রায় ঘোষণার সাথে সাথে আসামিরা চিৎকার শুরু করে

২৭ নভেম্বর ২০১৯


রায় ঘোষণার সাথে সাথে আসামিরা চিৎকার শুরু করে

গুলশানের হলি আর্টিজান হামলা মামলার রায়ে অভিযুক্ত ৮ জনের মধ্যে সাত আসামিকে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করার নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। এক আসামি খালাস দেওয়া হয়েছে। বুধবার ( ২৭ নভেম্বর) ১২টা ১৫ মিনিটে ঢাকার সন্ত্রাসবিরোধী বিশেষ ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. মজিবুর রহমান এ রায় দেন।

রায় ঘোষণার সাথে সাথে আসামিরা চিৎকার শুরু করে। এসময় তারা উগ্র মেজাজ দেখাতে থাকে। পরে ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিদের এজলাস থেকে বের করে ফের হাজতখানার দিকে নেওয়া হয়।

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসা‌মিরা হ‌লেন- জাহাঙ্গীর হোসেন ওরফে রাজীব গান্ধী, আসলাম হোসেন ওরফে র‌্যাশ, আব্দুস সবুর খান, রাকিবুল হাসান রিগ্যান, হাদিসুর রহমান, শরিফুল ইসলাম ওরফে খালেদ ও মামুনুর রশিদ। খালাস পেয়েছেন মিজানুর রহমান ওরফে বড় মিজান।

মূহুর্তেই রাজধানী ঢাকা ও পুরো বাংলাদেশে আতংক। এমন নজির এর আগে এদেশে কখনো হয়নি। জঙ্গিদের আক্রমণ। তিন বছর আগের ঘটনা। সময়টা ২০১৬ সালের ১ জুলাই। দিনটি ছিল সাপ্তাহিক ছুটির দিন। সন্ধ্যা পর্যন্ত সব ঠিক ছিল; সন্ধ্যার পর যেন 'অন্ধকারে' বাংলাদেশ। গুলশানের হলি আআরটিজান বেকারি ও রেস্তোরাঁয় জঙ্গিদের আক্রমণ।

সেদিন জঙ্গি হামলায় নিহত হন ১৭ বিদেশি। এরমধ্যে ৭ জন জাপানি। তারা ঢাকায় মেট্ররেলের কাজে নিয়োজিত ছিলেন। এছাড়া ৩ বাংলাদেশি নিহত হন; তদের রক্ষা করতে যাওয়া দুই পুলিশ কর্মকরতাসহ মোট ২২ জন নিহত হন। তিন বছর আগের ওই হামলার ঘটনার মামলায় আজ রায় দেওয়া হল।