শনিবার | ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১ | টরন্টো | কানাডা |

Breaking News:

  • অন্টারিওতে এপ্রিলের দিকে সংক্রমণের তৃতীয় ঢেউ শুরু হতে পারে
  • অর্থনীতিকে ফিরিয়ে আনতে গণপরিবহন ব্যবস্থায় বিশেষ সহায়তা
নিউইয়র্কে গভীর শ্রদ্ধায় স্মরণ শহীদ বুদ্ধিজীবীদের

: ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯ | দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম ডেস্ক |

আলোক শোকযাত্রা আর মোমবাতি প্রজ্জলনের মধ্যদিয়ে নিউইয়র্কে শহীদ বুদ্ধিজীবীদের আত্মত্যাগকে গভীর শ্রদ্ধায় স্মরণ করা হয়েছে। উত্তর আমেরিকাস্থ সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের এই অনুষ্ঠান হয় ‘শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস প্রদীপ শোকযাত্রা’ শিরোনামে ১৪ ডিসেম্বর শনিবার প্রথম প্রহরে জ্যাকসন হাইটসে পালকি পার্টি সেন্টারে। একাত্তরের বাঙালি জাতির শোকাবহ এই বিপর্যয়ের দিবনটিকে স্মরণ করার জন্যে টানা ২১ বছর ধরেই জোটের উদ্যোগে এমন কর্মসূচি পালন করা হচ্ছে সুদূর এ প্রবাসেও। জোটের প্রধান মিথুন আহমেদের সার্বিক সমন্বয়ে একাত্তরের শহীদ বুদ্ধিজীবীদের স্মরণের পাশাপাশি ঘাতকদের মধ্যে যারা এই প্রবাসে অবস্থান করছেন তাদেরকে চিহ্নিত এবং বাংলাদেশে চলমান বিচারে সোপর্দ করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন এই কর্মসূচিতে অংশগ্রহণকারীরা।

নিউইয়র্কে বাংলাদেশের কন্সাল জেনারেল সাদিয়া ফয়জুননেসা বলেন, প্রবাস প্রজন্মকে একাত্তরের ভয়াবহতা সম্পর্কে আরো বেশি করে জানাতে হবে। ঘাতকেরা কীভাবে মুক্তিপাগল বাঙালির ওপর ঝাঁপিয়ে পড়ে টানা ৯টি মাস বর্বরতা চালিয়েছে, মানবতাবিরোধী অপরাধ করেছে, সে তথ্য নতুন প্রজন্ম না জানলে আমরা এবং আপনারা যখন থাকবো না তখন এই দিবস বয়ে নেবে কে? সাদিয়া উল্লেখ করেন, আমরা-আপনারা সবাই জানি এই প্রবাসে একাত্তরের ঘাতক, শহীদ বুদ্ধিজীবীদের ঘাতকেরা কে কোথায় লুকিয়ে আছে। এবং বাংলাদেশের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্বকে যারা বিশ্বাস করে না এখনও, তাদের অবস্থান চিহ্নিত করতে হবে। তাহলেই শহীদ বুদ্ধিজীবীদের প্রতি যথার্থ সম্মান প্রদর্শন করা সম্ভব হবে।

বক্তারা বলেন, একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি আদায়ের জন্যে চলমান কার্যক্রমে সকলকে মনোযোগী হতে হবে। একাত্তরের সূর্যসন্তানদের ত্যাগের বিনিময়ে অর্জিত লাল-সবুজের পতাকা সমুন্নত রাখতে তথা মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় এগিয়ে চলা বাংলাদেশের ইমেজ আন্তর্জাতিক অঙ্গনে আরো মহিমান্বিত করার মধ্য দিয়েই শহীদের প্রতি যথাযথ সম্মান জানানো সম্ভব হবে।

এ সময় শহীদ সন্তান (শহীদ সাংবাদিক সিরাজউদ্দিন হোসেনের পুত্র) তৌহিদ রেজা নূরের নেতৃত্বে ‘মুক্তরি মন্দরি সোপান তলে কত প্রাণ হলো বলদিান/ লিখা আছে অশ্রুজলে’ গানটি সমস্বরে পরিবেশিত হয়।

এবারের কর্মসূচিতে বিশিষ্টজনদের মধ্যে আরো ছিলেন জাতিসংঘে বাংলাদেশের ফার্স্ট সেক্রেটারি (প্রেস) নূর এলাহি মিনা, শহীদ সাংবাদিক সিরাজউদ্দিন হোসেনের ছেলে ফাহিম রেজা নূর, যুক্তরাষ্ট্র সেক্টর কমান্ডারস ফোরামের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা রাশেদ আহমেদ, নিউইয়র্ক মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি জাকারিয়া চৌধুরী, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা মাসুদুল হাসান, কবি মিশুক সেলিম, কমিউনিটি অ্যাক্টিভিস্ট মঞ্জুর চৌধুরী, স্বীকৃতি বড়ুয়া, শরাফ সরকার, মোর্শেদ আলম, নাসিমুন্নাহার নিনি, গোপন সাহা, সুব্রত বিশ্বাস, মিনহাজ সাম্মু, সেমন্তী ওয়াহেদ সহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার প্রবাসীরা। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি