্ত কনস্যুলেট ভবন আলোক সজ্জায় সজ্জিত রাখা হয়।