লবণ সংকটের গুজব: মন্ত্রণালয় বলছে কোন ঘাটতি নেই

১৯ নভেম্বর ২০১৯


লবণ সংকটের গুজব: মন্ত্রণালয় বলছে কোন ঘাটতি নেই

বাংলাদেশে 'লবণের সংকটের' কথা বলে গুজব ছড়ানো হচ্ছে, এমন সতর্কতা জানিয়ে সরকার বলেছে যে লবণ সংক্রান্ত বিষয়ে তদারকির জন্য ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প কর্পোরেশন বা বিসিকের প্রধান কার্যালয়ে একটি কন্ট্রোল রুম খোলা হয়েছে। শিল্প মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে এই গুজব ছড়ানোর জন্য 'একটি স্বার্থান্বেষী মহল'কে দায়ী করা হয়েছে।

সরকারি বিবৃতিতে বলা হয়, "দেশে বর্তমানে সাড়ে ছয় লাখ মেট্রিক টনের বেশি ভোজ্য লবণ মজুদ রয়েছে। এর মধ্যে কক্সবাজার ও চট্টগ্রামের লবণ চাষিদের কাছে ৪ লাখ ৫ হাজার মেট্রিক টন এবং বিভিন্ন লবণ মিলের গুদামে ২ লাখ ৪৫ হাজার মেট্রিক টন লবণ মজুদ রয়েছে"।

এর বাইরে সারাদেশে বিভিন্ন লবণ কোম্পানির ডিলার, পাইকারি ও খুচরা বিক্রেতাদের কাছে পর্যাপ্ত লবণ মজুদ রয়েছে বলে জানানো হয়। শিল্প মন্ত্রণালয় বলছে, "চলতি মাস থেকে লবণের উৎপাদন মওসুম শুরু হয়েছে। ইতোমধ্যে কক্সবাজার জেলার কুতুবদিয়া ও মহেশখালী উপজেলায় উৎপাদিত নতুন লবণও বাজারে আসতে শুরু করেছে"।

বিবৃতিতে বলা হয়, একটি স্বার্থান্বেষী মহল লবণের সংকট রয়েছে মর্মে গুজব ছড়িয়ে অধিক মুনাফা লাভের আশায় লবণের দাম অস্থিতিশীল করার অপচেষ্টা চালাচ্ছে বলে প্রতীয়মান হচ্ছে। এ ধরণের গুজবে বিভ্রান্ত না হওয়ার জন্য শিল্প মন্ত্রণালয় সবাইকে আহবান জানায়।

ওদিকে লবণ মালিক সমিতির বার্ষিক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে আজ কক্সবাজারে। সেখানে জানানো হয়েছে যে দেশে অন্তত দু'মাসের চাহিদা পূরণের মতো লবণ মজুদ আছে। ফেসবুকসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অনেকেই অভিযোগ করছেন যে লবণ নিয়ে গুজব ছড়ানো হচ্ছে। তবে সরকারের ভোক্তা অধিকার থেকে বলা হয়েছে, লবণের কেউ অতিরিক্ত দাম চাইলে তাদেরকে যেন জানানো হয়।  -বিবিসি বাংলা