দিনরাত পরিশ্রম করছি দেশের উন্নয়নের জন্য: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

২৩ নভেম্বর ২০১৯


দিনরাত পরিশ্রম করছি দেশের উন্নয়নের জন্য: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আবারো একবার হুশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেছেন, ‘দিনরাত পরিশ্রম করছি দেশের উন্নয়নের জন্য। এটা বাধাগ্রস্ত করতে চাইলে ছাড় দেওয়া হবে না। সন্ত্রাসী-জঙ্গি-মাদক ব্যবসায়ী যে-ই হোক, কাউকে ছাড় দেব না। আজ শনিবার বেলা ১১টায় রাজধানীর ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে যুবলীগের ত্রিবার্ষিক জাতীয় সম্মেলনের উদ্বোধন কালে প্রধানমন্ত্রী  এ সতর্কবাণী উচ্চারণ করেন। এ সময় শেখ হাসিনা বলেন, ‘প্রত্যেকটা আন্দোলন-সংগ্রামে আমাদের যুবলীগের কর্মীদের অবদান ছিল। প্রত্যেকটা ক্ষেত্রে আমি দেখেছি, যুবলীগ অগ্রণী ভূমিকা নিয়েছে।

যুবলীগকে একটি আদর্শ সংগঠন হিসেবে গড়ে তোলার আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন,এদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন এই যুবকরাই  জাতির পিতার আহ্বানে সাড়া দিয়ে অস্ত্র তুলে নিয়ে নিজের বুকের রক্ত ঢেলে দিয়ে এই দেশের স্বাধীনতা এনে দিয়েছে। যুব সমাজকে আমরা চাই একটা আদর্শ হিসেবে তারা নিজেদের গড়ে তুলবে। এবং এই যুবলীগ সংগঠনটা তাদের কোনো রকম যেন বদনাম না হয়, তারা যেন সম্মান নিয়ে চলতে পারে এবং আদর্শ নিয়ে চলে, তারা যেন দেশের কল্যাণে কাজ করে-এই লক্ষ্য নিয়ে এই সংগঠনটা গড়ে তুলতে হবে।’

যুবলীগের  শীর্ষ পর্যায়ের কতিপয় নেতার ক্যাসিনো কেলেঙ্কারি সহ নানা  দুর্নীতিমুলক কর্মকাণ্ডে দেশব্যাপী সমালোচনা,  গ্রেপ্তার ও বহিষ্কারের মুখে সংগঠনের ভাবমূর্তি পুনরুদ্ধারের চ্যালেঞ্জ নিয়ে অনুষ্ঠিত এ সম্মেলনে   সন্ত্রাস ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে নিজের দৃঢ় অবস্থান তুলে ধরে শেখ হাসিনা বলেন, ‘দুর্নীতি করে কেউ টাকা বানাতে পারে, এই টাকা দিয়ে জৌলুস করতে পারে, চাকচিক্য বাড়াতে পারে, আন্তর্জাতিক বড় বড় ব্র্যান্ডের জিনিস পরতে পারে।  মানুষ হয়তো অবাক হয়ে তাদের দিকে তাকাতে পারে। কিন্তু তাতে সম্মান পাওয়া যায় না।“

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘যুব সমাজকে সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ, চাঁদাবাজি ও দুর্নীতি থেকে দূরে রাখতে নানামুখী পদক্ষেপ নিয়েছে সরকার। যুব সমাজকে সঠিক পথে রাখতে কর্মসংস্থানের সৃষ্টির কাজ করে যাচ্ছে সরকার। দেশকে ডিজিটাল বাংলাদেশে রূপান্তরের মাধ্যমে তরুণদের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করেছে সরকার।’

সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সম্মেলনের প্রথম অধিবেশন শেষ হওয়ার পর পার্শ্ববর্তী  ইঞ্জিনিয়ার্স ইন্সটিটিউশন মিলনায়তনে বেলা তিনটায়  অনুষ্ঠিত দ্বিতীয় অধিবেশনে  অধ্যাপক শেখ ফজলে শামস পরশকে চেয়ারম্যান এবং মাইনুল হোসেন খান নিখিলকে সাধারণ সম্পাদক করে আগামী তিন বছরের জন্য আওয়ামী যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে।