বসন্তের কোকিলদের দলে ঠাঁই দেবেন না : কাদের

২৬ নভেম্বর ২০১৯


বসন্তের কোকিলদের দলে ঠাঁই দেবেন না : কাদের

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বসন্তের কোকিলদের দলে ঠাঁই দেবেন না। মতা থেকে চলে গেলে তাদের কুপি জ্বালিয়েও খুঁজে পাওয়া যাবে না। বসন্তেরর কোকিল, সুবিধাবাদী, মাদক ব্যবসায়ী, দুর্নীতিবাজ, টেন্ডারবাজ, চাঁদাবাজ ও ভূমি দখলকারীদের না বলুন। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ঐক্যবদ্ধ শুদ্ধি অভিযানকে সমর্থন করুন। তিনি  আরো বলেন, মতা চিরস্থায়ী নয়, সেদিকে খেয়াল রাখুন। এখন ছাত্রলীগের অনেক নেতা বসে আছে। তাদের মধ্য থেকে কিন ইমেজ এবং ফ্রেশ মুখদের দলে জায়গা করে দিতে হবে। দলের মধ্য থেকে দূষিত রক্ত বের করে দিয়ে বিশুদ্ধ রক্ত রাখতে হবে। মঙ্গলবার দুপুরে রংপুর পাবলিক লাইব্রেরি মাঠে রংপুর জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের সম্মেলন ও কাউন্সিলে প্রধান অতিথির বক্তৃতাকালে এসব কথা বলেন তিনি।

ওবায়দুল কাদের বলেন, মুক্তিযুদ্ধকে বাঁচাতে, গণতন্ত্রকে বাঁচাতে, উন্নয়নকে বাঁচাতে শেখ হাসিনাকে মতায় রাখতে হবে। আমাদের নেত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, হাই থিংক, সিম্পল লিভিং। এ নীতিতে চলতে হবে। কিন ইমেজের যেকোনও ব্যক্তির জন্য শেখ হাসিনার দরজা সব সময় খোলা। আসুন আওয়ামী লীগে যোগ দিন। আওয়ামী লীগের প্রতি মুখ ফিরিয়ে নেবেন না।

সাধারণ সম্পাদক বলেন, রংপুরের পুত্রবধু প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার স্বদিচ্ছায় মঙ্গা পীড়িত তিস্তা পারের রংপুর এখন অনেক উন্নত, এখন আর মঙ্গা নাই। রংপুরের যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়ন হয়েছে, অচিরেই রংপুর গংগাচড়া, হাজিরহাট, মিঠাপুকুর, এলাকার সড়ক উন্নয়ন শুরু হবে। বগুড়া রংপুর ফোরলেন রাস্তার কাজসহ উত্তরাঞ্চলের ব্রীজ উন্নয়নের কাজও শুরু হয়েছে।

তিনি সম্মেলনে দুঃসময়ে রাতের বাসে রংপুর এসেছেন, বলাকা হোটেলে দূর্যোগপূণকালীন সময়ে ছিলেন সেটি স্মরণ করে বলেন, আওয়ামী লীগের দুঃসময়ে রংপুর আওয়ামীলীগ সবসময় ছিলেন। তিনি সুস্থ্য থাকলে আসবেন, বার বার আসবেন বলেও আশাবাদ ব্যক্ত করেন। সম্মেলন উদ্বোধন করেন বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য রমেশ চন্দ্র সেন এমপি।

প্রধান বক্তা ছিলেন, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও রংপুর বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত জাহাঙ্গীর কবির নানক। বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আবুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক ও রংপুর বিভাগের দায়িত্ব প্রাপ্ত বিএম মোজাম্মেল হক, অর্থ ও পরিকল্পনা বিষয়ক সম্পাদক টিপু মুনশি এমপি, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ড. সাম্মি আখতার। সভাপতিত্ব করেন রংপুর জেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মমতাজ উদ্দিন আহমেদ। সম্মেলনে স্বাগত বক্তব্য রাখেন, রংপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট রেজাউল করিম রাজু ও মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি সাফিউর রহমান সফি। সঞ্চালনা করেন মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক তুষার কান্তি মন্ডল।

 দলীয় সূত্রে জানা যায়, সম্মেলনকে ঘিরে সভাপতি পদে বর্তমান জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মমতাজ উদ্দিন আহমেদ, মুক্তিযোদ্ধা মোছাদ্দেক হোসেন বাবলু, সাবেক এমপি অ্যাডভোকেট হোসনে আরা লুৎফা ডালিয়া কয়েক দিন থেকে ব্যস্ত  ছিলেন।

অপরদিকে অ্যাডভোকেট রেজাউল করিম রাজু, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মাজেদ আলী বাবুল, সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আনোয়ারুল ইসলাম, দপ্তর সম্পাদক তৌহিদুর রহমান টুটুলসহ বেশ ক’জন সাধারণ সম্পাদক পদে  প্রচারণা চালিয়েছেন।

রংপুর মহানগরে সভাপতি প্রার্থীর প্রচারে ছিলেন মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি শামীম তালুকদার, বর্তমান সভাপতি শাফিউর রহমান শফি, রংপুর জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ডের সভাপতি তৌহিদুল ইসলাম, রংপুর জেলা আওয়ামী লীগের কোষাধ্য আবুল কাশেম, রংপুর মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি আতাউজ্জামান বাবু।

 এদিকে মহানগর শাখার সাধারণ সম্পাদক পদে আলোচনায় ছিলেন বর্তমান রংপুর সাধারণ সম্পাদক তুষার কান্তি মন্ডল, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা রংপুর মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. জাহাঙ্গীর আলম তোতা, মহানগর জাতীয় শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক এম এ মজিদ, মহানগর আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক রেজাউল ইসলাম মিলন, সাবেক ছাত্রনেতা অ্যাডভোকেট দিলশাদ ইসলাম মুকুল, মহানগর আওয়ামী লীগ নেতা নওসাদ রশিদ, সহিদুল ইসলাম হীরা ।